পাতা:প্রবাসী (সপ্তদশ ভাগ, প্রথম খণ্ড).pdf/২৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


- 蠶、০৪:২৯, ৩১ মার্চ ২০১৬ (ইউটিসি)。 * করেন নাই। হয়। তাছার দাৰি গ্রেসের কর্তৃপক্ষ গ্রহণ ੋਜ। তবে এস্থলে তাহার রাষ্ট্ৰী হইলেন না কেন ? ] তাহারা দাৰি নলওয়ার বিশ্ববিদ্যালয় তাৰ ধানের ভার লরেন। নিম্নলিখিত বিষয়ে কর্তৃপক্ষ ঠিক তথ্য নিদ্ধারণ করুন -(১) দুটি প্রেসের যেবে কামরায় প্রশ্ন কম্পোছ হইয়াছিল, তাহাতে সৰ্ব্বক্ষণ এক এক জন সম্পূর্ণ বিশ্বাসী তত্ত্বাবধায়ক ছিলেন কি না। (২) ফেলে কামরায় প্রশ্নপত্র ছাপা হইয়াছিল, তাহাতে ছাপার আরম্ভ হইতে শেষ পর্যন্ত সম্পূর্ণ বিশ্বাসযোগ্য তত্ত্বাবধায়ক ছিলেন কি না। (৩) ছাপ শেষ হইবার পর প্রেদের বেড়, হইতে কম্পোজ-করা ম্যাটার ভৰাবধারকের সম্মুখে ডিগ্লিফিউই করান হুইগছিল কি না। (৪) কেবলমাত্র অক্ষর-পরিচয় আছে এরূপ কম্পোজিটর নিযুক্ত হইয়াছিল, না লেখা-পড়া-জানা কম্পোজিটর নিযুক্ত হুইয়াছিল ? ( ) একজন কম্পোজিটর গণিতের একটি । ं, ॰वेवब्र ब्रूणि রিয়াছিল কি না ? বার বার পরীক্ষা ছাত্রছাত্রীদের অর্থনাশ হইতেছে ; তাহা সস্থা করিবার মত অবস্থা অনেকের নাই। থাকিলেই ৰ অপব্যয় কেন হুইবে ? তদপেক্ষ গুরুতর ক্ষতি তাঙ্গাদের স্বাস্থ্যহানি, এবং ইতিনমাসব্যাপী উদ্বেগ ও _ী আশঙ্কা। বার বার পরীক্ষা দেওয়া ও অনিশ্চয়ের মধ্যে - ੋਂ বড়ই কষ্টকর। শীঘ্র তাহাদের যন্ত্রণার * নিবৃত্তি হওয়া একান্ত আবশুক। আমরা লঘূচিত্তে বিশ্ব বিদ্যালয়কে দোষ দিতে চাই না। আমরা জানি তাদের কাজ কত কঠিন। কিন্তু কাজ কঠিন হইলেও, দায়িত্ববোধ যথেষ্ট কি চাই। যেমন কঠিন কাজ, যেমন দায়িত্ব, তেমৰ্পিমান ও শও আছে। সম্মান ও যশের উপযুক্ত গিতা, কষ্ঠিত, দৃঢ়চিত্ততা এবং যথাসম্ভব -সিময়ের মধ্যে কর্তব্য নির্ণয়ের ক্ষমতা পাক চাই। একটা খুব রটিয়াছে যে প্রবেশিক পরীক্ষা মার এবংসর হইবে না। তাছা হইলে ছাত্রছাত্রীরা কি এৰংসর কলেজে ভষ্টি হুইতে পালিবে না ? তাছাদের জীবনের এক বৎসর সময় বিনা দেখি নষ্ট হইবে ? একথা বিশ্বাসযোগ বোধ হয় না। প্রথম কি শ্রেণীতে এবাৰু ছাত্র ভৰ্ত্তি না ফলে বেদকাৰীও গল্পগুলি চুলিৰে কি রূপে,

  • . . ---

| ১ি২৭ ভাগ, ১ম খ


> -- - -- - [ খুব গোপনীয় সরকারী জিনিষ এখানে গা-এবং অন্যান্য কলেজে যে সব অধ্যাপক ঐ শ্রেণীতে পড়া, তাহাদিগকে কি জোর কলিয়া এক বৎসরের ছুটি দেওয়া

হইবে, না তাহারা বিনা পরিশ্রমে বেতন পাইতে থাকিবেন ?_r, • শুনিতেছি বিশ্ববিদ্যালয় সমুদয় স্কুলের টেষ্ট পরীক্ষায় ছাত্রদের নম্বর জানিতে চাঠিয়াছেন। সব সূলের টেষ্টের প্রশ্ন এক ছিল না, সমান কঠিন ছিল না, পলীগকেরা ও সমান কড়া ছিলেন না। তথাপি, যাহার টেষ্টে পাস ইয়াছিল, - তাঙ্গাদিগকে, শ্রেণীবিভক্ত না করিয়, কেবল পাস কলিয়। দিলে, মযোগ্য কেন্ঠ সঙ্গজে, ফাকি দিয়া, পাস হুইল এরূপ বলা যাইবে না। কিন্তু টেষ্টের ফল অনুসারে কাছাকেও বৃত্তি দ্ধে ওয়া চলিতেই পারে না ; তাঙ্গার উপায় কি হইবে ? ধাঙ্গার টেষ্টে পাস হইয়াছে, কেবল তাঙ্গাদিগকে পাস কলিয়া দিলে, কতকগুলি যোগ্য ছেলের প্রতি অবিচার হইবে। অনেক ছেলে টেষ্ট্রে ফেল হয়, কিন্তু প্রবেশিকায়, এমন কি প্রথম বিভাগে, পাস হয় । তাছাদের প্রতি অবিচার হইবে। কোন স্কুলের টেষ্টের প্রশ্ন সঙ্গ, কাগর ও শক্ত হয়। এক স্কুলের পরীক্ষা শক্ত বলিয়। একজন ফেল হইল, অন্তসূলের পরীক্ষা সহজ বলিয়া তাঙ্গ অপেক্ষ নিকৃষ্ট আর-একজন পাস হইল। টেষ্ট পরীক্ষার ফল অনুসারে পাস ফেল করিলে, প্রথমোক্ত ছাত্রের প্রতি অবিচার হইবে । রকম প্রশ্নাবলীর দ্বার প্রবেশিক পরীক্ষা আবার গুইৗত হইবে । ইহা মনোর ভাল বটে, কিন্তু এরূপ হইলে, সকল ছেলের জন্য যোগ্যতার মাপকাটি এক হইবে না, এবং এতদনুসারে বৃত্তি দিলে সুবিচার হইবে না।-যাগ হউক, শীঘ্ন কিছু সমীচীন ব্যবস্থ হওয়া উচিত । আমাদের দেশের শিক্ষিত লোকের যে সব বৃত্তি অবলম্বন করেন, তাহার প্রায় সমস্তই বিশ্ববিদ্যালয়ের পাশের উপর ভঁর করে। নূতন নূতন বৃত্তি ও ব্যবসা, নুতন নূতন উপার্জনের পপ গুলির দিলে, পাসের দাম কমে, এবং চুরি করিয়া পাস করিব প্রলোভনও কম হয়। এদিকে গবর্ণ মেন্টের ও দেশনায়কদের অধিকতর দৃষ্ট দরকার। সৰ্ব্বোপরি দরকার, সেচ শিক্ষা, যাঙ্গ সাধুতা ও জ্ঞানকে সৰ্ব্বাপেক্ষ মূল্যবান বলিয়া মানুষের দৃঢ় ধারণ জন্মাষ্টয়া দিতে পারে। | - ইঙ্গা ও শুনিতেছি, এক এক কেন্ধে এক এক --- * - বাথিত । ജ്-്. o ாே அ_ *ങ്ങ് ** ! s - o - - o - - -