পাতা:প্রবাসী (সপ্তদশ ভাগ, প্রথম খণ্ড).pdf/২৮৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


৪৬৮ প্ৰবাসী—ভাদ্র, ১৩২৪ ১৭শ ভাগ, ১ম খণ্ড লিগিয়াছেন তথাপি বোধ হয় তালগাছ হইতে চারি মাসে গুড়ের উদ্ভব একমণ গুড় পাওয়া যাইতে পারে এখন থের ছাড়িয়া তালগাছ দেখি বহুকাল হইতে তাৱাদি বৰ্গের ( order ) কেবল তাল ও খেজুর মতে, মাদ্ৰাজে তালসের তাড়ী ও গুড় হইতেছে সেখানে ইং নারিকেল-গাছের রসে গুড় হয়, বোপাই প্রদেশে তাড়ী হয় ১৯১৪ সালে লোকে খাই চানির কুঠীলা কই গণ মণ ক’ নারিকো-গাছ লেই মূলাবান, ৰংসরে ২২ টাকা । গুড় বিক্ৰি করিয়াছে প্রায় ২ লক্ষ তালগাছের রস নারিকেল-গাছের সদৃশ একটা গাছ আছে । ইহা আসাম দেওয়া হইতেছে । বাট সাহেবের মতে গুড় ২০ লগে মণের শ্ৰীহাট ‘চাউরা ওড়িষ্যায় ‘সলাপ, (এবং ক্ষম হইবে না ইংরেজীতে Caryotta Uses কিন্তু আমি তালের ‘রস দেওয়া দেখি নাই, রসও দেখি থা স্বী বলিয়া কলিকাতায় বাগানে রোপিত নাই। যে দুইএক কথা লিণিতে যাইতেছি, তাহা অন্তে । হয় । কিন্তু, গাছটা বন্ধু । গাছের ভিতরে এক-রকম সাধু খেজুর গাছে ও তালের গাছে ‘স দেওয়া" প্ৰভেদ আছে ভিক্ষে সময় দরিদ্রে গাছ কাটিয়া সাবু বানি তালের গাছে ক্ষত করা হয় না ; ইহার মঞ্জীর মোটা করি। বেথাই ও সি ণ ইহার রসে তাড়ী ও গ বোটায় করা হয় । অতএব যখন চৈত্ৰমাসে ম : জন্ম খালকে ক্ষত করা হয়। খন হইতে কুস-সংগ্ৰাহের সময় বস্তুতঃ *াই যে মধুর স গীতের পাঁচ ছয় দিন পরে তাহ ৩৪ সের, ক্ৰমে ৮১০ পুপ ও ফল উৎপাদনের নিমিত্ত, দেহে সঞ্চয় করে, তাহা সেৱা পৰ্যন্ত স পাওয়া যায় কেহ লিথিয়াছেন, কামরা অপহরণ করি। আখের তাই, খেজুরেরও তাই সবল গাছ হইতে আাধ মণ রাও পাওয়া যায় সাসাদ এমনকি গাইর দুধ ও তাই ; যেীবন কালের পূৰ্বেই আগ তাড়ী হয় । নারিকেল-গছ-সদৃশ সেখানকার আর-এক গান্ধ কাটা হয় । এই সময়ই খেজুর রস সংগ্রহের ঠিক সময় ফুল ধরিলে খেজুর-সের ইক্ষুশর্করা নাকি উনশকায় জাবা স্বীপে ইহার মঞ্জীর রস হইতে গড় হয়। এই পণিত হয়। আঞ্চেরও যৌবন অতীতে উনশৰ্করা হয় পাছের ও ভিতরে সাধু পাওয়া একজন লিখিয়াছেন তালের ও যৌবনোদমে শৰ্ব্বারা পাওয়া যায়, কিন্তু সে শৰ্করা কলিকাতার একটা গাছ কাটিয়া প্ৰায় দুই মণ সাধু পাইয়া ইক্ষুশর্করা; উনশৰ্করা প্ৰায় থাকে না । অথচ গ্ৰীষ্মকাল ছিলেন । অতএব বোধ হয় প্ৰত্যেক গাং হইতে এক ধ লিয়া উনশৰ্করা উৎপন্ন হইতে বেশী সময় লাগে না । সন্ধান গড় পাওয়া অসম্ভব হইবে ন কারণ তালাদিবৰ্গে নিবারণ নিমিত্ত তালের রসের কণসীর ভিতরটা চুন মাখানা গাছ হইতে যে মিষ্ট রস পাওয়া যায় তাহা প্ৰথমে হয়। বোধ হয় ইহাতে রস তাল থাকে অতএব তালনিৰৱে মোটা গা কালী চুন মাখাইয়া পরীক্ষ কৰ্তব্য )। বাবা (পুং ) গাছ দেপিণেই তাই। হইতে রস-সংগ্রহের চেষ্টা করা ফলের (স্ত্ৰী ) গাছ হইতে প্ৰায় দেড়া রস পাওয়া তঃ এ সব পাছের পরীক্ষা ও ব্লসের বিমান কৰ্তব্য (খেয়-গাছে এইরুপ প্ৰভেদ দেখা যায় কি ? স্নাদিবর্ণের মধ্যে অবশ্য ইলুই প্ৰধান । কিন্ত আৰু প্ৰত্যহ মাকি পাচসের, এবং এইরুপ চারিমাস নাকি জোয়ার প্ৰধান । বঙ্গদেশ রস পাওয়া যায়। কিন্তু তিন বৎসর অন্তর জোঙ্গা প্ৰসিদ্ধ নতে ভারতের বই স্থানে ধান ও গাছকে জিরান ( বিশ্ৰাম ) দেওয়া হয় । একজন লিখিয়া- নিমির জোরে চাষ হ সঙ্গদেশের দে-বান হেন, তিন সোর ব্লসে এক সেৱ গুড় হয় ; অপারে লিখিয়াসদৃশ । লোথারের নানা জাত অাছে ৱাট হেনসের শতকে ১২ভাগ শৰ্কর, অর্থাৎ খেজুর রসের বিথিয়াছেন, বিকানী ও আজমীরে বহুকাল হইতে এক তুল্য যোগ হয় লেখকেরা অঙ্কের হস্তীৰ্শন ন্যায়ে গাছ, মিষ্ট জোয়ারের চাস আছে। তাহা হইতে গড় ইত গাছের বয়স, রসের সময় ইত্যাদি বিচার না করিয়া কয়েক বৎসর হইতে আমেরিকার “মুক্তরাজ্যে” জোহায়ে ( Asºm schººlin) ইতেও তােক সংখ্যা ]] --- ৫ য়ে প্ৰতি দৃষ্টি পড়িয়াছে। কিন্ত দেখা গিয়াছে মৃত্তিকা ফুলে একটা তেল আছে, যে ক্ৰন্থ ফুলের গন্ধ । সে যি প্ৰভেদে শৰ্করার ভাগের নানাধিক্য ঘটে । ইহার তেল পৃথক করা হয় নাই। গাছের তলা বাটইয়া আনে সর-শতকে ৮৯ ভাগ ইক্ষুশর্করা পাওয়া যায় বলিয়া ফুলে মাটি ও বালি থাকে রোদে শুকাইলে অল্প দেশে গড়ের নিমিত্ত কত চেষ্টা কত যত্ন হইতেছে। মামাদের দেশে কত গাছ বনু আমরা একটু ২ চেষ্টা করিলে গড় পাইতাম । উপরে আসামের দুইটা অযু জৈব ছয় উল্লেখ করিয়াছি থানে একটা বল্প গড়-ফুলের বলিতে যাইতেছি দুই বৎসর হইল ব্ল’চিতে দেখি সেখানে সরকারী মদের ভ্ৰাটগানায়ু মন্ত অ-ফুলে সুৱা হইতেছে। মহা-ফুল পূৰ্বেও দে থিয়াছিলাম, কিন্তু , তখন ৱে শকাতা মনে হয় নাই। -পাছের -সংস্কুত উপাদান ইতে দেখা যাইবে মটলের ইহুশর্করাখকক মে মধুক। ইহার অপর সংস্কৃত নাম মধু দুম -পুপ কারণু ইহার প্রার চারি গণ শঙ্কা । ফুল মহল, মউল পশ্চিম-বঙ্গের পশ্চিম হইতে অতএব মউলের কেবল ফাশিত বা কোলা গুড় কয়িতে মধ্য-ভারতের নীরস পাথরো বনে মহ স্নার জন্ম ৱা যায় । নইলে ফাণিত মধু-বৰ্ণ, সুগন্ধ, মধুর ; কিন্তু ফুলে মধু, বীজে তেল আছে হে অ-তে হলেী শেষে কষায় লাগে , পরীক্ষা দ্বারাও জানা যায়, স্কুলে কোচা” নামে খ্যাত। চৈত্রমাসে মউল (ম আর ‘কামীন আছে হয়ত আরও কিছু আছে, হয় । ফুল ঘটাকার, মাংসল, মধু-বৰ্ণ, মধুগন্ধ, মিষ্ট সেজন্য নিয়োদরের দোষ জন্মে ( বস্তিদুষণ ) ; ফুল বেশী দিব তিককােয়। বননেিব না হলে মাথা েযাগে দরিদ্রেরা থাইলে বমি হয় । বেশী মধু খাইলেও বেল কুড়াইয়া কিংবা সুবিধা হইলে 'টাইয়া আনে । ঘোরে শের বাড়িয়া ফেলিয়া মউল ব্ৰাধিয়া থায়, চালের সঙ্গে কাটা পিঠা করে মউল বাটিয়া জলে সিকাইয়া ছাকিয়া নিঙ্গাইয়া শৰ্কীয়া এক এক গাছ হইতে ৪/৫ মণ ফুল গুয়া যায়। ফঁাকার গাছ বড় হইলে ৭৮ মণ পৰ্যন্ত পাওয়া বাহির কবিতে পারা যায় । কিন্তু, তাহাতে শৰ্কয়ায় সঙ্গে, যায়। বাঁকুড়ায় লোকে মউল শখাইয়া মরাই বাধিয়া ব্ৰাণে সঙ্গে অনাবশ্যক বহ , জৈব দ্রব্য চলিয়া আসে । যে যে ইদানী বীট হইতে শৰ্করা নিয়াসিত হইয়া থাকে, মটলের উলের দেশে মউলের সময় ৮০ অনায় মাউলের পক্ষে তাহা উত্তম । ক্ৰমের তত্ত্ব বোঝা কঠিন নহে। অ সময় ১ —১৮৭৭ হয় । দুরে বহনি খরচ ২—২° পৰ্য্যন্ত উঠে । করা ফুল ৮১ দিন কথায় বলিতে গেলে, অমাবশ্যক অংশ পাতলা পাতলা , (যেমন ৱে ৰাখিবার পর পাইয়াছি পয়সা নোটা ) করিয়া কাটিয়া কুচিগলি জলস্ৰোতে ফেলা (২ ১ } হয়, শৰ্করা ধোআ হইয়া বাহিরের জলে আসে। গামে ২৪ ২৪.৫ অ্যাসিকা চীন-কুঠাতে আখ মাড়া হয় না, এইপে আখটি ণে বন গরম জলে ধোআ হয়। পূৰ্বে বলা গিয়াছে, গাছের সৰ্বাদ ওঁ ঐ গ্ন জৈব কোষে নিৰ্মিত । কোষের ভিতরে রস থাকে। নেবুর একটা রোত্মা দেখিলে বিষয়টা সুবোধ্য হইবে । ইহাও গুড়ের উদ্ভব ৩—৩৫ ৮,৭ ১৮ ১ . 86 শতেও মধুকে চাণিতের উল্লেখ আছে। লিখিত আছে, মধুক পুশে বাণিত বুখ, বাতগিক কারক, কক্ষ, পাৰে , ও বতিদূণ। ঐ