পাতা:প্রবাসী (সপ্তদশ ভাগ, প্রথম খণ্ড).pdf/২৯০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


প্ৰবাসী—ভাদ্র, ১৩২৪ [ ১৭শ ভাগ ১১ খণ্ড ৫ম সংখ্যা ] দিকটা অষ্টকোণী আর মাথার গুহাগৃহ তীরে গঙ্গামহাদেও আর মহাকালেশ্বরের পাথরের মন্দির। নাতিবৃহৎ গঙ্গামহাদেওরের মন্দিরটির বিশেষত্ব এই যে আমাদের মনে হয় বাঘ-প্রামের নিকটবজী বাণীৰ্থী ট এর উপরে চুড়ােৱ অংশটি ইট দিয়ে গাথা আর নীচের অৰ্থাৎ বাগদেবীর প্রাচীন মন্দিরটির নাম অনুযায়ী দি বাণ ৰ দ্বাদগুলি এখন সসে পড়ে অংশ পাথরের গঙ্গামহাদেধের লিঙ্গমুঠি ছাড়া কতকগুলি গুহার বাইরে দালানের নদী বা গ্রাম ও গুহাগৃহগুলির নামকরণ করা হয়ে থাকে ৷ ও প্রাচীন মূৰ্ত্তি মন্দিরের মধ্যে স্থান হলে ‘বাঘ’ না বলে ‘বাগ’ নামে এগুলিকে অভিহিত করতে মা নেই অপেক্ষাকৃত আধুনিক এই শুইটির } পেয়েছে। সেগুলির মধ্যে, কতকগুলি খুব সুন্দর এবং হয়। যাই হোক এ-সকল বিষয় বিশেষজ্ঞেরা বিবেচনা পাৰ একস্থানে পাহাড়ে গ৷ প্ৰাচীন বলেই মনে হয় । গঙ্গামহাদেবের মন্দিরের কাছে করবেন । খোদাইং হি গে তার মধ্যে ট এখাট খাড়া প্রাচীরের বাবে মোট ৯টি গুহামন্দির দেখা যায় মত পাহাড়ের গায়ে দৈবক্ৰমে আমরা কয়েকটি অনাৰিত গুহা-গৃহের দ্বারের চিহ্ন দেখতে বড়, বাকি তিনটি ছোট ছোট । এই স্থানটি চারিধান্তে কিছুই বোঝা যায় না পেয়েছিলুম; কিন্তু সেট এমনি বলে পড়েচে যে তার পাহাড়ে ঘেরা আর মাঝখানে একটি বিস্তীৰ্ণ সমতল ভূমি দ্বিতীয় গুচি ও নি মধ্যে মানুহে প্ৰবেশলাভ করতে পারে না । গুহাটির ছাদটি তাতে অসভা ভীলের চাষবাস করে ব্যপৰ্ব্বতের মধ্যে পূৰ্ব্ব একটি সাধু বাস করতেন সম্পূৰ্ণ ধসে পড়ে ভিতরটা সমস্ত আচ্ছা করে ফেলেচে । সবচেয়ে অপকৃষ্ট নাম বালি-পাথরের পাহাড়ে এই গুহাগুলি খোদিত হয়েছিল। তাই এগুলি ভারতের অষ্টা স্থানে সেটা যে পূৰ্ব্বে কি ছিল তা এখন বোঝাই যায় না । মহাকালেশ্বরের মন্দিরটি একটি অতিক্ষুদ্ৰ পাথরের মন্দির । গুহাগৃহের চেয়ে অধিক পরিমাণে ধ্বংস হয়ে গেছে। প্ৰথম টিতে গোসা ঠাকুরে দি’ এটির গঠন ও কাৰুকাৰ্যা খুব সুন্দর ছিল—এখন একেবারে গুহাটি থেকে দ্বিতীয় গুহাটির বাবধান সাড়ে নয় শত ফুট তৈরী করা প্ৰতি : , তেন্তে গেছে। এখানে একটি বিরাটকায় হনুমানীৰ পুপ্তি তার ঠিক মাথানের সমস্ত পাহাড়টাই প্ৰায় চুৰ্ণবিচূৰ্ণ হয়ে দেখা যায় বটে, কি খ মা আর একটি ছোট বিষ্ণুমূন্তি আছে। স্থানটি চারিধারে ধ্বসে পড়ে গেছে। পূৰ্ব্বে তার মধ্যে গুহা প্ৰভৃতি কি চে উপদ্ধ। গুeা । পাহাড় দিয়ে ঘেরা, ছোট উচু উপতাকার মত এখানে ছিল কি না কিছুই বলা যায় না গুহাগুলি সব প্ৰায় নই করে ফাট স্বাভাবিক কণা আছে। লোকে সেটকে ‘পাতাল. উত্তর-পশ্চিম মুখী । এই নৱম বালি-পাথরের গুহা-প্ৰাসাদ করে যেখানে পেগান : দি মাখিয়ে ল’ ? গদা বলে অভিহিত করে থাকে । গ্ৰীৱে প্ৰকোণে গুলি উত্তর-পশ্চিম মুথে অবস্থিত হওয়ায় উত্তর-পশ্চিমের করে ফেলেন । । ১ানান। রণার জল কখনও একেবারে শুকিয়ে যায় না। তাই দুরন্ত ঝড়ে যে সমূহ অনিষ্টসাধন করেচে তা বেশ বোম্বা একটি ছোট * - কপিজা উচিরে পথ : সাধারণের বিশ্বাস যে সমুদ্ৰ শুকিয়ে গেলেও এখানকার গণ যায় । বাঘ-গুহার বিশেষত্ব এই যে অজস্তা প্ৰভৃতির মত বসে আছে তা ফোৰে-না-জাৰ এই জ্বলে স্নান করলে গঙ্গাঙ্গাদেৱ ভজন-পুণনের জয়ে স্বতন্ত্ৰ চৈত্য-মন্দির আর বসবাসের গ কা পুণা সঞ্চয় হয়। বিশেৰ বিশেৰ তিথিতে এখানে মান বিহার-গুহা নেই। এগুলিতে বিহার হার একেৰাৱে কীতি চাপা দিয়ে গানে করতে বহুদূর থেকে লোক আসে। বাঘে যাবার ভিতরে যেখানে একটি স্বতন্ত্ৰ ঘরে ধানী বুদ্ধদেবের বিরাট কি হা: ব’ :- একটি পথে একটি ধান-ক্ষেতের ধাৱে কতকগুলি সুগঠিত প্ৰতিমূৰ্ত্তি থাকে সেইখানে তার পরিবর্তে চৈত্যগুহার মত গেবল্লমাট ও তেল 'দুৰ বাঙ্গানো পাথরের মূৰ্ত্তি আছে ; সেগুলির মধ্যে একটি প্ৰকাণ্ড একটি প বৰ্ত্তমান । সেই গুহাতেই আশে পাশে জুড়ে দিয়ে গণেশে পণ , ই মাছেলে কোলে করে দাড়িয়ে। পাথরের এই মাতৃমুক্তিটি ছোট ছোট প্ৰকোটে ভিক্ষুদের বাসের উপযোগ ধর । নিষ্ট উপায় অলপন করে ... তাৰ ও ভঙ্গী ভাবি সুন্দর ফুটচে সমস্ত মুক্তিগুলিতেই ছাড়া ভিক্ষুদের বাসের জন্যে তৈরী একটি আলাদা গুহা চাখ ধুলে দিয়ে কিছু যোগ বা ১০০, ফলাকৌশলের নিদৰ্শন পাওয়া যায়। অনাবৃত স্থানে পড়ে আছে। এই সব গুহাগুলিকে স্থানীয় লোকে পঞ্চপাণ্ডবো । যায়। এই গুহার অভাবে : : গান ধান থাকা এগুলি ক্ৰমশই নষ্ট হয়ে যাচ্ছে । মুক্তিগুলি দেখে গুগল বলে, আর এই স্থানটিকে বিরাটপুরী বলে তাদের শিবের কতকগুলি খোদি । মুঠি খাচে, সে গুণ সংশয় ৮৭ বেশ বোঝা যায় যে সেগুলি কোনো প্ৰাচীন মন্দিরের অংশ ; ধারণা | ১ম গুহাকে “গৃহগুণা’, ২য়টকে “গোঁসাই দেও লোকে সে গুলিকে পঞ্চপাণ্ডব বলতে ট তবে সেগুলি বে-পাথরে খোদাই করা হয়েচে সে-বৃকম শক্ত অার ৪ৰ্থটিকে ‘রঙমহল’ নামে অভিহিত করে থাকে । হা হলধরট পােখর বাঘের পাহাড়ে নেই। বান্ধ-গুহার সঙ্গে এগুলির ১ম গুহাটি একটি ছোট ২৩, ১৪ ফুট গুহা, চারটি খাদে বিধারে ীেকালে মোট ২৭টি গাম : তার কোন সম্পৰ্ক ছিল বলে মনে হয় না। সঞ্চিত ছিল । খাদগুলির নীচের দিকটা চতুষ্কো, উপরে গান ১৭ ফুট বাবধানে পুনার চা বাম আছে ১—৭ বাও ৪৮১ তন প্রদেশে যে চৈতা প্ৰকোষ্ঠে স্তপ আছে ১ মিন একটি গাম-দণ্ড রে ডানদিকে তিনটি হাদিকে অব দ্বারের পাশে ও দুটি স্বতন্ত্ৰ তা । তিনটি বি ম৭োর মুক্তি বুদ্ধদেব ; গাড়িয়ে বা পচা করছেন শা পাশে ডিয়ে জন ভক্ত ৱে হাতে ২ ল, এইরুপ খোদিত মূৰ গুলিতে বুদ্ধদেবের মুখের ভাবট পূৰ্ণ বলে মনে হল ।. চৈত্য কোঠের প্ৰবেশগাব দেয়ালে দে দুষ্ট মুষ্টি দাড়িয়ে আছে সে গুটির সন্নিত আলা ওল পবিশানি , অ’ : মাথ এ কিীটের পাশে জ্যোতিচ্ছটা পাব খুটি মাথায় কিীট আলাবের বা মাতরণের পাবিপাটা নেই ; সাক্ষণ হা: পশ্ন, বামহাতে মঙ্গলঘট ধরে দাঁড়িয়ে আছে । কও বুদ্ধের কোন প্ৰধান ভক্তের ছবি বলেই অনুমান দ্বিতীয় গুহাটি ভিন্ন অপর কোন গুহায় বুদ্ধদেবের প্রতিমূৰ্ত্তি বড় একটা দেখা যায় না এ গুহাটিতে পূৰ্ব্বে কোন কোন স্থানে ছবি স্বাকা হয়েছিল বলে মনে হয়,