পাতা:প্রবাসী (সপ্তদশ ভাগ, প্রথম খণ্ড).pdf/৩১৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


৫৩৮ প্ৰবাসী—ভাদ্র, ১৩২৪ [ ১৭শ ভাগ, ১ম খণ্ড পারেন না ; অন্ত প্রদেশে যাহা হইতেছে, তাহার প্রতিবাদ মত অসঙ্গত ও ব্যৰ্থ চেষ্টা আর কি হইতে পারে : যি বা ভালোচনা বাংলােগবৰ্ণমেণ্ট বঙ্গে হইতে দিতে পাবেন না ; মাক্কাজের গবৰ্ণরের একটা কাজের প্রতিবাদ কয় কেহ সত্তা করিয়া প্ৰতিবাদাদি করিলে ঘৰৰ্ণমেণ্ট তাহাদেৱ কলিকাতার লোকদের পক্ষে অনধিকারচর্জা ও বেআই বিন্ধে আইন প্ৰয়োগ করিলেন , ইত্যাদি কাজ হয়, তাহা হইলে ইতিপূৰ্ব্বে ভারতবর্ষের সবদেশের যুক্ত সুরেন্দ্ৰনাথ বন্দোপাধা প্ৰমুখ কয়েক জন লোকদিগকে এবং বঙ্গে লোকদিগকে , কলিকাতা বাঙালী ঢাকায় গিয়া এ বিষয়ে বঙ্গের লাটের সহিত কথা লোকদিগকে, ইহা করিতে দেওয়া হইল কেন ? সময় হার পর গবৰ্ণমেণ্টের হুকুম অনেকটা পরিবস্থিত হইয়াছে । দেশের কাগজে, কলিকাতার কাগজে, এখনও প্রতি কিন্তু কাগজে দেখিতেছি যে লাটসাহেব মনে করেন সমালোচনা ও প্ৰতিবাদ চলিতেছে কেন ? যদি ইহা যে যে কানু কথন ( যেমন আলোচ্য হুকুম জারি করিবার আইনী হয়, তাহা হইলে ভারতবর্থের এবং বিশেষ করিয়া সময় । অল্প প্ৰদেশে সহকারী কাজের প্রতিবাদ ক বগের যে-সব লোক মুখে এবং যে-সব সপাষক ছাপা অবৈধ ও গৰ্হিত, সুতরাং তাহা করিতে দেওয়া যায় ন অক্ষরে এই কাজ করিয়াছে, ও করিতেছে, তাহাৰিয অতএব বিচার কতিয়া দেখা যা যে এক প্রদেশের শাসক আইন অনুসারে দণ্ডিত করিবার চেষ্টা কেন হয় নাই দের কাজের বিচার অন্ত প্রদেশের লোকদের করিবার ভারতবর্ষের সৰ্ব্বত্ৰ এখনও যাত চলিতেছে, বাংলা গৰমে অধিকার অাছে কি না । তাহা করিতে দিবেন না বলিয়াছিলেন, ইহার মানে কি? এক দেশের লোক বা রাজ। অল্প দেশের প্রতি অল্পায় ইহার পর তাহা হইলে ত কোন দিন গবৰ্ণর এমন হুকুম ব্যবহার করিলে তৃতীয় কোন দেশের লোক প্ৰতিকারের দিয়া ক্ষেণিতে পারেন যে এক জেলার ম্যাজিষ্ট্ৰেক্ট কো চেষ্টা করিতে পারেন, করেন, এবং তাহ করা কাঠবা হিত কাজ করিলে আর জেলার লোকে কিছু বতি ইহার বিস্তর দৃষ্টান্ত ইতিহাসে আছে। বৰ্তমান ইউরোপীয় পাব্লিবে না । । যুদ্ধেও ইহার দৃষ্টান্ত হিয়াছে । ইংরেজরা বলিতেছেন প্রদেশের সরকারী যে কাজ অভাৱ মনে হইয়াছে দ হাৱা বেলজিম ও সাধিয়ার স্বাধীনতার জয় লড়িতে অন্য সব প্রদেশে লোকেরা তাহার প্রতিবাদ বৰাৰ ছেন। এক দেশের রাজশক্তি বা হ্ৰাণা বা কোন রাজপুত্ব করিয়াছে । বঙ্গবিভাগের এবং অশ্বিনীকুমার দত্ত প্ৰভৃতি ঐ দেশের লোকদের প্রতি অন্যায় আচরণ কৰিলে অল্প নিৰ্ব্বাসনের প্রতিবাদ সমুদয় ভারতবর্থে হয় নাই দি ? দেশের লোকে যে তাহার প্রতিবাদ সমালোচনা ও সুতরাং বাংলার লাটের খেয়ালটি কখনই টঙ্কিত . প্ৰতিকার চেষ্টা করিতে পাবে, করেও এবং তাহা করা যদিই বা আজকার বাঙালী এইরুপ হুকুম মানিয় কৰ্ত্তব্য, তাহারও দৃষ্টা ইতিহাসে হিয়াছে মাঠোনের সন্ত গাড়িতে বান্ধী হই, কলাকার বাঙালী এই জীবিতকালে তুৰ্কেরা বুলগেরিয়ায় অত্যাচার করায় কলম্বে ক্ষালন নিশ্চয়ই কবিত ইংরেজরা তাহার খুব প্ৰতিবাদ করিয়াছিল ভারতবা কেন রাজা পাইতে পারে না, তা এইস্কপ ব্যবহার খুব স্বাভাবিক কেননা, পৃথিবীর একটা কারণ ভারত প্ৰবাসী অনেক ইংরেজ এবং কো সমুদয় মানুহ পরস্পরের প্রতিবেশীএবং পরস্পরের সহিত কোন শাসনকা পগান্ত এইক্সপ বলিয়াছেন, বে, ভা ী তা সূত্ৰে বন্ধ। এই বোধ যন্ত বাড়িবে, ততই, একজন করে ভিন্ন ভিন্ন প্রবেশের ভাষা তিয়, তথায় তিটি মানুষকে বা জাতিকে ঘা দিলে, আর-সকলের গায়ে জাতির বাস, একজন মাত্রাঙ্গী, বাঙালী, বা মাঠ, বা ব্যথা লাগিব একজন ইংরেজের চেয়ে কম বিদেশী নহে । ইতালি ভিন্ন-ভিন্ন দেশের লোকের মধ্যে যখন এপ সমবেদনার এবম্বিধ আপত্তি সরল অন্তঃকরণের আপত্তি হইবে ভাৰ হিয়াছে, তখন একই রাজশক্তিত্ব অধীন একই ইয়ার মানে এই হয়, যে, ভারতবর্থের ভিভিয় প্রদে দেশের ভিভিন্ন প্ৰদেশকে সম্পূৰ্ণ পৃথক করিতে চাওয়ার ও জাতির মধ্যে একদেশবােধ ও একজাতিত্ববোধ বাড়ি ৫ম সংখ্যা বিবিধ প্ৰসঙ্গ—প্ৰতিবাদের অধিকার দেশকে স্থাৱৰ-শাসন-ক্ষমতা দেওয়া যাইতে পারে। দিলে, তাহা তখনই চুড়ান্ত বলিয়া গৃহীত হয় না। আমাদের দেখা যাইতেছে, যে, রাজকণাচাৰীৱাই এই ঐক্যবোধ দেশেও কোন কোন মোকনা মুকে হইতে সদালা, বিরোধিতা করিতেছেন । বিপিনচন্দ্ৰ পাল বঙ্গে গেলা জজ, হাইকোটের জঞ্জ, প্ৰিতি কোঁপিলের জজ পৰ্য্যন্ত করিতে পারেন, কি তাহাকে দিী, পখাৰ বা পোঁহিতে পারে এবং পৌছে। মানুষ বিচারক-পদে আসীন বস্তৃতা করিতে যাইতে দেওয়া হইবে হইলেও তাহার প্রম হইতে পারে বলিয়া সভ্যদেশে এই ছাৰ টলক মহারাষ্ট্ৰে বৰুত করিতে পাবেন অাণীলের ব্যবস্থা আছে। বিচারবিভাগে যেমন, শাসন তাহাকে দিল্লীতে ক পঞ্চাবে যাইতে দেওয়া হইবে না। বিভাগেও, ততটা না হইলেও কতকটা এনী ৰেসাৰণ্ট মাত্রাঙ্গে বকৃত কহিতে পারেন, কিন্তু ব্যবস্থা আছে। মাজিষ্টেটু, কমিশনার, লাট, বড় লাট, কে মধা প্রদেশে বা বোম্বাই প্ৰেসিডেণীতে যাইতে ভারতসচিব, পালামেণ্ট, উপরে উপরে আছেন। কোন হইবে না এই-সব ৬হাদে কুমে নমুনা প্রদেশের কোন মোকদ্দমার প্ৰিতি কোঁপিলের বিচায়ে রে দুজন দেশসেবককে পরে পথে সম্প্ৰতি মাঞ্জাল স্নৰ হইয়াছে মনে হইলে তাহার ৮ মালোচনা সব তে সরকারী হমের বা তাড়াইঃ দেওয়া ইয়াts প্রদেশের বেসরকারী লোকেরা ও কাগজের সম্পাদকো পর বাংলার শাসনকৰ্তা বণিলেন, মাণিী লুমের করিতে পারে ও করে । মামাজের সফোলি বাদ বাংলায় হইতে দিবেন ন সুতরাং আমাদের গবৰ্ণরকে বঙ্গের সকেন্দিৰ গবৰ্ণর মানবজাতির মধ্যে লাভের বিরদ্ধে রাজকৰ্ম্মচারীদের আপত্তিটার মানে অভ্ৰান্ত সুতরাং সনালোচনার অতীত মনে করিয়াছিলেন কি এই বঁাড়াইতেছে না, ধে, ভারতবাসীরা এক ক না, বুঝিতে পারা যায় না। বিষয়টি গুচ্চতয় বলিয়া এবং আমরা পারতপক্ষে তাহাদিগকে এক হইতে হাসোর উল্লেক করিতেছে না নতুবা, বিধাতা দি বি না? আমাদের বুঝিবার ভুল হইয়া থাকিলে ভুলটা হাসেন, তাহা হইলে তাহার হাস্যের কারণ ইহাতে যথেষ্ট জানিতে চাই র সময় স্বাধীন মিত্ৰদেশসমূহের একের অধিবাসীরা সেই সব আইনই টিকে, যাহা বিধাতার বিধানে, দেশের গবৰ্ণমেণ্টের প্রতিকুল সমালোচনা করিতে ধরে, অনুযায়ী । শাসনকৰ্ত্তাদেরও সেই -সব হুকুমই টিকে না; কারণ তাতে উত্তর দেশে মুকের সম্ভাবনা যাহা ঐক্ষণশাম্বুমোদিত আইনের অনুধাৱী । শাসনকৰ্ত্তারা পারে । যেমন আমরা এখন জাপান গবৰ্ণমেণ্টের নিজেদের ম, আপনাদের সুৰিণা, বা ক্ষমতাৰ দেশা কাজের সমালোচনা করিতে পাই না কিন্তু বাংলা বশতঃ কোন একটা আইন বা নিৱম রিয়া তদনুযায়ী যোত্ৰাল ত আলাদা-আলাদা স্বাধীন মিত্ৰ দেশ নয় হুকুম করিলেই, তাহা বৈধ বা আইনসঙ্গত হইল, বা মানুষ সকল সভাদেশেই দেখা যায়, যে, কোন রাজকৰ্ম্মচারী তাহা মানিতে ৰাধা, একপ মনে করিবার কোন কারণ কুম দিলে, সরকারী কোন বিচারক একটা রায় নাই । এ-বম আইন ও কে না, এরকম হুকুম ও ষ্টকে যাদের মধ্যে যুক্ত কণ্ডিক ৫ মতী গ্ৰী বসাক্টের নিষ্ট না কেপ হুকুম কারিয়া, মানুষের অস্তুর-নিহিত অজ্ঞায়ের কাজে কাজ কবিতেন ! তিনি বোম্বাই ফিরিা অনা প্ৰতিবাদ প্ৰবৃতি, অবৈধ-কুম অমান্ত কৱিৰায় প্রবৃত্তি জায়গায় বোম্বাই হইতে দুইজন দেশসক মাজে জাগাইয়া তোলা শাসকদের পক্ষে বুদ্ধিমানের কাজ নয় । বে যে, যদি থাকা হইতে হেদিকে তাই দিবার সকল দেশের গবৰ্ণমেণ্ট দেশবাসীদের মত সাক্ষাৎভাবে লইয়া হকুৰ হয়, তাহা হইলে হায়া সে হুকুম মানিবেন না, প্ৰতিষ্ঠিত হয় নাই বটে, কিন্তু প্ৰত্যেক দেশের গবৰ্গদেষ্ট ল যাইবেন । সভাপতি মিঃ হৰি তোক বোম্বাই দেশবাদী গায়গা বোম্বাই ছজন বেিয় প্ৰধানতঃ সৈন্ত বল বা তপ কোন বলের উপর প্রতিষ্ঠিত গাইবেন, এবং হার নিত্বের স্বাধীনতা লোপের অৰ্থাৎ নাহে ; দেশবাসীদের সম্মতি, অন্ততঃ পক্ষে অসম্মতির অভাব, হুকুম হইলে তিনি হা মানিবেন না ৰাদাস দ্বারকাদাসও তাঁহাই, বলেন প্ৰত্যেক গবৰ্ণমেণ্টের ভিত্তি এমন শক্তিশালী গবৰ্ণ