পাতা:প্রবাসী (সপ্তদশ ভাগ, প্রথম খণ্ড).pdf/৩৫৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


প্ৰবাসী— আশ্বিন, ১৩২৪ [ ১৭শ ভাগ, ১ম খণ্ড ৬ষ্ঠ সংখ্যা] ইতিহাসের ধারা কথায় আলোচনা করা সম্ভব নয়। ইউরোপে এখন বে কারণ আমাদের দেশ ও সনাতন বা প্ৰাচীন পথ ছাড়িয়া জাতিভেদে ইউরোপীয় সভ্যতার বৈচিত্ৰ্য। এই , সুইডেন, ডেনমাৰ্ক, ও আইসল্যাণ্ডে বৈচিহ্যের হলাওনরওয়ে স্নাঙ্ক যুদ্ধ চলিতেছে, তাহার ফলে পৃথিবীর তাবৎ জাতির আধুনিকতার পথে জাপান প্ৰভৃতির গায় চলিতে উপাতা বেিশষত্ব কি তাহ৷ দু”কথায় বলা কঠিন । তবে বৈচিত্ৰ আছে, সত্যতা ইয়ার প্রশাখা । বীপ, সুমাত্ৰা প্ৰভৃতি ভিত্তি পৰ্য্যন্ত কঁাপিয়া উঠিতেছে। এই ভৱানক সমর ছাড়িয়া বিজ্ঞানের উন্নতির সঙ্গে সঙ্গে মানুষে বৈদ্যাতিক, শক্তিকে বা তাহা উপলদ্ধি করা যায় আধুনিক ইউরোপীয় সভ্য স্থানের অধিবাসীগণের উপর হাণ্ডেৱ প্ৰভাব-পড়িতে। দিলে, ইউরোপের অৰ্দ্ধাচীন ইতিহাসে এমন কোনও ঘটনা ধরিয়া তাহাকে. কাজে জুড়িয়া | দিয়াছে, মানুষ মাছের ক্লাব তার শাখা এইগুলি— ই সভ্যতা মুখ্যতঃ জান উচ, জাতির চিন্তা ও সাহিতা দেখা যার না যাহাকে প্ৰাচীন যুগের বিরাট ধ্যাপারগুলির জলের ভিতর ও পাখীর মত হাওয়ায় চলিতে পারিয়াছে । অ্যাঙ্গো-স্বাক্সন বা ইংরেজী সভ্যতা—ইংরেজী এবং শিল্পের উপর প্রতিষ্ঠিত । সহিত তুলিত কয়া যায়। ইউরোপের বিশিষ্টতা দাগ আরও কত কি ব্যাপার ঘাহা অাগে কল্পনাও আনা যাইত ভাষা ও ইংরেজ-জাতির ভাবসম্পদ ও চিন্তার উপর প্রতি মুভি সভ্যতা ; ইহার দুই প্ৰশাখা- ১] পুৰ্ব্ব গিার মত বিশেষ কিছু ঘটে নাই না এখন সম্ভবপর হইয়া দাড়াইতেছে , ইত্যার মূল আধ্য িটউটন জাতির জাতীয়তা, তাহার ভাগের—, ও বুলগার সভ্যতা [২] সলিয়ান পশ্চিমে ১৯ শতাৰ্থীতে বিজ্ঞানের উন্নতির পরাকাষ্ঠী হইয়াছে । ইউরোপের পানী, ফরাসী প্ৰভৃতি জাতির মধ্যে উপর ফরাসী ও ব্রিটিশ-কেন্‌টিক জাতির ছাপ পড়িয়াছে। পোল ও চে, বা বোহেমিয়ান সভ্যতা । ক্লাব সন্ধিয়ান ও ১৯শ শতাৰ্থীতে ভাৱিন্‌ (Darwin) প্ৰমুখ পণ্ডিতগণ কৰ্ত্তক পার্থক্য যথেষ্ট থাকিলেও ইহাৱা এই তই ও অন্তৰ্দাহ এই সভ্যতা আমেরিকায় (কানাডা ও নাইটেড ষ্টেট-এ) বুলগােৱ সভ্যতার মূল আধ্য সুভ জাতি, ও অনেক অলে অভিব্যক্তি-বাদ (Theory of Evolution)এর বিষয়ে যে শাখা, একই সাতার ভিন্ন ভিন্ন ৰূপ । এই বহিৰ্জগতে প্ৰস্বত হইয়াছে । আমেরিকায় নানা ভাবের নানা তাতার-জাতি ; তাহার উপর মধ্য-যুগের গ্ৰীসেৱ গবেষণা হয়, তাহা আধুনিক চিন্তার ধরণ একেবারে বদলাইয়া সভ্যতার জয় অবশ্যম্ভাবী—কারণ বাহ বিষয়ে সৰ্ব্বত্ৰেই এই বাতির সংমিশ্ৰণ হেতু ইংরেজী সন্তাতা একটু স্বতন্ত্ৰ জৰ্ম্মানী, প্ৰভাৰ । পোল ও চে দিয়াছে। বাম্পের ফাৰ্য্যকারিতা লােকে এই শতাঙ্গীতে সভ্যতাৰ অনুকরণ চলিতেছে। যেখানেই রেলগাড়িাইয়াছে। অষ্ট্ৰেলিয়ায় ও দক্ষিণ আফ্ৰিকায় এই সভ্যতাই জাতির মধ্যে তাতার উপাদানের অভাব, তাহােয় স্থানে বিতে পারে ; ইহার ফলে রেল-গাড়ী ও ঈমার এবং কল টেলিগ্ৰাফ, কল-কারখানা আসিতেছে, সেইখানেই এই চিতি লাভ করিয়াছে ; ইউরোপের সভ্যতার সহিত ব্ৰাহ্ম, ইটালী ৪ জামীর প্রভাব। উত্তর এশিয়ার কারখানা । কল-কারখানা এবং বাণিজ্যের বৃদ্ধির সঙ্গে সভ্যতায় লয়—অন্ততঃ বাহা বিষয়ে । চীন, ভারত, ব্লগ কারতের পরিচয় এই ইংরেজী সভ্যতার ভিতর দিয়া, মধ্য এশিয়ার সমগ্ৰ জাতি কৃষ্ণৰ সভ্যতার প্রভাবস্ত । - সঙ্গে শহয়ে বেশী লোকের আগমন, এবং প্রামে চাষবাসের প্রভৃতি দেশের, প্রাচীন জীবন-ধারণ প্ৰণালী এই সভ্যতার এবং জাম, চীন ও জাপান অনেকটা ভাগ্নতের মত দেশের লিখুনানীয় ও লেট্‌ জাতির সভ্যতাকে সুভাস ওঁ হাতে কবিরাশিচত্ৰবা প্ৰস্তুতের ব্লাস থটয়াছে ; জীবনের সংস্পৰ্শে আসিয়া বদলাইয়া যাইতেছে । দেখিয়া শুনিয়া বোধ ইংরেজীৱই ছাপ লইয়াছে। বলা যায় মোত একেবারে অন্য রকম হইয়া গিয়াছে—জীবন ব্যাপার হয় যে জগতের বিষাং বাহুসভ্যতা একই ছাঁচে ঢালা লাটিন বা রোমাক সভ্যতা :—াল, স্পেন, [ ১.] হঙ্গেরীয় বা মাগার, এবং ফিনল্যাণ্ডের কি বিশেষ ক্ষপে জটিল হইয়া পড়িয়াছে, মানুষের জীবনে নানা হইতে চলি ; সেটি ইউরোপের ছাঁচ। আধুনিক ধৰ্ম্ম ও ল ল, ইটালী ও মানিয়ার লোকেরা লাটিন-ভাৰী জাতির সভ্যতা মূলে তাতার জাতির সহিত সম্পূক্ত হইলে অশান্তি আসিয়া পড়িয়াছে । অনেক লোক একসঙ্গে মক্কী চিন্তা জগতে এখন কোনও দেশ-বিশেষের বা কোনও জাতির বংশধর ; ইহাদের ভাষা লাটিন ভাষা হইতে উৎপন্ন ; এখন সম্পূৰ্ণরুপে ইউরোপীয়ভাবে অনুপ্ৰাণিত। স্নাল ও করায় (Industrialism) অৰ্থাৎ কল কারখানার রোজ বিশেষ ধৰ্ম্মর অমু প্ৰতাপ নাই ; তবে দেখা যায়, ঠান এই কয় জাতির সাহিত্যের ও চিন্তার একটা আম্বিক জগানীৱ প্ৰভাৰ মােগারদের উপর, এবং সুইডেনের প্রতাৰ মীয় প্রাধান্তে উব । ধনীলোকে কলঙ্কারখানা তুলিয়া ধৰ্ম্মেয় প্ৰতাপ ইউরোপে কমিয়া আদিতেছে। কোন ধৰ্ম্ম যোগ অাছে। এই সভ্যতার মূল হইতেছে আদি রোমান ফিনদের উপর পড়িয়াছে । জম খাটাই অনেক বেশ করিয়া শিল্পজাত প্ৰস্তুত করাইয়া বা কোন দেশের চিন্তা ভবিষ্যৎ যুগের চিন্তা বা ধয়ে থাত, ইটালীর নানা জাতি, স্নাদের ও স্পেনের কেলটিক ২ আধুনিক গ্ৰীক সন্তাতা— ইহার মূল প্ৰাচীৰ যেন লাভ করিবার জন্ত ব্যস্ত ; িকন্তু ইউরোেপর মক্ক লোকে মধ্যে উচ্চ আসন গ্ৰহণ কৰিবে তাহ বলা যায় না, কিন্তু কি, এবং কটা উট জাতির জাতীয়তা ও ভাব । শ্ৰীক, স্নাল ও কতকটা আক্ৰানী ও কী বাতি, আল লেখাপড়া শিখিতেছে, তাহাদের চোখ ফুটিয়াছে, তাহাদের অনেক চিন্তাশীল লোকের মত এই যে ভারতের চিন্তা আয়াে-কাক্সনটিউটনীয় ও স্নাত্ব-সভ্যতা অপেক্ষা ইহা কাল পশ্চিম ইউরোপের প্রভাবে ইহা একেৰাৱে নুতনাপ বঞ্চিত কবিয়া বা অন্তাধা মুলা দিয়া তাহাদের পরিশ্রমের ধন ও ধৰ্ম্মীবন এই নবীন সময়ে অনেকটা স্থান অধিকার | এই অশুমুখী, একটু সুহৃদশী। এই সভ্যতার চাপ ধারণ করিয়াছে যে অৰ্থশালী লোকের ভোগে আসিবে, ইহা সহিতে তাহারা করিবে । ং ইউরোপের উপর পড়িয়াছে ; আধুনিক যুগে যের উপরে লেখা কর শাবার মধ্যে ইংলণ্ড, অ্যামেরিকা, নারাজ । ইহাৱ কলে অৰ্থ ও শ্ৰম (Capital ও Labour) দেখা যাইতেছে যে এখন জগতে আধুনিক অৰ্থাৎ পর িবশেষৰূপে ইথায়ই প্রভাব । কানাডা ও নাইটেড- ফ্ৰান্স, ইটালী এবং জৰ্ম্মানী ও হাণ্ডের সভ্যতার প্রভাৰই বাদ দিলে এই সভ্যতা সমগ্ৰ আমেরিকা-খণ্ডে আজকাল জগতে সৰ্ব্বাপেক্ষা কাৰ্য্যকার । থয়তায় ষ্টিল বিষয় হইয়া দাড়াইয়াছে। ইহার সমাধানের তত্ব এক হইলেও ইহার শাখাগুলিতে নানা পাৰ্থক্য আছে ; স্পেনীয় ও পোটুীস মাতি কতৃক বিস্তুত হইয়াছে । এইজ ইউরোপীয় সভ্যতা ভিন্ন জগতে সভ্যতার আর যে কয় অন্ত, সমাজের পুনরুজ্জীবনের জন্য ইউরোপের নানা দেশে সেই সকল পাৰ্থক্যের কারণে অনেক সময়ে বিরোদ দেখা নাজা ও নাইটেড ষ্টেট বাদ সমস্ত আমেরিকাকে ধাৱা বিদ্যমান আছে তাহা এই —- সম্পত্তিসাম্য (socialism) প্ৰতি নানা পয়া উয়াবনের ও যায়। ইউরোপীয় সভ্যতা, সমষ্টি িহসাবে এক, ব্যষ্টি হিসাবে গান আমেরিকা’ বলে। আলজিয়া, মোরোকো, জিপোলী [ ] ‘ইসলামীয় সভ্যতা প্ৰচলনের চেষ্টা হইতেছে । আধুনিক সমাজে অার একটি অনেক এই সভ্যতার সূত্রগুলিও তেমনি অনেক সিা ও তুৰ্কীদেশে, এবং টকি, আনাম ও কাম্বোজে । আরব সভ্যতা—মোরোকো হইতে পারস্য পৰ্য্যন্ত, বিসরে অন্তবিদৰ চলিতেছে, সেটি খ্ৰীজাতির অধিকার লইয়া। কতকগুলি "সুত্ৰ প্ৰাচীন জাতি হইতে প্ৰাপ্ত ; কতকগুলি ম্যাগী সভ্যতারই প্ৰভাব । ও দক্ষিণ এশিয়া-মাইনর হইতে সমগ্ৰ আরব-দেশ ও মধ্য এই অবস্থা আমাদের দেশে এখনও আসে নাই, কিন্তু ভালর আধুনিক জাতি-কক আঙ্গত উপাদান এই বিভিন্ন গ। টিউটনীয় সভ্যতা — ইহা বঁটা টিউটনীয় জিনিস, আফ্ৰিকা পৰ্য্যন্ত যেখানে মুসলমান ধৰ্ম্ম চলিত অাছে জন্তই হউক বা মন্দ্র জলই হউক আসার দেৱী নাই স্বত্তের বা উপাদানের আধিক্য বা তারতম্য লইয়াই দে য়ে ভাবের ছাপ ইহার উপর কমই পুড়িয়াছে। গান, সেখানেই ইহার প্রভাব ; তবে শুনা যায় েয তুর্কীদেশে এ বি ইউগ সালে এই ব্যাপােগট একিট ইউৰােপী সভ্যতা দরকার। কিন্তু এই সভা