পাতা:প্রবাসী (সপ্তদশ ভাগ, প্রথম খণ্ড).pdf/৩৮৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


৬২৪ । সাইলেরিয়ার তুতে ও প্ৰবাসী—অশ্বিন, ১৩২৪ ক'কেই পোশাক বে কি কম লী পাইতে পঢ়ে করে তা হানিবে হে মেরিকা হাৰ্ভাৰ্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের পাশা গ্রাটেকে প্রশ্ন করা তাহার ফলে এইরণ ক্ষমা ৷ ও পিক্ষদৰ্শন হল : সুন্নী না হইণে ও তি নাই পরিং বিবে কোনো লোককে এন.াবে অৰ্থনা ও বিনোদন করিতে পালিকে যাহাতে :- লোক কিমাত্র অধস্ত না যোগ করে সে খুব চালো, ধুনী হইঃ- শাক ঢাকি থেকে অয়ন্ত শরিয়া। পাক-প্ৰণালীর বইগানাই যেন হা সাম্ৰ পাকে সে নাচগান স্থার ো লায় । খুয়াগিণী ও সম । ইলে স দার-চিন্ত, দী, কেশী, নি:স থ, সন্ধী. প্ৰধ ও সনা সনের লোক হইলে ও ই বং ইলে ণে মণিতি, পাকিবে এবং তই স্থিত হইবে না বে-গানের কাছেও না হইয়৷ প্ৰাৰ্থনা করিতে তাহা কুণ্ঠ বোধ হ মিশৌরী বিশ্ববিদ্যালয়ে ছেলেমেয়ে কম্বে প: সমাজত ( sociolºgy ) শেণীর ছাত্রদেরও এইপ প্ৰাণ ৷ হই ছিল । সেখানকার যুবকের। তাহদের গৃহিণীঃ ঋণে মতিগতি বা সৎ ৭।কিলেই হরিয়া লই -1 ন। | অ ন [ ১৭শ ভাগ, ১ম খণ্ড নাম মং হ’া ও sº tº প্ৰাচীন করে গড় ও অাখ র, তা ধী, প্ৰধান হিক স্নানা উচিত সহিত যোগ বাণিতে বসাটা প্ৰাচীন কালের উক্তি হাতীত অল্প প্রমাণ নাই দেখি, এখন বঙ্গ ও ওড়িয়া যাহাকে গড় বলে , বিহার হইতে পাঞ্জাব ও মহারাষ্ট্ৰদে নে যে পান সংস্কৃত মুলক ভাষা প্ৰতি আহে, সে সে গানে তাকে স্থিত। লাঙ্গংলায় ভিড় কোন প্ৰয়োগ ঠিক ? কন্তু, ঠিক ঠক নিৰ্ণয় করিতে হইলে একটা প্ৰমাণ প্ৰাণী lard : তৰ্ক উঠিলে ক তা-ঠিকেও তই উঠিলে সুবিধ। এই, গড় সংস্কৃত হইতে আসিয়াই, এবং সংস্কৃত গায় পরে ড়ে লক্ষণ ও কশিত : আয়ু: | ণের মা ; অতএব প্ৰম, করিতে হইতেছে প্রায় ঢাশিত বৎসর পূলে ভাব-প্ৰকাশ গাদির লগ ১ ; ইক্ষুস পক্ষ হইলে যে কঞ্চিং গাঢ় ( * ] * . . ইক্ষাঃ (২) ইক্ষুরস সম্যক পণ হইলে যে বিঞ্চিং ক্ৰান্বিত বন solid mixed | a পাওয়া স্না, তাহা ওী হা হইতে মল মন মান করিতে পারে বলিয়া ৬ষ্ঠ সংখ্যা প্ৰাচীন কালের গড় ও মাখ ৬২৫ কিঞ্চি দ্ৰৱান্বিত: । মন্দং যৎ সুন্দতে তস্মাং তন্মংওঁী প্ৰকাশে ‘কাশিত’ অৰ্থাৎ কোলা গল্পে পরেই মৎী দিগন্ততে। ] (৩) ইক্ষুরস সম্যক পক্ষ হইয়া লোষ্ট্ৰৰং দৃঢ় আসিয়াছে। এই পৰ্যায় (order) হইতেও বিতেছি, a solid lump ) হইয়া গেলে “গ”। কিন্তু গোঁড় মৎস্তওঁী অৰ্থে মিছয়ী হইতে পারে না। দেশে মৎস্তওঁীকে গড় বলে। [ ইগোরসো বঃ সম্পকো আচ্ছা, মংওঁী বাঙ্গালার গড় হইতে পায়ে কি? স্নায়তে লোষ্ট্ৰৱাদ দৃঢ়ঃ । স গুডো গোঁডদেশে তু মৎস্তণ্ডেৱ পূবে ইহার প্রমাণ দেওয়া গিয়াছে, সংস্কৃতে যাহাকে জো মত: ) ( $ ) “থঙ”। ( t ) শ্বেতবৰ্ণ বালুকার, মৎস্যওঁী বলিত আমরা তাছাকে ‘গড়’ বলি। অতএব তুল্য খণ্ডকে শৰ্করা” বলে ইহার নাম সিতা এখন প্ৰশ্ন, সংস্কৃতের গড় কি দ্ৰব্য ইহার উত্তর দিধায় [ খণ্ড, সিকতাপং শ্বেতং শৰ্করা সিতা । ] এই পাঁচ পুবে একটা সংজ্ঞা করিলে ভাল হয় ব্যতীত “পুপসিতা” ও “সিতোপলা? এই দুই নাম আছে। গড়, ‘বাঙ্গালার গড় না বলিয়া সংস্কৃতের গাফে - ভাৱ প্ৰকাশ তাহার সময়ের চলিত নামও দিয়া দিয়াছেন। এবং বাঙ্গালার গড়কে গড় বলা যাইবে । খ, ফাণিত-ছোৱা, মৎস্তী—থও-রা, গুড় — গুড়, খণ্ড গড় আর কিছু নহে, ভিড়া বা ভেলী ভাৰপ্ৰকাশে —খাড়, পুপসিতা—গ-শৰ্করা, সিতোপলা-মিশ্ৰী। প্ৰথম গুডের যে লক্ষণ আছে, তারা া তে পাই। গ পরিচ্ছেদে দেখা গিয়াছে, আস্থাপি পশ্চিম প্রদেশে মৎস্যওঁীকে লোষ্টবং দৃঢ়-মাটির ঢেলার মতন তাল (like a had বা বলে। কিন্তু ইহার ঠিক নাম খণ্ড-ব্লাৱ-অৰ্থাৎ খণ্ড lump of clay) । ঢেলায় যেমন কেলাস থাকে ; সহিত দ্ৰব—াড়-মাৎ । একটা উক্তি প্ৰণিধানযোগ্য। কিংবা অস্পষ্ট থাকে, ভিড়াতেও তাই। অমঙ্গকোষে ভােৱ প্ৰকাশ লিথিয়াছেন, "কিন্তু, গোঁড়দেশে নংসাওঁীকে গড় অৰ্থে গোল। মরাঠীতে গডকে গিল’ বলে । যেমন গড় বলে।” ৰন্ততঃ ইহা পড়িয়াই বঙ্গের ও বাহিরের গড় ‘তাল’ হইতে তালী-তাড়ী, তেমন গম্ভ বাহ, গলে তাহা । নামের দ্রব্য যে এক নহে, তাহা বুঝিতে পারি। প্ৰাচীন কালে গড তালের মতন হইত। অ্যাপি বঙ্গদেশের অনেকে মংজ্ঞাওঁীকে মিছী মনে করিয়াছেন। পশ্চিমাঞ্চলে একমণ ওজনেরও বড় বড় ভাল হয়। সেসব শঙ্কৰকল্পদ্রমে এবং অন্ততঃ চারিখানি কবিরাজী পুস্তকের নামে খ্যাত। আসাম, বঙ্গ ও ওড়িষ্যা ছাড়া ভারতের ৰাঙ্গাণা অনুবাদে এই ভুল করা হইয়াছে পণ্ডিত বিধু অত্ৰ সংস্কৃত - শব্দে অৰ্থার হয় নাই, অৰ্থ সংস্কৃতের শেখর শাস্ত্ৰী মহাশয় আনায় জানাইথাছেন, “মৎস্তী" শব্দ তুল্য আছে। পশ্চিমের গড়ই গড় স্বীকার করিলে গভর পালিভাষায় “মগ্রী হইয়াছিল । মঙ্কওঁী—মছড়ী— আয়ুবেদোক্ত লক্ষণ, গণ, বিশেষতঃ পুরাতন গুডের স্থ, মিছী শব্দ না হইতে পারে এমন নয় । পাণিভাষার গোঁ-জীমদ্য, এবং মধু অভাবে গড ধিবার বিধি, বুদ্ধিতে মঙ্গ-ওঁী না জানিলেও --- ঔী হইতে মি--রী, পারা যায়। ভাবপ্ৰকাশ হইতে জানিতেছি, অন্ততঃ চারি ং মনে হয় শব্দ-সাদৃশ্য ভ্ৰমের কারণ হইয়াছে শত বৎসর হইতে বঙ্গে - শব্দে মৎস্তী বুঝাইতেছে আরও এক কারণ থাকিতে পারে। মিছা করিতে ভাবপ্ৰকাশের লিখিত অপর দ্রব্য বুবিতে কষ্ট নাই। গেলে মাং ৱাইয়া ফেলিতে হয় এমন কি মিছয়ী প্ৰথমে “কাণিত। ইহার অপর নাম ‘ফাণি । ধাৰ্থ, ও ভাল গড় প্রায় এক ৷ উতয়ের বর্ণ এক ; কেলাস সঞ্চালন, অৰ্থাৎ ‘ফাণিত’ দ্রব (liquid ) । ইক্ষুয়স (crystal) এক, প্ৰভেদ কেবল বড় ও ছোট । তথাপি পাকে গাঢ় হইতে ‘ফাণিত’। তাহাতে কেলাস থাকে না, মৎস্যওঁী মিহুরী নহে। ইহা বা ‘গড়’, হিঃ ‘ব্লাৱ’ বা থাকিলেও অল্প । কিন্তু অন্য এক উপায়েও দ্রবগড় পাওয়া ‘াব’। কারণ শাস্ত্ৰে আছে, মংওঁী দ্রবান্বিত, এবং লপাকে ওযোগ্য সাক্ষ্মভুতে যা গডিকা জাতে সামৰসী। মৰং তাহা হইতে মাৎ ঝরিতে পারে। মিছী দ্রবান্বিত নহে, গুন্দন্তে । ” তিনি বাঙ্গালী হইয়াও ঠিক লিখিয়াছেন, যাহা হইতে খাড় ঘন ; তাহা হইতে থাৎ বিতে পারে না। ভাৰ হইতে পারে, যাহা হইতে মঙ্গ—মধুৰ হাৰ করিতে পারে, তাহা

  • আমাকোসে রঘুনাথ চক্ৰবৰ্ত্তীর টীকায় আছে, ইক্ষু বিশেষত মণী । মৎস্তীতে বস্ত গড়িকা—ছোট ছোট কেলাসাকে।

৭৯—১