পাতা:প্রবাসী (সপ্তদশ ভাগ, প্রথম খণ্ড).pdf/৪৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


পারবেন বাণী বাজালে তোমার লোকেরা এসে দেখবে রাগীবাবুর স্ত্রী আসামীকে দুই হাত দিয়ে আগলে ছে তারা আমার গায়ে হাত না দিয়ে এর গায়ে হাত কিছুতেই পারবে না। তুমি যদি তোমার সে জগমানদেখতে চাও বাজাও তবে তোমার বাণী! দ্বারোগ বিব্রত হইয়া বলিল-আঃ রাজু! কী ছেলেকর? খুনী মামলা গভমেন্ট করিয়ী। গভৰ্মেট তোমার আবদার শুনবে না। সে বড় শক্ত ঠাই! : একবার পাশের ঘরে দাও, জমাদার একে নিয়ে থানার চলে যাক, তারপর আমি তোমার নিয়ে যাব। রাজবালা স্বামীর কথার উত্তর দিল না বা তাহার দিকে 5. তাকাইলও না সে নত হইরা ভূমিতে পতিত পীড়িত লোকটিকে দুই হাতে ধরিয়া মমতা-ভরা স্বরে বলিল-চল, তুমি বিছানায় শোবে। সে একবার রাজবালার মুখের দিকে, একবার তাহার ীির মুখের পানে চাহিল। রাজবালা আবার বলিল-ওঠ । দরোগ আসামীর দৃষ্টিতে দ্বিধা দেখিয়া আনন্দিত হইয়া দল-বীরেনবাবু, আপনি রাজুকে বুঝিয়ে বলুন। স্বরেঞ্জের মুখে ক্লান্ত হাসি ফুটয়া উঠিল, সে কি বলিতে ইতেছিল। রাজবালা তাহকে কিছু বলিবার অবসর না দ্বার্তাহারবাম হাত লইয়া আপনার গ্রীবার উপর রাখিল ই দুই হাতে তাহাকে ধরিয়া দাড় করাই স্বামীকে জাদেশ করিল-আলো দেখাওঁ । দারোগ অবাক হইয়া মন্ত্রমুগ্ধের ন্যায় আলো দেখাইয়া গৈ আগে চলিল। প্রথম ঘরে আসিয়া রাজবালা স্ত্রীরকে বিছানা শোৱাইয়া দিল এবং দেশলাই জালির পী জাগিল তারপর একটা গঁড় হইতে একটা খুরিতে একটু টালির বীরেন্থকে খাওয়াই তাকে বাতাল দাগে অবাক ইয়া কিছুক্ষ স্ত্রীর কাও দেখিল। পরে ডাকিল-রাজু। --- W. - - 鑫* -বৈশাখ, ১৩২৪ [ ১৭শ ভাগ, ১ম খণ্ড সংখ্যা | দুই তার : వ్రై కపోల్క్స్ వ్రైట్స్తోత్య్ర ছে। জমাদার কুঠির বাইরে হাজির আছে মা রাজবালামুখ তুলিঙ্গ দিকে চাহিল । asl༦མ་ যেতে বছ সেটা আমাদের BB BBS BB BBSB BBBBB BB B BBBB BBBB tu BB BBBB BB BB BB BB BBBS BBBB BB BBS BB BB BB BBB কাছে সে জায়গা থানা-হাজত। আমি দেখতে পারব না। তাই থোকার দিবি তই তুমি ওকে বাচাবে কি করে ? জানে।” - - তাহার এই অসাময়িক হার্সি ও ব্যঙ্গ দেখিয়া দরোগার তোমায়। - - সহজ ভাবেই বলিল-তুমি বাণী বাজাতে “তোমার স্ত্রীকে বিপদে ফেলা না-ফেলা ততোমার । জলিয়৷ উঠিল। তথাপি সে ক্রোধ দমন করিয়াই — ন না, আমি ছেলের দিব্যি করতে পারব না। রাজবাল্লা ভাবেই লণু-আচ্ছ, আমি একে আসামীর দল থেকে খারিজ যে দিব্য বল করছি। হাত। তুমি একে আসামী না করলেই ত সকল গোল মিটে যায়-আরো যখন জানো যে ইনি নির্দোষ।” - “জানলেই বা কি করছি বল ? জমিদার গুণময়-বাবু এর ওপর জাতক্রোধ ; নায়েব-মশায় বলছে শশী জেলে এরই প্ররোচনায় তার কান কেটে ছেড়ে দিয়েছে একে না। গেরেপ্তার করলে তারা আমার শক্র হবে ; শেলে আমার । চাকরিটি যাবে।” - o রাজবালা দৃপ্তভাবে বলিয়া উঠিল—য়ে চাকরীতে। নির্দোকে বিপদে ফেলতে হয় এমন চাকরী যাওয়াই। ভালো ! - দারোগ বলিল -নিৰ্দোষ যদি তবে তার আর ভয় কি ? বিচারে খালাস পেয়ে যাবে। - দেবে: রাজবালার সুন্দর চোখ দুটি উৎসুক আগ্রহে উজ্জল স্থা উঠিল, সে স্বামীকে বলিল—তুমি দারোগ, তোমার বিশ্বাস কি ? দারোগী মৰ্ম্মাহত হই। বলিল—দারোগাকে তার ক্তি বিশ্বাস করতে পারে না রাজু ? তুমি আমাকে অবিশ্বাস , কিন্তু তুমি আমায় ভাড়িয়ে এই বিজন বনে এসে আমি ত তার জন্তে তোমাক্স অবিশ্বাস করিনি। রাজবালার মনে পড়িল স্বামীর ক্রুদ্ধ অবিশ্বাসের নিৰ্ম্মম স্থা—”এরপর যদি তোমায় আমি ঘরে ঠাই না দিই?” কিন্তু সে তাহার ইঙ্গিতমাত্র না করিয়া মৃদু হাসিয়া বলিল— রাজবালা স্বামীর দিকে পিছন ফিরিঙ্গ বসিয়া ব: বাতাস করিতে লাগিল। ঘর নিস্তব্ধ। ক্ষণেক পরে একদল শেয়াল কেজি করিয়া উঠিল একটা পেচা চাচা করিতে-করিতে কুঠির উপর দিয়া উড়িয়া গেল ; কয়েকটা ৱিকি কৰি । অন্ধকার বেনচিরিয়৷ কেলিন্তে লাগিল। কাতর স্বরে বীরেন্দ্র বলিয়া উঠিল-স্থ - আমি স্বেচ্ছায় পালিয়ে আসিনি; আমি স্থাপনের দীক্ষা মধ্যে পড়ে জখম হয়ে পড়েছিলাম, জেলেরা আমার না শুনে আমাকে এপানে এনে ফেলেছে। জ্ঞান্ত্রি बैंकु উঠে চলতে পারলেই আপনি গিয়ে ধরা দিতাম। ভাষা 憩 রাজবালা ব্যঙ্গ করিয়া বলিল - হ্যা, যেমন খালাস । " সহধৰ্ম্মিণী হলেও আমি ত আর জন্যে আপনাদের স্বামীক্ষ্মীর মধ্যে মনোমলিঙ্ক ੇ - - o l - - পেয়েছিলেন সেবার ! o দারোগা স্ত্রীর শ্লে মিছামিছি। আপনি আমাকে গেরেপ্তার করে নিয়ে চলুন। দারোগ অল্পক্ষণ চুপ করিয়া থাকিয়া জিজ্ঞাসা করিল- । SSBBBB BB BB BBB B BDD DDB BBBB BBBB BBBSBBB BBBS - ধৰ্ম্ম সাক্ষী, ভগবান জানেন,...... হলে আমাকেও গেরেপ্তার করতে হবেঃ ཨཱtབཱོ་་ (འབྲིང་དུ་སྐུ་ཟླ་ তুমি কি তবে একে ছেড়ে বাড়ী যাবে না ? -- —তনি তুমি খোকার দিবি করে না বগছ যে এন্ধে আসামীর দলে টানবে না, ততদিন আমি একে ছেন্ত্ৰে যেতে পারব না। দারোগী কুদ্ধ হইয়া বলিয়া উঠিল -এরপর যদি তোমার আমি ঘরে ঠাই না দিই ? o রাজবালা শান্ত অবিচলিত স্বরে বলিল-কাংলায়ারি বিলের কোলে আমার ঠাই মিলবে। বীরেন্দ্র ক্ষীণ কণ্ঠে বলিল-ওকি রাহু! তুমি বাজ যাও। স্বামীর প্রতিকূলতা করা তোমার উচিত হচ্ছে না। রাজবালা তেজের সহিত বলিল-স্বামীর অমুকুল হল ধৰ্ম্মের প্রতিকূলতা করাই কি উচিত হবে ? দারোগ স্ত্রীর দৃপ্ত ভাব দেপিয়া অভিভূত হইয়া পড়িা ছিল। সে উপায়ান্তর না দেখি বলিল -তবে একে স্থা নিয়ে বাড়ী চল । - রাজবাল স্বামীর মুখের দিকে চাহি হাসিয়া লিগ রাজবালা বাধা দিয়া বলিল—থামো। ধৰ্ম্ম কিংবা তোমার নেই, থাকলে তুমি এত অস্থায় অধৰ্ম্ম করে স্থাতে পারতে না । আসামীকে লুকিয়ে রেখেছি! রোগ ইংসেম্বর স্ত্রীর দৃঢ়তা দেখি হঠাৎ বলির উঠিল-আচ্ছ, খোকার দিবি করেই বলছি। - রাজবাল উঠিয়া দাড়াইল, তাহার স্বন্দর মূখ সঙ্কলতাৱ । আনন্দে উজ্জল হইয়া উঠিয়াছে। - o দারোগী বলিল—এখন একখানা গোরুর গাড়ীয়ে হয়, নইলে তোমরা বাবে কি করে? - রাজবালা হাসিয়া বলিল—তোমায় কিছু করতে হবে আমি সব ঠিক করছি। - - দারোগ আশ্চর্য হইয়া বলিল-তুমি এই অন্ধকারে । বন জঙ্গল ভেঙে কোথায় গাড়ী ঠিক করতে মাৰে । "" কথার কোনো উত্তর না দিয়া ੇ *禪禮 একটা বড় নালির মুড়ঙ্গ হইতে কড়চ্চুলভাল একটা প্রকাও মাখা উঠি বলিল-জাঙ্গে, ম্যাকরণ আমার খুবই ভালো বাস , কিন্তু এই মাত্র ভূমি আমার ঠাই দেবে না বলে ভয় দেখাতে পেরেছ—তুমি আমায় o অমন কথা বলতে পারতে না। বল-থোকার রোগ উত্তেজিত হইয়া বলি উঠিল-রাজু,তুমি তার স্থা হলে এমন কথা বলতে পারতে না! তুমি তার কিনা, তাই তার অকল্যাণে তোমার ভয় নেই ? ভয় আছে বলেই ত তার বাবাকে অধৰ্ম্ম থেকে - চাচ্ছি। আমার ছেলেকে বসন্তরোগের গ্রাস থেকে