পাতা:প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়ের গল্পসমগ্র.djvu/১০৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


উষা ক্ষণকাল চিন্তা করিয়া বলিল “সাড়ে তিন টাকা।” ঘটনাচক্রের অদ্ভুত গতি। ইহার দই দিন পরে, ছাত্রকে পড়াইতে গিয়া ব্ৰজবাব তাহার টেবিলের উপর একশিশি নাকিস দেখিতে পাইলেন। এ শিশিটি উষার শিশির প্রায় বিগণ। শিশিটি হাতে তুলিয়া ব্ৰজবাব বললেন, “নাকিস—এর গন্ধটি বড় চমৎকার ।” ছাত্র বলিল, আজ্ঞে হ্যাঁ । দামও তেমনি।” “কত দাম এর ?” “ছত্রিশ টাকা ।” ব্ৰজবাব সবিসময়ে বলিলেন, “অ্যাঃ—বল কি ? ছত্রিশ টাকায় এইটুকু এক শিশি এসেলস ?” ছাত্র বলিল, “আজ্ঞে হ্যাঁ যন্ধের সময় দাম আরও বেড়ে গিয়েছিল, এখন তব একটা কমেছে। “আজ্ঞে হ্যাঁ—ছোট শিশিও আছে, সে একটার দাম চব্বিশ টাকা ।” ব্ৰজবাব আর কিছু বললেন না। নিজ কায সমাপন করিয়া বাসায় ফিরিয়া গেলেন। নাকিস বা তাহার মাল্য সম্বন্ধে সন্ত্রীর সহিত কোন কথাই কহিলেন না। মাসের তখন মাঝামাঝি। ব্ৰজবাব ভাবিতে লাগিলেন, দেড়শত টাকা মাহিনার গরীবু অধ্যাপকের সত্ৰী, চব্বিশ টাকা দিয়া এক শিশি এসেন্স কেনে—এই বা কি রকম কথা! ভাবিলেন, মাসের শেষ-সপ্তাহে উষা নিশ্চয়ই বলিবে সংসার খরচের টাকা ফরাইয়াছে, আবার কোথাও চক ধার করিতে ছটিতে হইবে। কিন্তু মাসকাবার হইয়া গেল, উষা টাকা চাহিল না। উষা মখ ভার করিয়া থাকে. স্বামীর সঙ্গে ভাল করিয়া কথাবাত্তা কহে না। মাঝে মাঝে থিয়েটারে, যায়, বায়কোপে যায়, সব সময় স্বামীকে জিজ্ঞাসাও করে না। কখনও বলে প্রতিমাদির সঙ্গে গিয়াছিলাম, কখনও অন্যান্য সখীর নাম করে। কৈফিয়ং দেয়, “তুমি রাত দশটা অবধি বাইরে থাকবে; ঘরে একলfট আমার কি করে কাটে বল দেখি ?” শনিয়া ব্ৰজবাব ভালমন্দ কিছুই বলেন না। তিনিও মখ ভার করিয়া থাকেন। ৷৷ তৃতীয় পরিচ্ছেদ ॥ মাসখানেক এইভাবে কাটিল। মাতার পীড়া-সংবাদ শুনিয়া উষা কয়েক দিন পিত্রালয়ে গিয়া থাকিতে চাহিল, ব্ৰজবাব আপত্তি করিলেন না। উষা ভবানীপুরে যাইবার কয়েক দিন পরে, একদিন প্রাতে ব্ৰজবাব অপরিচিত হস্তাক্ষরে ঠিকানা লেখা একখানা চিঠি পাইলেন। খলিয়া, পত্রপ্রেরকের স্বাক্ষর অনুসন্ধান করিতে গিয়া দেখিলেন, সেখানে কেবলমাত্র লেখা আছে—“আপনার কোনও শুভাকাঙক্ষী বন্ধ।” বেনামী চিঠিখানাতে এইরুপ লেখা ছিল – মহাশয়, শনিয়াছিলাম, ১২ বৎসর মাস্টারী করিলে, লোকে বধি হারাইয়া গদ্দভে পরিণত হয়। আপনার মাস্টারী ত তাহার অন্ধেকও হয় নাই—তথাপি আপনার এ দুরবস্থা কেন ? চোখে কি কিছই দেখিতে পান না ? আপনার রসবতী বিলাসিনী পত্নী এত যে লীলাখেলা করিতেছেন, কিছুই কি বুঝিতে পারেন না ? তিনি থিয়েটার কিবা বায়সেকাপ দেখিয়া বাড়ী ফিরিলে, আপনার জিজ্ঞাসা করা উচিত, “কি অভিনয় দেখিলে বল দেখি?”—তুন যাহা উত্তর করিবেন, তাহা আপনার २