পাতা:প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়ের গল্পসমগ্র.djvu/১০৩১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


তাহার মুখখানি দেখিলাম। চারি চক্ষে মিলন হইবামার জানালাটি সে বন্ধ করিয়া দিল । ভয়ে—সন্দেহ নাই: বাড়ীর কে কোথা হইতে দেখিবে, আবার লাঞ্ছন গঞ্জনা সর হইবে। চোখ দটি তার বড় মলান দেখিলম-বড় মনের কণ্টে আছে । হায় শৈলজা, কেন তুমি আমার হইলে মা প্রিয়তমে ? ১৭ই আগ্রহায়ণ । কলেজ পলাইয়া দ্বিপ্রহরে, বিকালে, সন্ধ্যায় আরও কয়েকদিন সে রাস্তায় ঘরিয়াছি, কিন্তু আর তাহার দেখা পাই নাই। কিন্তু একটা ফন্দি করিয়াছি। সেই বাড়ীর একজন ঝির সঙ্গে আলাপ করিয়াছি--তহায় নিকট শৈলর সংবাদটা মাঝে মাঝে পাইতে পারব। আজ যখন শৈলদের বাড়ীর দিকে যাইতেছিলাম, তখন দেখিলাম একজন মধ্যবয়সকা সত্ৰীলোক সন্দেশের একটা ঠোঙা হাতে করিয়া সেই দিকে যাইতেছে। তাহাকে দেখিয়াই আমি চিনিলাম-কারণ মধ্যপরে তাহাকে আমি অনেকবার দেখিয়াছি। সৌভাগ্যবশতঃ গলির সে অংশটা তখন নিজন ছিল। আমি সাহসে ভর করিয়া তাহার কাছে গিয়া বলিলম, “হ্যাগা, তুমি কি প্রবেধবাবর বাড়ীর ঝি?” সে বলিল, “হ্যাঁ, কেন বাবা ?” “তোমার নাম কি ?” ঝি একটা মচকি হাসিয়া বলিল, “আমার নাম শনে আপনি কি করবেন ? আমার কাছে আপনার কি দরকার তাই বলন।” “তুমি আমায় আর কখনও দেখেছ ?” “দেখেছি বইকি ! মধুপুরে দেখেছি, সেখান থেকে ফিরে এখানেও কতদিন দেখেছি —আপনি আমার মনিববাড়ীর সামনে ঘরেঘর করে ঘরে বেড়ান, দেখেছি বইকি ”—বলিয়া সে আমার প্রতি একটা বিশেষভাবে চাহিয়া হাসিল। বোধ হয় এইরুপ চাহনিকেই কবি ও ঔপন্যাসকেরা ‘কটাক্ষ' আখ্যা দিয়া থাকিবেন। কি প্রয়োজনের কথা তাহাকে বলি ভাবিতেছি, এমন সময় ঝি তাড়াতাড়ি বলিল, “কি দরকার শীগগির বলন; এখনই কে কোথা দিয়ে এসে পড়বে।" আমি। দেখ ঝি, সে অনেক কথা; একট নিরিবিলিতে তোমার সঙ্গে কোথায় দেখা হতে পারে ? ঝি। নিরিবিলিতে ? আচ্ছা কাল বেলা ১২টার সময় আপনি এইখানে, আসবেন। আমি। এই গলির মোড় কি নিরিবিলি ? BBS BBS B BB BBBS B BBB Bmm BBBBBB BBB BSBB BBS BB যাই। আপনাকে আমার ঘরে নিয়ে যােব। আমি উৎসাহের সহিত বলিলাম, “সেই বেশ হবে ঝি। কাল ঠিক ১২টার সময় আমি এইখানে এসে দাঁড়িয়ে থাকব ।” - “বেশ। আসবেন।”—বলিয়া ঝি চলিয়া গেল। সতরাং স্থির করিয়াছি, আগামী কল কলেজ পলাইয়া ঝির সহিত তাহার বাসায় । গিয়া সাক্ষাৎ করিব এবং শৈলজার সমস্ত খবর শনিব। ১৮ই অগ্রহায়ণ। বেলা সাড়ে ১১টার সময় কলেজ হইতে বাহির হইয়া, শ্যামবাজারের ট্রাম ধরিয়া, ১২টার মধ্যেই যথাস্থানে পেপছিয়া দেখি, গামছা ঢাকা এক থালা ভাত হাতে করিয়া ৰুি আসিতেছে। নিকটে আসিয়া সে আমাকে চপে চপে বলিল, “সঙ্গে সঙ্গে আসবেন না; একটু দরে আমার পিছ পিছ আসন।" আমি সেই ভাবেই তাহার *ళా గా 4 శా గా గా గా ఊ గా - ●● - - - - -