পাতা:প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়ের গল্পসমগ্র.djvu/১১১৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


হাত, এই কলকাতা সহরে নাকি খুব কমই আছে। শচীবাব বললেন, “হ্যাঁ, সে খ্যাতি তাঁর আছে বটে। আচ্ছা, আমি তবে এখন উঠি । শনিবার দিন আপনি আসবেন তা হলে। টাকার একটা রসিদ আমায় অনুগ্রহ করে দিন। সেদিন, আপনাকে নিয়ে যাবার জন্যে, আমাকে কি আসতে হবে ?” “না—না; আপনি আর কট করবেন না। আমি ঠিক সাড়ে ছ’টায় সময় রাজবাড়ীতে উপস্থিত হব।”—বলিয়া বিনয় টাকার রসদ লিখিয়া শচীবাবর হস্তে দিল। সেদিন বিকালে অনিল ও সবোধ আসিবামাত্র বিনয় বলিল, “ওহে, ব্লক করাবার খরচ সে ৫০টি টাকা উঠে গেল।” অনিল বলিল, “কি রকম ? কি রকম ?” বিনয় তখন মহারাজের আহবানের কথা তাহাদিগকে সবিস্তারে জানাইল। তাহারা এ সংবাদ শুনিয়া, অত্যন্ত আহমাদিত হইল। বলিল, “আমরা সেখানে যেতে পেলে বেশ হত ভাই! কিন্তু আমরা ত মহীরাজার বন্ধবোন্ধব নই যে নেমন্তম পাব ।” বিনয় বলিল, “আমার বন্ধ ত তোমরা! আচ্ছা, কালই আমি মহারাজকে চিঠি লিখে, তোমাদের সঙ্গে নিয়ে যাবার জন্যে অনুমতি চাইব-নিশ্চয়ই তিনি আপত্তি করবেন না।" যথাদিনে ও সময়ে, বিনয় বন্ধদ্বয় সহ, রাজবাড়ীতে গিয়া যন্ত্রালাপ শনাইল । মহারাজের বিনয় ও সৌজন্যে, এবং তাঁহার রসগ্রাহিতার সাক্ষাৎ পরিচয়ে তিনজনেই মগধ হইয়া ফিরিয়া আসিল। সবোধ ও অনিলকে পথে নামাইয়া দিয়া বিনয় বলিল, “কাল রবিবার অাছে, সকালে উঠেই আমার ওখানে চলে আসবে তোমরা, ঐখানেই স্নানাহার এবং দিবাষাপন।” “তথাস্তু" বলিয়া সবোধ ও অনিল নিজ নিজ বাসা অভিমুখে পদচালনা করিল। পরদিন পঞ্চম পরিচ্ছেদ ॥ বেলা ৭টার মধ্যেই সবোধ ও অনিল, বিনয়ের বাসায় গিয়া জটিল। বিনয় তখন বিতলস্থ ডাইনিংরমে বসিয়া ছোট হাজরা খাইতেছিল; বন্ধদ্বয়ও সেই টেবিলে এক এক পেয়ালা চা গ্রহণে আপত্তি করিল না। চা-পানান্তে তিনজনে বসিয়া গল্প-গজেব করিতেছে—এমন সময় গৃহদ্বারে মোটর দাঁড়াইবার শব্দ শনা গেল। অনিল লাফাইয়া জানালার নিকট গিয়া মাখ বড়াইয়া দেখিয়া बलिज, “লাও ঠ্যালা। আবার বোধ হয় মক্কেল এসেছে!” বিনয় ও সবোধ উঠিয়া জানালার নিকট গেল। দেখিল, মোটয়ে একজন পথািলকায় প্রবীণ বরুক বাব বসিয়া আছেন: তাহর পাবে ১৩১৪ বৎসর বয়স্কা একটি সন্দরী সবেশ্য বালিকা। বাবটি হস্তেঙ্গিতে বারবানকে ডাকিয়া, নিজ কাড দিয়া কি বলিলেন। স্বারবান কি বলিল ; তাহাতে, বাবা নামিয়া, মেয়েটিকে হাত ধরিয়া নামাইলেন, এবং বারবানের পশ্চাৎ পশ্চাৎ গহমধ্যে প্রবেশ করিলেন। ক্ষণকাল পরেই বারবান কাডখিনি হাতে করিয়া প্রবেশ করিল। উহাতে যে নামটি লেখা ছিল তাহা তিনজনের কাহারও পরিচিত নহে। সবোধ বলিল, “কলকাতায় কত বড়লোক রয়েছে, আমরা কি সবাইকের নাম জানি ?" বিনয় বলিল, "আচ্ছা, তোমরা বস ভাই, ব্যাপারটা কি জেনে অসি।”—বলিয়া সে চলিয়া গেল। - -- সবোধ বলিল, “ওরা কারা—কি জন্যে এসেছে বল দেখি অনিল ?” অনিল বলিল, “কোনও বড়লোক—সম্ভবতঃ ব্রহ্ম। বিলেতফেরৎ নয়, তাহলে হ্যাট কোট পরা থাকতো। মেয়েটি, বিনয়ের ছাত্রী হবে; বিনয়ের একটা ভাল রকম প্রাইভেট । ট্যুশন বোধ হয় জন্টলো।” ՖԵ Ն, - ---. - *