পাতা:প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়ের গল্পসমগ্র.djvu/১১২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


পরেশ বসলে, রায় বাহাদর তাহার প্রতি নিবিষ্ট মনে কিছুক্ষণ চাহিয়া সুতারপর কথাবাত্তা আরম্ভ হইল। | রায় বাহাদর পরেশের আবেদনপত্রখানি বাহির করিয়া, তাহার উপর একবার চোখ বলাইয়া জিজ্ঞাসা করিলেন, “আপনি এম-এ, বি-এল পাশ করেছেন ; ঢাকাতে প্র্যাকটিস করেন লিখেছেন ; বিশেষ সুবিধে হয়নি তা অবশ্য বুঝতেই পারছি ; কিন্তু তা হলেও, ৫০ টাকা মাইনেতে কি আপনার চলবে ? এতে কি আপনি সন্তুট থাকতে পারবেন ?” পরেশ সবিনয়ে উত্তর করিল, “আন্দ্রে, তা পারবো, কেন না আমার অভাব কম।” “ওঃ—সে ভাল।”—বলিয়া রায় বাহাদর গড়গড়ির নলটায় দুই চারি টান দিলেন। পরে জিজ্ঞাসা করিলেন, “আমি ২৪ ঘণ্টার লোক চাই—এখানে আপনার থাকতে কোনও অসুবিধে হবে না ত?” পরেশ বলিল, “আজ্ঞে, অসুবিধে হবে কেন ?” “আমি যদি আপনাকে মনোনীতই করি, কবে আপনি জয়েন করতে পারেন ?” “যবে বলেন। একবার আমায় ঢাকায় যেতে হবে, সেখানকার বাসা তুলে দিয়ে, দেশে গিয়ে মার সঙ্গে একবার দেখা করেই চলে আসতে পারি।” “দেশে আপনার মা আছেন বকি ? আচ্ছা বেশ । যতগুলি দরখাস্ত এসেছিল, তার মধ্যে থেকে বেছে বেছে আমি যাদের ডেকেছিলাম, তাদের প্রায় সকলের সঙ্গেই দেখা করা হয়ে গেছে। আপনি আজ এলেন। আর দুজন মাত্র বাকী—তাঁদের কাল ডেকেছি। তাঁদের সঙ্গে দেখা হয়ে গেলেই, পরশ আমি স্থির করবো কাকে এ পদ দেবো। আপনি কি করবেন ? এ দুদিন কি কলকাতাতেই অপেক্ষা করবেন ?” পরেশ বলিল, “আপনি যা বলেন।” “আমি তবে আপনাকে স্পষ্টই বলি। পবোঁ যতগুলি লোক এসেছিলেন, তাঁদের সকলের চেয়ে, আপনাকেই আমি বেশী যোগ্য মনে করি। কাল ষে দুজনের আসবার কথা আছে, তাঁদের অবশ্য এখনও দেখিনি।” এই সময় একটি ১২১৩ বৎসরের সন্দেরী মেয়ে, অঙ্গে তার ইংরাজী ফ্রক, রািখ এলোচল ফিতায় বাঁধা, লাফাইতে লাফাইতে সেই ঘরে প্রবেশ করিল এবং আগন্তুকের মণি, আজ ত ‘ফান-ফ্রাইডে, আজ কি আমরা বায়স্কোপে যাব ?” পরেশ মনে মনে বলিল, “আ মোলো যা! ধেড্রেকেট মেয়েটার রকম দেখ! আবার ডাড়ি-মণি! ইণ্ডগবঙ্গ এই জন্যেই বলে বোধ হয়!" রায় বাহাদর কন্যার পষ্ঠে আদরের মদে আঘাত করিতে করিতে বলিলেন, “যাবি ত পাগলী !” মেয়ে মহা আনন্দে নাচিতে নাচিতে প্রস্থান করিল। রায় বাহাদর বললেন, “দুদিন আপনি থেকেই যান না। আপনার বাসার ঠিকানাটা দিয়ে যান, পরশ রবিবার সকালেই, যাহোক একটা কিছু খবর আপনাকে পাঠাব। যদি অন্য লোককেই এপয়েন্ট করি, আপনার রাহা খরচের টাকা পাঠিয়ে দেবো—নয়ত, আপনাকেই ডেকে পাঠাব।” পরেশ বলিল, “আজ্ঞে কোনও বাস ত এখনও ঠিক করিনি। যদি বলেন ত পরশন--” “আচ্ছা, তা হলে পরশু সকালে একবার এই সময় এসে খবরটা নেবেন।”—বলিয়া রায় বাহাদর দাঁড়াইয়া উঠিয়া, পরেশের দিকে হস্ত প্রসারণ করিলেন। রায় বাহাদর তখন টেলিগ্রামের ফম লইয়া তাঁহার পরিচিত ঢাকার কোন প্রবীণ উকীলকে এই মৰ্ম্মেম একটি জবাবী তার করলেন ! “জনিয়র উকীল পরেশ ব্যানাজি" কি চরিত্রের লোক ? আমার সন্তানদের গহ শিক্ষক হইবার সে উপযুক্ত কি না ?” ९४