পাতা:প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়ের গল্পসমগ্র.djvu/১১২৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বসিলেন। আহারাতে ছোটবউ নিজ ঘরে চলিয়া গেলেন। দলেবউ পুকুরঘাটে গিয়া অচিাইয়া অসিয়া নিজ আহারসথান পরিস্কার করিল। হাত মুখ ধুইয়া আসিয়া, আল" BBBB BBBB BBB BBBB BB BB BB BBBB BBBBBSBBBBB BB BB BBS কিছ যদি মনে না কর ত বলি।” - ত রাসন্দরী জিজ্ঞাসা করিলেন, “কি কথা দলেবউ ?” “ ঐ যে মিসেটা বলির সঙ্গে বসৈ খেলে, ও কে ? তোমাদের কেউ হয় ?” “না, আমাদের কেউ না, দোকানের মহারী।” “কত দিন এসেছে ? “এই মাসখানেক হবে । কেন দলেবউ, এ কথা জিজ্ঞেস করছিস কেন ?” দলেবউ এদিক ওদিক চাহিয়া নিম্নস্বরে কহিল, ”ও লোক ভাল নয় মা, ওকে তাড়িয়ে দীও । ছোট গন্নী এখানে আসবার মাসখানেক আগে, ও মিনসে আমাদের গাঁয়ে গিয়েছিল। ও কে, কি বিত্তান্ত কেউ জানে না। যদি মিথ্যে বলি ত আমার জিভে যেন খসে যায় সা-সন্ধ্যের পর তোমাদের বাড়ীর বাগানের ধারে, পুকুরঘাটের পথে—এই রকম সব জায়গায়, দতিন দিন ছোটবউয়ের সঙ্গে ফসর ফসর করে কথা কইতে ওকে আমি সবচক্ষে দেখেছি। আমি কেন, আরও কত নোক দেখেছে। এ নিয়ে গাঁয়ে একটা কণাকণিও সর হয়েছিল । তার পর মিনসে কোথায় চলে গেল, আর দেখতে পাইনি। আবার এখানে এসেও জটেছে দেখছি! কার মনে কি আছে তা নারায়ণই জানেন, কিন্তু এসব BB BB BS BBBB BBBBBS BBB BBS B BBS K B BBSBBB BBBBB প্রণা করিয়া বিদার গ্রহণ করিল। তারাসন্দেরী কাঠের পুতুলের মত দাঁড়াইয়া রহিলেন, তাঁহার মুখ দিয়া একটি কথাও বাহির হইল না। তিনি কেবলই ভাবিতে লাগিলেন তবে ত স্বামী যাহা সন্দেহ করিয়াছেন, তাহাই ঠিক, আমার বিশ্বাসই ত ভুল ! । সাত tt অপরাতুকালে ছোটবউ বলিলেন, "দিদি, এখন তুমি অনেকটা সস্থ হয়ে উঠেছ, বটঠাকুর আমার টাকাগুলির ব্যবস্থা করে দিলেই আমি দেশে চলে যেতে পারি। আড়াই হাজার টাকা যদি এখন নাও হয়ে ওঠে, আপাততঃ দুহাজার পেলেও আমার চলবে—পরে তখন হিসেবপত্র দেখে যা হয় তা দেবেন। আজকে বটঠাকুরকে তুমি বোলো মনে করে निर्क्दिछे গভীরভাবে বললেন, “আচ্ছ তা বলবো।” মনে মনে বলিলেন, “তোমায় তাতেনাতে একবার ধাঁয় দাঁড়াও, ধরে আচ্ছা করে ঝাঁটাপেটা করি, তার পর বোধ হয়, তুমি দেশে না গিয়ে কাশী কি বন্দোবন যেতেই চাইবে।” রাত্রে আহারাদির পর নিজ কক্ষে শয়ন করিয়া তারাসুন্দরী স্বমীকে বলিলেন, “ওগো, তুমি যা সন্দেহ করেছিলে, তাই ঠিক, আমারই ভুল হয়েছিল।”—বলিয়া দলেবউ কর্তৃক প্রদত্ত সংবাদটি তিনি সবামীর গোচর করিলেন। টাকার জন্য আজ আবার ছোটবউয়ের তাগাদার কথাও বলিলেন। অবশেষে বলিলেন, “টাকাটা ফেলেই দাও। দিয়ে পাপ বিদেয় কর। নইলে এখানে বাসায় আমাদের চোখের সামনে কি কাণ্ড হতে কি কাণ্ড হবে, "ভাবতেও আমার বক শকিয়ে যাচ্ছে।” রামলোচন নীরবে ধুমপান করিতে লাগিলেন। কোনও মতামত ব্যক্ত না করিয়া অবশেষে শয়ন করিয়া নিদ্রা যাইবার চেষ্টা করিলেন । কিন্তু নিদ্রা তাঁহার চক্ষতে আসিল না। ঘণ্টাখানেক এ পাশ ও পাশ করিয়া তিনি উঠিলেন। নগনপদে বাহিরে গেলেন। উঠানে নামিয় বার খলিয়া তাতে আস্তে বৈঠকখানা ঘরের বারন্দার নিনে গিয়া দাঁড়াইলেন। এ কয়দিন গভীর রাত্রে প্রায়ই তিনি এইরুপ “রোঁদে” বাহির হইতেছেন, দেখি সন্ম হারাধন নিজ স্থানে শয়ন করিয়া