পাতা:প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়ের গল্পসমগ্র.djvu/১১৩৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


দধি এইরূপে তুলনা করিয়া দেখা যাউক, যাহার দধের পরিমাণ অধিক হইবে, স্বাস্থ্যকেই পত্র সন্তানের মাতা বলিয়া সিদ্ধান্ত করা যাইবে । কেমন, এ প্রকার নিম্পত্তিতে আপনাদের সকলের সন্মতি আছে ত?" সকলেই একবাকে বলিলেন—“আছে।” x বলা বাহুল্য ওয়াজিহনের দুগ্ধই গরতর হইল। ওয়াজিহন সভা সমক্ষে আপনার পরকে প্রাপ্ত হইলেন। জহরণকে তাঁহার কন্যা প্রত্যপিত হইল। খালিফ এই বিচার পদ্ধতি দেখিয়া মহা সন্তুষ্ট হইলেন। স্বীয় কণ্ঠদেশ হইতে বহমাল্য মণিহার মোচন করিয়া কাজি সাহেবের গলে পরাইয়া দিলেন। অলপদিনের মধ্যেই তাঁহাকে রাজধানীর প্রধান কাজির (চীফ-জন্টিস) সম্মানসচক পদে উন্নীত করিয়া দিলেন! দণ্ডস্বরুপ সেই শবাশুড়ীকে পারস্যোপসাগরের উপকলপিথত এক জনহীন প্রান্তরে নিৰ্বাসিত করা হইল। পোস্ট মাছটার খড়ে ছাওয়া গ্রাম্য পোস্ট অফিসের ভিতরে, নড়বড়ে টেবিলের সামনে, হাত ভাঙ্গা চেয়ারের উপর, বেগনে রঙের আলোয়ান গায়ে ঐ যে যুবকটি বসিয়া কাজ করিতেছে, ওই এখানকার পোস্ট মাচার বা ডাকবাব বিমলচন্দ্র গঙ্গোপাধ্যায়। ঘড়িতে ঠং ঠং করিয়া দশটা বাজিতেই বাহিরে ঝম ঝম শব্দ শুনা গেল; রাণার ডাক লইয়া আসিয়াছে। রাণার প্রবেশ করিয়া ডাকের ব্যাগটি টেবিলের উপর রাখিল ; বাবকে প্রণাম করিয়া কপালের ঘাম মলছিল। ডাকবাব বাগের শিলমোহর পরীক্ষা করিয়া দেখিলেন। রাণার তখন তামাক খাইতে বহিরে চলিয়া গেল। আফিস গহ এখন জনশন্য। পিয়নের রান্না খাওয়া সারিয়া লইতেছে—খানিক পরেই আসিয়া জটিবে, এবং নিজ নিজ বীটের চিঠি, মনি অর্ডার, রেজিটোরি প্রভৃতি বঝিয়া লইবে। ব্যাগটি কাটিয়া বিমল উহা টেবিলের উপর উবড় করিয়া ধরিল। চিঠিপত্র পাশেল প্রভৃতির সঙ্গে, একটা প্রসিদ্ধ মাসিকপত্রের পাঁচ ছয়টা বিভিন্ন প্যাকেটও বাহির হইল। একটা প্যাকেট লইয়া বিমল তাহার দেয়ুজের মধ্যে রাখিল (ইহা সে বাসায় লইয়া যাইবে এবং আহারাদির পর শয়ন করিয়া, খলিয়া গলপ ও প্রেমের কবিতাগুলির রসাসবাদন করিতে করিতে ঘুমাইয়া পড়িবে।) তার পর চিঠির গাদা পরীক্ষা করিতে লাগিল। তাহার মধ্য হইতে ৪৷৫ খনি বাছিয়া লইয়া, দেরজের মধ্যে লুকাইল । !এগুলি সমস্তই খামের চিঠি এবং পরেষের হস্তক্ষরে, সন্ত্রীলোকের নামে ঠিকানা লেখা। এগুলিও সে বাসায় লইয়া গিয়া, জল দিয়া খুলিয়া পঠ করিবে —শধ্যে প্রেমের গল্প কবিতা নয়, প্রেমের চিঠি পড়িতেও বিমল *::: ভালবাসে। এটা সে একটা নিন্দোষ o