পাতা:প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়ের গল্পসমগ্র.djvu/১১৫৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


উপরে গিয়া বস্থাদি পরিবত্তন করিয়া আসি। সাড়ে আটটায় আমরা ডিনারে বসিব ।” —বলিয়া তিনি বেয়ারকে ডাকিয়া আদেশ করিলেন, “সাহেবকা ওয়াতে গোসলখানা ঠিক করো ।” বেয়ারা চলিয়া গেল। কয়েক মিনিট পরে ফিরিয়া আসিয়া মহেন্দুকে সে নিমনতলে একটি কামরায় লইয়া গেল। এটি শয়নকক্ষ, কিন্তু অব্যবহৃত বলিয়া মনে হইল। সেই কক্ষের সংলগ্ন গোসলখানায়, একখানি নতন সাবান, ধোয়া তোয়ালে ও জল রহিয়াছে। মহেন্দ্ৰ শয়নকক্ষের দবার রন্ধ করিয়া গোসলখানায় প্রবেশ করিল। অন্ধ ঘণ্টা পরে পরিকার পরিচ্ছন্ন হইয়া, সিগারেট মখে করিয়া ড্রইং-রমে প্রবেশ করিয়া মহেন্দু দেখিল, এলসি তৎপর্বেই আসিয়া বসিয়া আছে। তাহার অঙ্গে কালো সিলেকর সান্ধ্য পরিচ্ছদ, পাউডার-চচ্চিত অন্ধনগ্ন শত্র বক্ষের উপর একটি মন্তহার দলিতেছে। এলসি বসিয়া একখানি পুস্তক পাঠ করিতেছে। মহেন্দু নিকটে আসিয়া বলিল, “কি পড়া হইতেছে ?” "এ একখানি নভেল, নতন বাহির হইয়াছে। তুমি বোধ হয় এখনও এখানি পড় নাই ?”—বলিয়া মহেন্দুর হসেত এলসি পাসতকখানি দিল । মহেন্দ্র বহিখানির সদর পৃষ্ঠা দেখিয়া বলিল, “না, এখানি পড়ি নাই। তবে এই লেখকের অন্য কয়েকখানি উপন্যাস আমি পড়িয়াছি।” এলসি বলিল, “এখনি খাসা বই। আমার পড়া হইলে তোমায় দিব এখন—পড়িয়া দেখিও, বেশ মজা আছে। আচ্ছা মোহেন, তোমাদের বাঙ্গলা ভাষায় নভেল আছে ?” “হ্যাঁ—আছে বইকি, অনেক আছে।” "সে সব নভেল কি রকম ? তুমি ত ইংরাজি নভেল অনেক পড়িয়াছ, বাঙ্গলা নভেলও কি সেই ধরণের ?” “অনেকটা সেই ধরণের বইকি।” “তাতে লভ মেকিং (প্রেমলীলা) আছে ?” “তা আছে বইকি ! প্রেমলীলা ছাড়া কি আর নভেল হয় ?” “সে ত নিশ্চয়। বাঙ্গলা নভেলে নায়িকারা সব কি রকম হয় ?” “যা হওয়া উচিত—খবে সন্দরী হয়। তবে বয়সটা তাদের কিছু কম হয়। ইংরাজী নভেলে যেমন নায়িকারা হয় ১৮১৯, বাঙ্গলা নভেলে তেমনই ১৩।১৪ বছরের হয়।” এলসি হাসিয়া বলিল, “আমার বয়সও কিন্তু ১৯ বৎসর। আমি সবচ্ছন্দে ইংরাজী উপন্যাসের নায়িকা হইতে পার-কি বল ? কিন্তু বাংগলা উপন্যাসের ত পারি না। আচ্ছা, এ দেশের ঐ সব ছোট ছোট মেয়েরা প্রেম করিতে জানে ?” “আমাদের গরম দেশ কিনা। অল্পবয়সেই আমরা ও বিষয়ে বেশ পরিপক্ক হইয়া উঠি ।” “কার সঙ্গে ঐ সব মেয়েরা প্রেম করে ?” আমরা যে সময়ের কথা লিখিতেছি, তখনও বাঙ্গলা উপন্যাসে “আর্টের” যগে— পরকীয়া প্রেমের যুগ—তেমন “নিভীক”ভাবে আরম্ভ হয় নাই। সুতরাং মহেন্দ্র বলিল, “তারা প্রেম করে স্বামীর সঙ্গে—অথবা যার সঙ্গে শেষে বিবাহ হইবে, তার সঙ্গে।” শনিয়া এলসি ওঠযগল কুঞ্চিত করিয়া বলিল, “সে ত নিতান্ত সেকেলে ফ্যাশান । স্বামী বা হব সবামীর সঙ্গে প্রেমে আবার কোনও মজা আছে নকি ?” মহেন্দু হাসিয়া বলিল, “আমাদের সাহিত্য এখনও তত মজাদার হইয়া উঠে নাই ।” এই সময় বেয়ারা আসিয়া সংবাদ দিল, “খানা টেবিল পর।” উভয়ে উঠিয়া খানা-কামরায় গেল। টেবিলটি সন্দের ভাবে সজিত। দইটি ফলদানিস্থ পাপগচ্ছের মাঝে বৈদ্যুতিক টেবিল ল্যাম্প জলিতে লাগিল। : দই কোস শেষ হইবার পর, "কী “বয়” রক্তবর্ণ তরল পদার্থপণ ডিক্যান্টার