পাতা:প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়ের গল্পসমগ্র.djvu/১১৫৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


সন্ত্রীর প্রতীক্ষা করিতেছ? বিশ্বাসঘাতক । ড্যাম নিগার শয়ারকা বাচ্চা! এত বড় আপদ্ধা তোমার—এক জন য়রোপীয় মহিলা—আমার সন্ত্রীর সহিত প্রেম কর ? আমি এই দণ্ডে তোমায় কুকুরের মত হত্যা করিব। তোমার ঈশ্বরকে স্মরণ কর!”—বলিয়া সাহেব অদরপথ গ্যাসের আলোকে চকমক করিয়া উঠিল। কিন্তু রিভলভার ছড়িবার অবসর সাহেব পাইলেন না। মহেন্দু পালোয়ানগণের নিকট শেখা একটা “ল্যাং" মারিয়া, সেই মহত্তে সাহেবকে ধরাশায়ী করিয়া, তীরবেগে ঘোড়দৌড়ের মাঠের দিকে ছটিল। মেজর সাহেব তাঁহার স্থলে দেহখানি যথাসাধ্য শীঘ্ৰ উঠাইয়া, আবার দই পায়ে দাঁড়াইয়া, পলায়মান মহেন্দ্রের দিকে রিভলভার লক্ষ্য করিলেন—আওয়াজ হইল গড়ম । সৈনিক পরষের শিক্ষিত হস্ত—মহেন্দ্রের মাথার ফেটে হ্যাট উড়িয়া গেল । কিন্তু মহেন্দ্র পড়িল না দেখিয়া, সাহেব তাহার পশ্চাদ্ধাবন করিলেন। স্থলেদেহ লইয়া যথাসম্ভব দ্রত দোঁড়িতে লাগিলেন; সঙ্গে সঙ্গে দ্বিতীয় ও তৃতীয়বার তাঁহার রিভলভার গজন করিল, “গড়ম—গড়ম!” t ..কিন্তু মহেন্দ্ৰ পড়িলও না, তাহাকে সাহেব আর দেখিতেও পাইলেন না। অগত্যা বাড়িতে আবার বায়সেকাপ অভিমুখে চলিলেন। তথায় পেপছিয়া, বার-এ দাঁড়াইয়া অলপ একটা সোডা সংযোগে একটা ডবল-পেগ ব্র্যান্ডি লইয়া এক নিঃশ্বাসে তাহা পান করিয়া ফেলিলেন। একটা সিগারেট ধরাইয়া অধোকটা গুইয়া, সেটা ফেলিয়া দিয়া ভিতরে গিয়া সন্ত্রীর নিকট বসিলেন। এলসি বলিল, “দশ মিনিট মধ্যে আসিব বলিয়া গেলে —প্রায় এক ঘণ্টা কাটিল, ছিলে কোথায় ?” - মেজর সাহেব সংক্ষেপে উত্তর করিলেন, “এক বন্ধর সঙ্গে কথা কহিতেছিলাম।” Il $$ff ll মহেন্দু সেই নিজন ময়দানের ভিতর উদ্ধদৰ্শবাসে ছটিতে ছটিতে যখন দেখিল, বন্দকের শব্দ বন্ধ হইয়াছে, তখন দাঁড়াইয়া পশ্চাৎ ফিরিয়া চাহিল। এতক্ষণে সে গ্রাস রাইড রাস্তা পার হইয়া, প্রায় ধোবীতালাওয়ের নিকট পেশছিয়াছিল। অন্ধকারে তীক্ষাদটি প্রেরণ করিয়া দাঁড়াইয়া রহিল, কিন্তু পশ্চাদ্ধাবনকারী সাহেবের আর কোনও চিহ্ন দেখিতে পাইল না। তখন সে দ্রতপদে অগ্রসর হইল। ক্ৰমে লোয়ার সাকুলার রোডে আসিয়া পড়িয়া, একখানা চলতি ঠিকাগাড়ী খালি পাইয়া, তাহা ভাড়া করিল। “জানানীಇ ಾ ಇঢ় বন্ধ করিয়া, রাত্রি এগারটার সময় নিজ বাসায় আসিয়া Z l পত্নীর চিঠির বাণ্ডিলটি লইয়া গঙ্গানান করিতে গেল। জলে নামিয়া প্রথমে বাডিলটি গঙ্গাগভে ছড়িয়া ফেলিয়া দিল। তার পর সনান করিয়া বাসায় ফিরিয়া আসিল । লাগিল। আহারান্তে, বাসায় পাওনাগণ্ডা মিটাইয়া দিয়া, জিনিষপত্রসহ টেশনে গিয়া ট্রেণে উঠিল এবং সন্ধ্যার মধ্যেই বাড়ী পেপছিয়া জননীকে প্রণাম করিল। মা বলিলেন, “কি বাবা, ছটি নিয়ে এলি ?” “না মা—চাকরী ছেড়ে দিয়ে এলাম। পরের এন্তাজারি আর পোষাল না ।” অমন চাকরীটা ছাড়িয়া আসতে মা বড় দুঃখ করিতে লাগিলেন। - - २२१ -