পাতা:প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়ের গল্পসমগ্র.djvu/১১৭৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


আপনাকেই আমি এখানে লইয়া আসিয়াছি।” এই কথা শুনিয়া মহারাজের বদনমণ্ডল হাস্যরেখায় উদ্ভাসিত হইয়া উঠিল। তিনি হাসাবেগ সবরণ করতে না পারিয়া, হাহা করিয়া হাসিয়া উঠিলেন। তারপর, মহিষীকে বক্ষে জড়াইয়া ধরিয়া, তাঁহার মাখচন্বন করিলেন। রাণীকে আদর করা শেষ হইলে, মহারাজ জেরা আরম্ভ করিলেন। রাণী হৈমবতীর এ বিষয়ে কোনও নিষেধ ছিল না। অম্বালিকা সকল কথাই খলিয়া বলিলেন। শনিয়া মহারাজ বললেন, “ছড়িটা ত আচ্ছা দন্ট!”

  • বশরের সনিবন্ধ অনুরোধে, সেই দিন ও রাত্রি জামাতৃ-আদরে বিজয়গড়ে যাপন করিয়া, মহারাজ স-মহিষী রাজধানীতে প্রত্যাবৰ্ত্তন করিলেন। রাণী হৈমবতীর সহিত সাক্ষাৎ হইলে, এই ব্যাপার লইয়া মহারাজ তাঁহার সঙ্গেও অনেক হাস্য-পরিহাস করিলেন; রাগ করলেন না–তাঁহাকে কিছমাত্র তিরস্কার করলেন না; সুতরাং সে যাত্রা প্রৌঢ়বয়স্ক মহারাজের সমন্নত ঘাণেদ্রিয় অভগনই রহিয়া গেল।

সতী ৷ প্রথম পরিচ্ছেদ ॥ চৌরঙ্গি অঞ্চলে, বিলাত-ফেরতগণের এক ক্লাবের বারান্দায় বসিয়া চাাঁর বন্ধতে কথোপকথন হইতেছিল। সকলেই প্রায় সমবয়স্ক, তবে কেহই চল্লিশের নীচে নহেন । সকলেই খ্যাতি, মান ও বিত্ত সঞ্চয় করিয়া সখে স্বচ্ছন্দে জীবন-যাত্রা নিবাহ করিতেছেন। আজ এই ক্লাবে, একটা উৎসব ছিল। সে সকল কাৰ্য্য শেষ হইয়া গিয়াছে;— মেলবরগণ এইখানেই ডিনার ভোজন সমাধা করিয়াছেন; অনেকে ব-ব গহে প্রত্যাবৰ্ত্তন করিয়াছেন; ইহারাও, এই গ্লাসটা শেষ হইলেই উঠিবেন, এইরুপ সঙ্কল্প। এমন সময়, ছাত্র-জীবনে, বিলাতে কে কিরাপ প্রেম-চচ্চা করিয়াছেন, সেই প্রসঙ্গ উপস্থিত হইল। দইজন নিজ নিজ “বহৃদশিতা” বিবত করিবার পর, এই দলের যিনি সব জ্যেষ্ঠ ব্যক্তি, দত্ত সাহেব বলিলেন, “আমাদের সময় ধীরেনকে নিয়ে একটা ভারি কাণ্ড ঘটে গিয়েছিল। তোমরা কেউ তখনো বিলেত যাওনি। কিন্তু সেখানে গিয়ে ধীরেনের কথা কি শোননি ? ধীরেন ঘোষাল।” - শ্রোতৃগণের মধ্যে একজন বলিলেন, “সেই বহন লক্ষপতি প্রতাপ ঘোষালের ছেলে ধীরেন ঘোষাল ?” দত্ত সাহেব বলিলেন, “সেই।” , “হ্যাঁ—বিলেতে পৌছে আমি তার কথা শুনেছিলাম। আহা! বেচার বসন্ত রোগে মারা গিয়েছিল। তারই কোনও প্রণয়-ঘটিত ব্যাপারের কথা তুমি বলছ নাকি ? শানেছিলাম, সে ত অত্যন্ত ভালমানুষ ছিল—নিতান্ত গোবেচারী।” দত্ত সাহেব সিগারেট ধরাইয়া বলিলেন, “ভালমানষে গোবেচারীরা প্রেমে পড়বে না ত পড়বো কি তুমি আমি ? রাজহংসের মত ক্ষীরটুকু খেয়ে নীরটুকু বহুজন করাই ছিল আমাদের প্রথা। কিন্তু সেটা কি সকলে পারে ভায়া ? তার কথা, সে একটা রীতিমত বা রোমাঞ্চকর ব্যাপার? কটা বাজলো ? ১১টা। শনবে সে কথা ?” সেন সাহেব, হুইস্কির গলাসে একটা লম্বা চমকে দিয়া বলিলেন, “The night is young yet. Fire away.” (ässt go oft-offairs. Is I) (রজনী এখনও যাবতী—বলিয়া যাও ।) দত্ত সাহেব তখন যে কাহিনী বিবত করলেন, আমরা নিম্নে তাহার সার সংকলন , कीब्रह निजाभ । - ধীরেন প্রথমে যখন বিলতে পদাৰ্পণ করিল, তখন সে একটি জানোয়ার বললেই *- -२8१ "" - . . . . . - - -