পাতা:প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়ের গল্পসমগ্র.djvu/১২২৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


চতুথ পরিচ্ছেদ ॥ কয়েকখানি পত্রাংশ ( > ) फ्राष्ट्कि*ळ१ ১oই বৈশাখ বন্ধবরেষা, আমরা গতকলা নিরাপদে দাক্তিজলিঙে পেপছিয়াছি। উপস্থিত স্যানিটেরিয়মে আসিয়া উঠিয়াছি, ২১ দিনের মধ্যেই একটি বাড়ী লইব। সরেন বাবাজীকে খাজিয়া বাহির করিবার সময় এখনও পাই নাই। যেমন যেমন হয়, পরে তোমায় জানাইব। বউঠাকুরাণীকে আমার নমস্কার এবং কমলা মা’কে সেনহাশীব্বাদ জানাইবে । ইতি তোমার বন্ধ উমাচরণ দার্জিলিং ১৩ই বৈশাখ ( २ ) বন্ধ, গতকল্য বিকালে ম্যালে বেড়াইতে বেড়াইতে সরেন বাবাজীকে দেখিতে পাইলাম । পরিচয় লইয়া, বিস্ময়ের ভাণ করিয়া বলিলাম, “অ্যাঁ, তুমি হালিসহরের শ্যামাচরণের ছেলে ? আমারও বাড়ী যে হালিসহর, আর তোমার বাবা যে আমার বাল্যবন্ধ!”—তাহাকে সঙ্গে করিয়া বাসায় আনিলাম। যাহা গোপন করা আবশ্যক এবং যাহা প্রকাশ করা চলিবে, সে সম্বন্ধে গিন্নীকে সব শিখাইয়া রাখিয়াছিলাম। রান্নিতে তিনি তাহাকে আহারের জন্য জিদ করিলে সরেন সন্মত হইল। অমলার সঙ্গেও তাহার আলাপ করাইয়া দিয়াছি । অমলা কাল গান শনাইয়াছে—গান শনিয়া সরেন খাব খসী হইয়ছে, তাহা বেশ বাবা গেল। আগামী কল্য বিকালে তাহাকে চা-পানের নিমন্ত্ৰণ করিয়াছি এবং বলিয়াছি, চাপানের পর সকলে একত্রে বেড়াইতে যাওয়া যাইবে । (○) দার্জিলিং ১লা জ্যৈষ্ঠ বন্ধ. সরেন প্রায় প্রতিদিনই বিকালে এখানে আসিয়া চা খায়, এবং সাধ্যভোজনও মাঝে মাঝে এখানে সম্পন্ন করে, ইহা পৰব পাব পরে তোমায় জানাইয়াছি। সরেন যতক্ষণ না আইসে, অমলা বেটী ততক্ষণ পথপানে চাহিয়া থাকে ; অথচ এমন ভাবটা দেখায়, যেন তাহার মনে কিছুমাত্র চাঞ্চল্য নাই। তোমার ছেলেটিও, ভাই, বড় কম যান না। অমলা যতক্ষণ ঘরে না থাকে, ততক্ষণ সে যেন ছটফট করে মধ্যে একদিন আমাদের শরীরটা ভাল নয় বলিয়া, সরেনের জিম্মাতে অমলাকে বেড়াইতে পাঠাইয়াছিলাম। দুজনে একলা বেড়াইতে যাইবে শুনিয়া, মনের আনন্দ গোপনের জন্য দুজনেরই সেই "অমানষিক” চেস্টার দশ্যটা, যদি ভাই দেখিতে! উহারা মনে করে, আমরা বড়বিড়ী কিছই বোধ হয় বঝিতে পারি না, সন্দেহও করি না। দুজনে বাহির হইয়া গেলে, বড়বিড়ী আমরা ত হাসিয়াই আকুল। হ্যাঁ, আর একটা কথা বলিতে ভুলিয়াছি। কয়েক দিন হইল, আমরা বাচ্চ হিলে বেড়াইতে গিয়া, ইচ্ছাপবেক উহাদিগকে হারাইয়া ফেলিয়া নিজেরা বাড়ী ফিরিয়া আসি। ঘণ্টাখানেক পরে উহারা ফিরিল। তখন নিজেদের মুখ হইতে হাসিতামাসার ভাবটা মছিয়া ফেলিয়া, দচিন্তার ভাবটা আনয়ন করা আমাদের পক্ষেও বিশেষ আয়াস সাধ্য হইয়াছিল। . &»