পাতা:প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়ের গল্পসমগ্র.djvu/১৩২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


অসহ্য।” বিপিন হাসিয়া বলিল—“অত চট কেন হে? সেদিন তোমাদের বাড়ীতে শ্যামবাজারের নাট্যসমিতি বিষবক্ষের যে অভিনয় করেছিল, তাতে হরিদাসী বৈষ্ণবীর গানটি কেমন হয়েছিল বল দেখি ?—সেইটি গাও না,—আমার ত ভারি চমৎকার লেগেছিল ভাই।” চার বলিল—“খবরদার অশ্লীল গানটান আমাদের বাড়ীতে গেও ন-আমরা কৃষ্ণপ্রেমী লোক।” হাসিয়া নগেন গণ গণ করিয়া সরে ধীরল; বিপিনকে জিজ্ঞাসা করিল—“গোড়াটা কি হে ?” "শ্ৰীমুখ পঙ্কজ—” নগেন্দ্র গাহিল— শ্ৰীমুখ পঙ্কজ দেখব বলে হে তাই এসেছিলাম এ গোকুলে। আমায় পথান দিও রাই চরণ তলে । ইতাদি । সর ক্রমে উচ্চ হইতে উচ্চে উঠতে লাগিল। চার ও বিপিন একে একে যোগ দিল । গান খুব জমিয়া গেল। সতব্ধ মধ্যাহ। নিলেন পথচারী লোকজন ক্ষণকাল দাঁড়াইয়া শনিয়া লইল। একবার-দইবার—তিনবার গাহিয়া গান শেষ হইল। ক্ষণকাল বিশ্রামের পর নগেন্দ্র আবার গণ গণ গণ করিয়া ধরিল— - তাই সেজেছি বিদেশিনী। --গানটার নেশা যেন আর কিছুতেই ছটিতেছে না। বিপিন হাসিয়া বলিল—“নগেন, তোর বউ মান করেছে নাকি রে ; মান মান করে অত ক্ষেপলি কেন তুই ?" নগেন গান বন্ধ করিয়া বলিল—“আমার বউ ত এখানে নেই। আমার শালীর বিয়ের সময় গেছে এখনও আসেনি।” “চিঠিতেও ত মান হয়।” “কি জানি ভাই মান হয়েছে কিনা, এক হগু কিন্তু চিঠি পাইনি।” “তবে যাও বৈষ্ণবী সেজে গিয়ে মান ভাঙ্গিয়ে এসগে। বেশ গলাটি আছে, গান শোনাবে: যখন পরস্কার দেবার সময় হবে তখন বলবে, ধনি তল মান-রতন দেহ মোয়।’ যথারীতি গদগদ হয়ে বলবে, হেসে ফেলো না যেন ।” চার গভীর হইয়া বলিল—“আর তাই! ইংরেজি শিক্ষার জালায় মান-টান সব দেশ থেকে উঠে গেল।” এই উৎকট নতন মন্তব্যটা শনিয়া নগেন ও বিপিন চমকিয়া উঠিল ! বলিল – “কি রকম—কি রকম ?” চার্য বলিল—“ইংরেজি পড়ে লোকে যে রকম শ্ৰীবৎসল. হয়ে উঠছে-চব্বিশ ঘণ্টা সন্ত্রীর শ্রীচরণের ছাঁচো হয়ে পড়ে থাকলে সে বেচারি মান করবার অবসর পাবে কখন तृल ?” বিপিন ও নগেন চারর এই গবেষণায় বিস্মিত হইয়া পড়িল। বিপিন বলিল--"ব্রাভো চার —মনোজগতে তোমার এই আবিস্কার, জড়জগতে কলম্বসীয় আবিষ্কারের চেয়ে একটও কম নয় ।” নগেন বলিল--"বাঃ চার । তুই দদিন বিয়ে করে প্রেমশাস্ত্রে এমন পরিপক্ক হয়ে উঠঙ্গি ? আমি দ্য বছরে যে এ তত্ত্ব পাইনি !” বন্ধিত উৎসাহে চার বলিল—“মানটা প্রণয়ে অপরাধের দন্ডস্বরুপ। অপরাধ আবার ఫెఱ