পাতা:প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়ের গল্পসমগ্র.djvu/১৪৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


"কেন, জুতো মোজা পরে ট্রামে চড়ে তুমি বায়স্কোপ দেখতে যেতে না বউ ? আওfকালই না হয় খনকী হয়ে অবধি—” “সে ত তোমার সঙ্গে যেতাম।” “তা বেশ ত একলা যেতে যদি তোমার ভয় হয়, আমি সঙ্গে করে তোমায় রেখে আসবো গো !” “দজনকার ট্রাম ভাড়া লাগবে ত? তার পর, কলেজের ছ’ টাকা মাইনে আছে, কাপড়-চোপড়ের খরচ, ধোবার থবচও বাড়বে—চালাবে কেমন করে ?” “মাইনের টাকায় না কুলোয়, আমি না হয় একটা প্রাইভেট টিউশ "উ ন যোগাড় করে নেবো এখন, তার জন্যে ভাবনা কি ? না হয় দিনকতক একটা টানাটানি করেই কাটানো যাবে। তার পর, যখন তোমার এক একখানি উপন্যাস বেরবে, তখন টাকা যে হাড় হাড় করে আসতে আরম্ভ হবে বউ !” “তা কি কিছু বলা যায় ? এতদিন কবিতা লিখেছি—গল্প উপন্যাস লিখতে কখনও ত চেষ্টা করিনি ! চেন্টা করলেই যে সফল হব এমন কি কথা আছে?” “আসল কথা কি জান ? প্রতিভাই হল আসল জিনিষ। সে প্রতিভা তোমার যথেস্ট রয়েছে—সেটা তুমি কাবোই খাটাও আর উপন্যাসেই খাটাও—তোমার হাত থেকে উচদরের রচনা বেরতে বাধ্য যে ।” “প্রতিভা-ট্ৰতিভা আমার কিছুই নেই। ও সব আমি পারবো না-এ নিয়ে আমায় পীড়াপীড়ি কোর না গো তোমার দটি পায়ে পড়ি।”—বলিয়া সষমা মুখ ভার করিয়া বসিয়া রহিল। অবিনাশ অন্য দিকে চাহিয়া বসিয়া রহিল। খানিক পরে একটা দীঘনিশ্বাস ফেলিল। সষমা আড়চোখে স্বামীর পানে চাহিল; একট অনুতাপের সবরে বলিল, “অমনি রাগ হল পরিষের!” সন্ত্রীর দিকে না চাহিয়া অবিনাশ বলিল, “রাগ নয় বউ, দুঃখ।” স্বামীর হাত ধরিয়া সুষম বলিল, “কেন কিসের দুঃখ তোমার ? সবাইকের স্ত্রী কি আর অনরাপা নিরুপমা হতে পাপে অবিনাশ বলিল, “না না, আমার দুঃখের কারণ তা নয়। আমার দুঃখের কারণ, মোহভঙ্গ।” "কেন, কি মোহ তোমার ভঙ্গ হল শনি ?” অবিনাশ আর একটি দীঘনিশ্বাস ফেলিয়া বলিল, “দেখ, এতদিন আমার ধারণা ছিল যে আমাদের দঙ্গনের প্রেম, আদশ দাপত্য-প্রেম। এখন দেখছি আমার সে ধারণাটা একটা মোহ–একটা ভুল ছাড়া আর কিছ নয়।” সষমা ক্ষণস্বরে বলিল, “কেন, ভুল কিসে ?” অবিনাশ বলিল, "যথার্থ দামপত্য-প্রেম কাকে বলে ? প্ৰাণেশ্বর—প্ৰাণেশ্ববরণী ব’লে পরপরের গায়ে ঢলে পড়াই কি দাম্পত্য-প্রেম ? বঙ্কিমবাব কি বলেছেন মনে নেই ? সমহাদয়তা, একাভিসন্ধিতা—সেইটেই হল আসল দামপত্য-প্রেম। নইলে, আমি বলবো যাব দক্ষিণে, তুমি বলবে যাবে উত্তরে-এ রকম হলে আদশ দাম্পত্য-প্রেম হয় না।” স্বামীর বেদনা-জড়িত কন্ঠস্বর শনিয়া সষমার চক্ষু ছলছল করিয়া আসিল। সস্নেহে তাহার হাতটি ধরিয়া বলিল, “তুমি দুঃখ কোরো না—আমি তোমার অবাধ হব না। তুমি যা বলবে আমি তাই করবো।” তখন আবার দুইজনে ভাব হইয়া গেল। বিজ্ঞাপনটি আবার পঠিত হইল। কত কথার আলোচনা হইল। সযম। সেই বিজ্ঞাপনের উপরিভাগের মদ্রিত পণ্যতল অট্টালিকা দেখিয়া বলিল, “উঃ বাড়ীটা ত মস্ত " অবিনাশ বলিল, তা হবে না ? এত বড় কে বাপদ- হবে তা কি হলৰ আছে?" -