পাতা:প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়ের গল্পসমগ্র.djvu/১৪৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


5. সাচ ভত্তি হইবার পবে, উভয়ে একদিন গিয়া কলেজটি দেখিয়া আসিবার পরামর্শ ছিল, সেই পরামর্শ আজ কাযে পরিণত হইবে। আজ বিকালের ঘণ্টায় অবিনাশের ক্লাস ছিল না; বেলা দইটার সময় সে বাড়ী আসিয়াছে। চারিটা বাজিলেই সন্ত্রীকে প্রস্তুত হইবার জন্য সে তাগাদা দিতে লাগিল। সষমা জতা মোজা পরিয়া, সাজিয়া গজিয়া, বেলা সাড়ে চারিটার সময় স্বামীর সহিত বাহির হইল। দুজনে ট্রামেই গেল। কলটোলা ট্রীটের মোড়ে নামিয়া, পাঁচ মিনিট মধ্যেই নতেন রাস্তায় উপন্যাস কলেজ গহের সম্মুখে উপস্থিত হইল। দেখিল, বাড়ীটা বিজ্ঞাপনের ছবির অনরপে প্রকাণ্ড পঞ্চতল অট্টালিকাই বটে ; কিন্তু সমস্তটাই উপন্যাস কলেজ নহে। নীচের তলার কুঠুরিগুলিতে চা চপ কাটলেটের “কেবিন", সাইকেল মেরামতের দোকান, পানবিড়ির দোকান, ময়রার দোকান প্রভৃতি—দোতলাটা মাত্র কলেজ। ত্রিতল চতুস্তল ও পঞ্চতলে মাড়োয়ারীগণ বাস করে। যাহা হউক, উভয়ে বিতলে উঠিল। প্রথমেই একটা কক্ষের বাহিরে অটিা তত্ত্বায় “অফিস” অঙ্কিত দেখিয়া, পদা ঠেলিয়া তাহারা ভিতরে প্রবেশ করিল। গোঁফদাড়ি কমানো ঝাঁকড়া চল, চোখে সোণার চশমা অটিা এক যুবক রেজিস্টারি বহি, খাতপত্র লইয়া বসিয়া ছিলেন, তিনি আগন্তুকদ্বয়ের পানে চাহিয়া, চেয়ার দেখাইয়া বসিতে ইঙ্গিত করিলেন। ইহাদের আগমনের উদ্দেশ্য শুনিয়া, একখন্ড নিয়মাবলী এবং একখানি ভক্তি হইবার ফরম অবিনাশের হাতে দিলেন। অবিনাশ ও সষেমা একত্র তাহা পাঠ করিতে লাগিল। পাঠ শেষে অবিনাশ জিজ্ঞাসা করিল, “ছাত্রীবিভাগে কতগুলি মেয়ে ভক্তি হয়েছে মশাই ?” বাবটি বলিলেন, “জন ত্রিশ এ পর্যন্ত ভক্তি হয়েছে। আরও অ্যাপ্লিকেশন আসছে। পঞ্চাশ পণ্য হলে আর আমরা নেবো না; মেয়েদের ক্লাস-ঘরে আর বেশী ধরবে না। এত ছাত্রী ভত্তি হতে চাইবে আগে তা আমরা ভাবিনি।” “মেয়েদের ক্লাসে কে কে পড়াবেন ?” কেরাণীবাব একখানি কাগজ টানিয়া লইয়া তাহার উপর চক্ষ রাখিয়া বলিলেন, “ছোট গল্প সম্বন্ধে লেকচার দেবেন সরোজ রায়, আর শৈলেন চাটয্যে। উপন্যাস সম্বন্ধে রজনীবাব আর লীলাবতী সেন। ভাষা বর্ণনা শেখাবেন নপেন সোম আর চঞ্চলা দেবী।” সকলেই জানেন—সুষমা অবিনাশও জানিত--বত্তমান বঙ্গীয় “তরুণ” সাহিত্যে এই লেখক লেখিকগণের সথান কত উচ্চে : অবিনাশ বলিল, “এরা ত আজকালকার খুব নামজাদা সাহিত্যিক।” কেরাণীবাব বলিলেন, “নিশ্চয়।” “ঐ যে সরোজবাবর নাম করলেন, নবরশিম মাসিকপত্রের সম্পাদক সরোজবাব কি ?” “उनि३ יין “তা হলে স্টাফ ত খুব স্ট্রং হয়েছে!" “আজ্ঞে হ্যাঁ। নইলে আর ভত্তি হবার জন্যে এত ভিড় ” “আচ্ছা—নমস্কার মশাই—এখন তাহলে আমরা উঠি।”—বলিয়া অবিনাশ দাঁড়াইল । কেরাণীবাব বললেন, “যদি ভক্তি হওয়াই স্থির হয়, তবে বেশী দেরী করবেন না,— কারণ পথান বড়ই কম—আর ষে রকম অ্যাপ্লিকেশন আসছে—” "যে আজ্ঞে—দেরী করবো না—খবে সম্ভব, কালই এসে টাকা জমা দিয়ে যাব।”— বলিয়া অবিনাশ সত্রীকে লইয়া প্রসথান করিল। ○o