পাতা:প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়ের গল্পসমগ্র.djvu/১৮৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


নাম মিস ডোরা রয়।” অনিল জিজ্ঞাসা করিল, “উনিও কি ক্লিকচান নাকি ?” -নিশ্চয়। কামাক স্ট্রীটে যে নাসেসি হোম আছে, সেইখানে আমরা থাকি। ক্লিশচান ন হইলে কি ডোরা সেখানে থাকতে পাইত ?”—বলিতে বলিতে জেসি তাহার হাতব্যাগ খালিয়া একটা সিগারেট কেস বাহির করিল। নিজে একটি সিগারেট ধরাইয়া কেসটি অনিলের দিকে ঠেলিয়া দিয়া বলিল, “হ্যাভ ওয়ান।" (খাও একটা) অনিল বলিল, “ধন্যবাদ। কিন্তু আমি ধুমপান করি না।” জেসি অনিলের দিকে চাহিয়া ভ্ৰযগল ঈষৎ কুঞ্চিত করিয়া হাসিতে হাসিতে বলিল, “ইনডাঁড –হোয়াটু এ গড লিটল বয় " (বল কি ! ভারি নক্ষি ছেলে ত!) অনিল বলিল, “তোমার সখী ঐ ডোরা—” জেসি বাধা দিয়া বলিল, “মিস রয়, ইফ ইউ প্লীজ "ি (মিস রয় বলা উচিত! অনিল বলিল, “হাঁ—মাফ করবেন। মিস রয়ও কি সিগারেট খান নাকি ?” জেসি নিজ সিগারেটে দই তিন টান দিয়া “না”-সচক শিরশচালনা করিয়া অবজ্ঞাভরে বলিল, “বেঙ্গালী হায় ।” অনিল মনে মনে বলিল, “আহা মরি! তুমি যে কত খটি ইংরেজ, তা তোমার গায়ের বঙেই মালাম!” প্রকাশ্যে বলিল, "হাঁ, যে কথা তোমায় ও ঘরে জিজ্ঞাসা করিতেছিলাম। *শ্রেুষা কি ভাবে করতে হইবে, ডাক্তার সাহেব কি তোমাদের জানাইয়াছেন ?” জেসি কয়েক টান সিগারেট টানিয়া বলিল, “আমাদের কাজ আমরা জানি—সে সম্বন্ধে তোমার কোনও আশঙ্কা করিবার প্রয়োজন নাই ব্যব। ডাক্তার সাহেব বলিয়াছেন, আমরা দুইজনে পালাক্ৰমে চব্বিশ ঘণ্টাই রোগীর নিকট থাকিব। মিস রয়ের ফীজ দৈনিক ১০, ঢাকা করিয়া, আমার ১৫ টাকা-আমি সিনিয়র কিনা -—আমি উহার ৩ বৎসর পর্বে পাস করিয়াছিলাম।” অনিল বলিল, “বেশ, ঐ ফাই তোমাদিগকে দেওয়া যাইবে।” “আর যাতায়াতের ট্যাক্সি ভাড়া সেও তোমরাই দিবে।” “অবশ্যই দিব।” “উত্তম কথা । রোগীর নাম কি ?” “নিরঞ্জন রায়চৌধুরী।" “বলিলে জমিদার। জমিদাররা খুব বড়লোক হয়, না ?” “মিটার রায়চৌধুরীর বয়স কত ?” “বাপ, মা, আত্মীয়নসবজন সব কোথা ?” “চব্বিশ।" ”বাপ, মা, ভাই, বোন কেহই নাই। আত্মীয়স্বজন যাহারা আছেন, দেশেই আছেন। এর এক আত্মীয়-সম্বন্ধে মাতুল, তিনিই এণ্টেটের ম্যানেজার। নিরঞ্জনের বয়স যখন ১০ বৎসর, সেই সমরে উহার পিতবিয়োগ হয়। তখন হইতেই ঐ মাতুল আদালত হইতে গ্রাজেন নিযুক্ত হইয়া বিষয়-সম্পত্তির রক্ষণাবেক্ষণ করিতেছেন, নিরঞ্জনকেও লেখাপড়া, শিখাইতেছেন। উনি আজিও বিবাহ করেন নাই। এম-এস-সি পাশ করিয়া বিলাতে গিয়া ব্যবহারিক বিজ্ঞান শিক্ষা করবেন ইচ্ছা আছে। বিলাত হইতে ফিরিবার প্রবে: বিবাহ করিবেন না।” জেসি বলিল, “বাব, তুমি বড় বাজে বকো। ও সব কথা তোমায় কে জিজ্ঞাসা করিয়াছে ?”—বলিয়া সে একমনে সিগারেট টানিতে লাগিল । মিস জেসি সিগারেট শেষ করিয়া ছাইদানী অভাবে উহা বারান্দায় ছড়িয়া ফেলিয়া দিয়া বলিল, “টাইফয়েড রোগীর শাশ্রষার জন্য যে সকল সরঞ্জাম আবশ্যক, তাহার কি কি আছে, কি কি নাই, আমায় দেখাও। যাহা যাহা নাই, সে সকল এখনই আনাইয়া טא