পাতা:প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়ের গল্পসমগ্র.djvu/১৯৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


একথা শুনিয়া তাহার মুখখানি প্রসন্ন হইল। মিন্টস্বরে বলিল, “তা কি করবে বল ক্রু পরষ মানুষ হয়ে যখন জন্মেছ, তখন এ সব কষ্ট না সইলে চলবে কেন ? & দুষ বিদেশে যখন চাকরি করতে যায়, সবাই কি আর বউকে গলায় বেধে নিয়ে বায় ? ঐ ত মিত্তিরদের যদবাব রয়েছে, চাটযোদের কেদারবাব, তার পর তোমার গিয়ে ঐ হারাণ ঘোষ—কেউ বিদেশে চাকরি করে, কেউ ব্যবসা করে, কেউ বউকে ত নিয়ে গিয়ে সঙ্গে রাখে না। ছটিছাট হলে বাড়ী আসে !" আমি বললাম, “ওগো, ওটা কি জান ? ওটা হচ্চে সহ্যগণের কথা, ওদের সহ্যগণ বেশী, তাই ওরা পারে । এই দেখ না কেন, কেউ বা দশ ক্লোশ পথ স্বচ্ছন্দে হেটে যেতে পায়ে, কার বা দক্লোশ হটিতেই জিভ বেরিয়ে পড়ে। সবাইকার সহ্যগণ কি আর সমান ? তোমার সহ্যগণ বোধ হয় আমার চেয়ে ঢের বেশী।” বউ বলিল, “বেশীই ত ! সহ্য করতে শিখতে হয়।” এ কথা শুনিয়া আমার মনে একট অভিমান হইল। কিন্তু সে ভাব গোপন করিয়া বলিলাম, “শিখতে হয় বললে, এটা কিন্তু ভুল। এটা জিওমেট্রি না আলজাবের ষে শিখতে হবে ? অভ্যাস করতে হয় বলা তোমার উচিত ছিল।” রউ বলিল, “ঐ হ’ল, যার নাম ভাজা চাল তার নাম মড়ি। আমি ত আর তোমার মত পাস করিনি।”—বলিতে বলিতে তাহার মখে সবামিগাব পষ্টতঃ ফুটিয়া উঠিল । সত্যই ত, গ্রামে কটা মেয়ের পাস-করা স্বামী আছে ? বিশেষ সদগোপের ঘরে। আমার মনের ব্যথাটুকু দরে হইয়া গেল! গ্রামের হারাণ ঘোষ কলিকাতায় চাউলের কারবার করে। চাউল কিনিবার জন্য সে গ্রামে আসিয়াছিল; - তাহাকে ধরিলাম। সে বলল, “বেশ, চল আমার সঙ্গে কলকাতায় । আমার ত সেখানে একটা বাসা আছে, যতদিন না চাকরি-বাকরি হয়, আমার বাসায় থাকবে, খাবে-দাবে, চাকরির চেষ্টা করবে।” __হারাণ বয়সে আমার চেয়ে ৫৬ বৎসরের বড় ত হাকে আমি হার দাদা বলিয়াথাকি । সে লেখাপড়া না জানিলেও দশ বৎসর কলিকাতাবাসের ফলে বেশ চালাক-চতুর হইয়াছে। মনটাও তার সাদা। যাত্রার পববদিন বাড়ী-ঘরে তালা বন্ধ করিয়া, বউকে তাহার বাপের বাড়ীতে লইয়া গেলাম। সিথর হইল, শবশর মহাশয় সব্বদা আসিয়া আমার বাড়ী-ঘর দেখা-শনা করবেন। সে রাত্রে বউ তৃ কাঁদিয়া কাটিয়া অস্থির হইল। আমিও চোখের জল মাছিতে মছিতে বলিলাম, "বাঃ এই বুঝি তোমার, সহ্যগণ ?” সে বলিল, “সহগণের মখে আগন, তুমি কবে আসবে তাই বল ?” “চাকরি-বাকরি একটা জটক-তবে ত আসবো।” . “ষদি জটতে দেরীই হয়, এক মাস বাদে তুমি এসে একবার আমায় দেখা দিয়ে যেও । বাঝলে ?” “বেশ, তাই আসবো ।” শবশর মহাশয় আমাকে হারাণ ঘোষের হাতে হাতে সপিয়া দিয়া তাহাকে অনেক মিনতি করিলেন, যাহাতে আমাকে কোনও অমঙ্গল পেশ করিতে না পারে। मदुई হাওড়া স্টেশনে নামিয়া হারদা আমাকে লইয়া ট্রামযোগে ভবানীপরে উপস্থিত হইল। এক গোনে ট্রাম, হইতে আমরা নামিলাম। হারদা বলিল, “এইটি হচ্চে জগ বাবর BDYS BB BBB DD DDD DBS BDDSBB DD BBB BBB DDD DDS ఇళీ