পাতা:প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়ের গল্পসমগ্র.djvu/২১১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ইনপেক্টর হইবে। কেমন, খাসী হইলে ত?” আমি বলিল, “ইহা আমার পরম সৌভাগ্য।” g তারপর সাহেব হাসিতে হাসিতে অঙ্গলি নড়িয়া বললেন, “যে ঘটনার সহিত জড়িত হইয়া আজ তুমি এখানে উপস্থিত হইয়াছ, তাহা কিন্তু জীবনে কোনও দিন কাহারও নিকট প্রকাশ করিতে পারবে না ইহাই লাট সাহেবের আদেশ। যদি কর, তৎক্ষণাৎ তোমার চাকরি যাইবে। যে কয়দিন তুমি দেশের বাড়ীতে ছিলে, মহারাজার বিষয় তুমি কাহারও কাছে গল্প করিয়াছিলে কি ? "কেবল আমার স্ত্রীর কাছে বলিয়াছিলাম, আর কাহারও কাছে না।” “তোমার সন্ত্রী কি কাহারও কাছেও গলপ করিয়াছেন ?” সভব নয় কারণ কলঙ্ক ভয়ে লায়লী সম্বন্ধে গ্রামে আমরা একটা কাল্পনিক কথা প্রচার করিয়া আসল ঘটন। চাপা দিয়াছিলাম।” “ভাল করিয়াছিলে; আজই তুমি বাড়ী ফিরিয়া যাও, তোমায় ৭ দিনের ছুটী দেওয়া গেল। তোমার স্ত্রীকে তুমি খুব সাবধান করিয়া দিবে, কাহারও কাছে এ ব্যাপার যেন প্রকাশ না হয়। প্রকাশ হইলে তৎক্ষণাৎ তোমার চাকরি যাইবে,—তোমার জেলও হইতে থারে।” সাহেব টাকা দিলেন; সেই দিন সন্ধ্যার ট্ৰেণেই আমি আবার বাড়ী ফিরিয়া গেলাম । বউ তাহার পিত্রালয়েই ছিল। যে দিন আমি গ্রেপ্তার হই, সেই দিনই সন্ধ্যার ষ্ট্ৰেণে শ্বশুর মহাশয় আমার উদ্ধারের চেষ্টায় কলিকাতায় রওনা হইয়াছিলেন। আমার খালাসের সংবাদ পাইয়া, পরদিন তিনি গ্রামে ফিরিয়া আসিলেন। বাবার অভিলাষ পণ্য হইল-চাকরি হইল, আমি বাব হইলাম। তা-ও যে সে বাবদ নহে-পলিসের বাব-দোদণ্ড প্রতাপ । ছয় মাস পরে, কলিকাতায় ফিরিয়া পাকা দারোগ হইলাম। বাসা ভাড়া করিয়া বউকে লইয়া আসিলাম । হিরণ, ব্রাহ্মসমাজের এক উচ্চশিক্ষিত যুবককে বিবাহ করিয়া সংসার পাতিয়াছে। মাঝে মাঝে বউয়ের সঙ্গে সাক্ষাৎ করিতে আসে। কানাইয়ের কীৰ্ত্তি কলিকতা ল্যান্সডাউন রোডের উপর এক ত্রিতল অট্টালিকা। ফটক পার হইয়া খানিকটা বাগান-তারপর বাড়ীর গাড়ীর রান্দা। সেই গাড়ীবারান্দার সিড়ির নিকট এক ছিন্ন মলিন বেশ যবেক, পায়ে জুতা নাই, বয়স আন্দাজ ১৮।১৯—নীরবে বসিয়া ছিল। গতকল্য তাহার আহার হয় নাই। আজ এখন বেলা ৮টা--আজ ত হয়ই নাই। এমন সময় সিড়ি দিয়া কেহ নামিবার পদশব্দ হইল। যবেক সসম্প্রমে উঠিয়া দাঁড়াইল । যিনি নামিয়া আসিলেন, তিনিই এ গহের কত্তা—ধতির উপর সিকের পাঞ্জাবি পরা, পায়ে চটিজতা। বয়স তাঁহার পঞ্চান্ন বৎসরের কম হইবে না। রঙ বেশ ফসর্ণ । গোঁফ দাঁড় কামানো। ভদ্রলোক নিম্নে আসিয়া পেপছিবমাত্র তাঁহার দটি সেই ছিন্নবেশ যুবকের উপর পতিত হইল। যবেক মাথা খুব ঝংকাইয়া যন্ত্ৰকরে তাঁহাকে প্রণাম করিল। তাহার পশ্চাৎ বহৎ গড়গড়ি হতে এক ভূত্য নামিল। বাবটি কোনও কথা না বলিয়া, তাঁহার বসিবার কক্ষে প্রবেশ করিলেন-ভূত্য গড়গড়িটি সেখানে রাখিয়া বাহির হইয়া আসিল। যবেক নিম্নস্বরে বলিল, “খানসামাজি ! একবার বল না।” ভূত্য মুখ বাঁকাইয়া আবার সেই কক্ষে প্রবেশ করিল। , ফিরিয়া আসিয়া, ইঙ্গিতে যেবেককে বলিল, “যাও ”—বলিয়া সে উপরে চলিয়া গেল। - - 》yち。