পাতা:প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়ের গল্পসমগ্র.djvu/২১৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


চেষটা করবো ।” কানাই সেলাম করিয়া চলিয়া যাইতেছিল, সাহেব বলিলেন, “হ্যাঁ, শোন । এ চিঠির বিষয় কোনও কথা কার কাছে যেন প্রকাশ করিসনে, বুঝলি!” “না হজর—কারীর কাছে প্রকাশ করবো না।”—বলিয়া পনরায় সেলাম করিয়া কানাই প্রস্থান করিল। ব্যানাজি সাহেব একাকী দেরাদন যাইবেন ব্যবস্থা ছিল, কন্যা বীণাকেও তিনি সঙ্গে লইয়া গেলেন। বীণা অনেক ওজর আপত্তি উথাপন করিয়াছিল, কিন্তু সে সব কথায় তিনি কৰ্ণপাত করেন নাই। . দেরাদন হইতে ফিরিয়া বীণাকে তিনি কলেজের বোর্ডিং-এ ভত্তি করিয়া দিলেন। কানাইকে তিনি ত্রিশ টাকা বেতনের একটা কেরাণীগিরি জটাইয়া দিয়াছিলেন। কিছুদিন পরে বীণার প্রণয়ী বিশ্বাসঘাতকতা করিল। টাকার লোভে সে অপর এক দেশীয় খাটান ভদ্রলোকের কুৎসিত কন্যাকে বিবাহ করিল। . বীণা শুনিয়া প্রথমটা খুবই কলিকাটা করিয়াছিল। কিন্তু কিছুদিনের মধ্যেই নিজেকে সে সামলাইয়া লইল। বৎসরখানেক পরে, ব্যানাজি সাহেব নির্বিঘ্যে নিজ মনোমত পাত্রে বীণাকে সম্প্রদান করিলেন। ১২৫