পাতা:প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়ের গল্পসমগ্র.djvu/২৮৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


প্রসতিকে যদি তারা খুজে বের করতে পারে, তবে এইগুলোর সাহায্যেই পারবে। আর ত কোনও সত্র পাচ্ছিনে —আচ্ছা, আপনাদের হাসপাতাল-সংক্রান্ত কোনও সন্ত্রীলোকের এ কাজ নয় ত ? কোনও দেশী নাশ* কিমবা চাকরাণী ?” ডাক্তার সাহেব বলিলেন, সেটা আপনিও খোঁজ করে দেখন। হাসপাতালের কেউ যদি হয়, তবে সে আজ তার নিজের বাসায় শয্যাগত—কাজে আসেনি।” বিনোদবাব আবার পকেট-বাক বাহির করিয়া কি লিখিলেন । পকেট-বাক বন্ধ করিয়া বলিলেন, “এই ফ্ল্যানেলগুলো আমায় নিয়ে যেতে হবে। দয়া করে কাউকে বলন, একটা খবরের কাগজে এগুলো বেধে আমায় দিক।” একজন ভৃত্য আসিয়া ডাক্তার সাহেবের আদেশ প্রতিপালন করিল। যাইবার সময় বিনোদবাব বলিলেন, “দেখনে একবার ছেলেটার অদষ্ট ! বড়ো মনিঋষিদের কথা এই জন্যেই বিশ্বাস করতে ইচ্ছে হয়—অদষ্টই মলাধার। জন্মালেন কোন বস্তির কোন খোলার ঘরে, মা হয়ত বাজারের কোন তরকারীউলী, বড় জোর কোনও গেরস্ত বাড়ীর ঝি, বাপ হয়ত চানাচর বেচেন কিবা রিক্সাই টানেন, একটা অবৈধ সংস্রবের ফলে জন্ম, এক রাত্রি যেতে না যেতেই ভুানমতীর খেলা—ভিখারীর ছেলে একেবারে রাজপত্তের • আপনি নিঃসন্তান মানুষ, হয়ত একে প্রতিপালন করবেন, লেখাপড়া শেখাবেন, ক্ৰমে বিলেত পাঠাবেন, কালে উনি হবেন হয়ত কোনও জেলার ম্যাজিস্ট্রেট বা সিভিল সাজান, নয়ত হাইকোটের জজ। কি আশ্চৰ্য্য কারখানা !”—বলিয়া বিনোদবাব হা হা করিয়া হাসিতে লাগিলেন। - ডাক্কার সাহেবও হাসিতে হাসিতে বলিলেন, “বিনোদবাব, আপনি পলিস, না কবি ?” বিনোদ । কেন ? ডাক্তার। আপনার কল্পনা যে রকম সদরগামিনী, আপনাকে কবি বলেই বোধ হয়। বিনোদ। বরং আমাকে জ্যোতিষী বলতে পারেন—আমি জাতকের কুণ্ঠীর একটা খসড়া করে দিলাম । এই বলিয়া ইনপেক্টরবাব হাসিয়া, শিশর গালে দাইটি অঙ্গলী পশ করিয়া, খবরের কাগজে জড়ানো বমালের বাডিলটি উঠাইয়া লইয়া “গড ডে ডক্টর" বলিয়া ডাক্তার সাহেবের সহিত করমন্দনান্তে মস মস শব্দে প্রপথান করিলেন। ৷ তিন ॥ ইনপেক্টরবাব অদশ্য হইবামাত্র গহিণী আসিয়া বললেন, “বাল হাগা, তুমি পলিসে চিঠি লিখতে গেলে কোন আক্কেলে বল দেখি ?" - ডাক্তার। পিনাল কোড অনুসারে একটা মস্ত অপরাধ হয়েছে যে ! একে বলে abandonment–sRă HTeti : sif Harpa? ডাক্তার, পলিসে খবর দিতে যে আমি বাধ্য। . গহিণী। ঐ সব ফ্ল্যানেল নিয়ে গেল। ঐ সত্র ধরে মাকে যদি খাঁজে বের করে? ডাক্তার। জেল হবে। এ অপরাধে সাত বছর পয্যন্ত জেল হতে পারে। গহিণী। তা হোক। সাত বছর কেন চৌদ্দ বছর জেল হোক। কিন্তু আমার ছেলেকে ত কেড়ে নিয়ে যাবে না ? ডাক্তার সাহেব হাসিয়া বলিলেন, “তোমার ছেলে নাকি ?” গহিণী। ছেলে নয়? ও যে আমায় মা বলেছে। ডাক্তার। স্বপন দেখেছ ? গহিণী। বন দেখবো কেন? তখন কাঁদছিল, ঠিক যেন শৰু শম্রলাম" শম ও মা ! নয় রে সোণার মা ? - সোণার মা। হি’ বাবা। -আমি পল্ট শনলাম ও মা ! ও#ffrবলে ছেলে কানন্ত্রে নেগেছে। F. - -్స - Ybr¢ !