পাতা:প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়ের গল্পসমগ্র.djvu/২৯৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


হইয়া সমস্ত বলিল। বাদশাহ দোষী ভূত্যের সমচিত দণ্ডবিধান করিয়া রাজপত্রকে মিট কথায় অনেক সান্ত্বনা দিলেন। আরও বলিলেন—“শীঘ্রই তোমার বিবাহ দিব।” মবোরক শনিয়া অত্যন্ত আহমাদিত হইল। বলিল—“প্রভু, তবে আর বিলম্ব কেন ? নজমী পন্ডিতগণকে আহবান করিয়া দিন স্থির করিতে আজ্ঞা হয়।” বাদশাহ বলিলেন —“আমি কল্যই জ্যোতিষী পড়িতগণকে আনাইয়া এ বিষয়ে জিজ্ঞাসা করিব।” •. অতঃপর একজন বিশ্ববস্ত রাজভৃত্য গিয়া পণ্ডিতগণকে কহিল—“দেখ, বাদশাহ কল্য । প্রকাশা-সভায় তোমাদিগকে যবেরাজের শুভ বিবাহের জন্য দিন পিথর করিতে বলিবেন। তোমরা বলিবে যে, এখন এক বৎসর বিবাহের দিন নাই। এইরূপ বলিলেই বাদশাহ সন্তুষ্ট হইবেন, নতুবা তোমাদের বিপদ।” w পরদিন যথাসময়ে প্রকাশ্য-দরবারে পণ্ডিতগণ উপস্থিত হইলেন। মবোরকও রাজপত্রকে সঙ্গে লইয়া সভায় আসিয়া বসিল। প্রশনমত পণ্ডিতগণ কহিলেন—“শাহানশাহ, আমরা গণনা করিয়া দেখিতেছি, এখন এক বৎসরকাল বিবাহের কোনও শুভ দিন নাই।” ইহা শুনিয়া কপটী বাদশাহ মৌখিক দুঃখপ্রকাশ করিলেন। মবোরককে বলিলেন— “শুনিলে ত মুবারক, এখন এক বৎসর দিন নাই। কি করা যাইবে, এখন এক বৎসর অপেক্ষা করিতে হইল। তুমি যদুবরাজকে অন্তঃপরে লইয়া যাও, যবেরাজ এখন মন দিয়া লেখা পড়া করুন। এক বৎসর পরে বিবাহ দিয়া তাঁহার পৈত্রিক গদশী তাঁহাকে ছাড়িয়া দিব। সকলই ঈশ্বরের ইচ্ছা।” ইহা শনিয়া সভাপথ সকল আমীর ওমরাহগণ ধন্য ধন্য করিতে লাগিল। বৰ্ত্তমান বাদশাহের প্রতি কেহই সন্তুষ্ট ছিল না। সকলেরই আন্তরিক ইচ্ছা, যুবরাজ পৈত্রিক , সিংহাসনে আরোহণ করিয়া পিতার ন্যায় রাজ্যপালন করেন। বাদশাহ সকলের এই মনোগত অভিপ্রায় বুঝিতে পারিয়া অত্যন্ত বিরক্ত হইলেন, কিন্তু তাহা প্রকাশ করিলেন না। এইরুপে কিছুদিন যায়। একদিন মুবারক অশ্রুপণে নেত্ৰে যবেরাজের নিকট উপস্থিত হইল। তাহাকে তদবসথ দেখিয়া যবেরাজ অত্যন্ত শঙ্কান্বিত হইয়া কহিলেন—“মবারক দাদা, তুমি কাঁদিতেছ কেন ? কি হইয়াছে আমায় বল: তোমার কোনও অমঙ্গল হয় নাই ত? তোমাকে কেহ কি অপমান করিয়াছে ? কি হইয়াছে আমায় খলিয়া বল ।” মবারক কহিল—“যুবরাজ, তোমায় সে দিন বাদশাহের নিকট লইয়া গিয়াছিলাম, তাহাতে মহা বিপদের সচনা হইয়াছে। হায় হায়, যদি পাবে জানিতাম, তাহা হইলে এমন কায্য করিতাম না।” যবেরাজ শঙ্কাকুল হইয়া কহিলেন—“কেন মবোরক, কি বিপদ হইয়াছে ?” মবারক বলিল—“সে দিন তোমাকে রাজসভায় দেখিয়া, আমীর, ওমরাহ, রাজকমচারী, সৈন্যগণ, সাধারণ প্রজাবগ-সকলেই অত্যন্ত আনন্দিত হইয়াছে। বৎসরান্তে তুমি রাজা হইবে শনিয়া সকলেই পলকিত। সকলেই বলিতেছে—আহা, আমাদের সবগগত বাদশাহ পরম দয়াবান ধামিক প্রজাবৎসল নাপতি ছিলেন। তাঁহার পত্র রাজসিংহাসন পাইলে আবার রাজ্যের সেইরাপ সুখ সম্পদ হইবে। এই সংবাদ শ্রবণ করিয়া তোমার পিতৃব্য রোষে ও হিংসায় জনলিয়া উঠিয়াছেন। আমাকে ডাকাইয়া বলিলেন, “মবারক, তুমি যদি কোনও মতে যুবরাজকে মারিয়া ফেলিতে পার তাহা হইলে আমি তোমাকে এক লক্ষ সবণমমুদ্রা দিব। শনিয়া আমার মস্তকে বজ্রাঘিাত হইল। কিন্তু মনোভাব প্রকাশ করিলে সমহ বিপদ, সেই কারণে কপটতাপবেক বললাম— বাদশাহ, ইহা আর শক্ত কথা কি—আমি অনায়াসেই আপনার অভীষ্টট সিদ্ধ করিয়া দিব। তবে উপায় সিথর করিতে কিছু সময় লাগিবে। বাদশাহ শুনিয়া সন্তুষ্ট হইয়া আমাকে বিদায় দিয়াছেন।” এই পৰ্য্যন্ত শুনিয়া যবেরাজ অত্যন্ত ব্যাকুল হইয় মবারকের পদে লাঠিত হইয়া বলিতে লাগিলেন—“মবারক দাদা, কিরাপে আমার প্রাণ বাঁচিবে ?” సె(t