পাতা:প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়ের গল্পসমগ্র.djvu/২৯৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


দ্বিতীয় পরিচ্ছেদ এই কথোপকথনের কয়েক দিন পরে, মুবারক একদিন রাজসমীপে উপস্থিত হইয়া কহিল—“প্রভৃ আপনি যাহ আজ্ঞা করিয়াছিলেন, তাহার একটি উপায় আমি সিথর করিয়াছি।” বাদশাহ প্রীত হইয়া কহিলেন—“কি উপায় সিথর করিয়াছ ?” মবোরক বলিল—“যুবরাজকে যদি এখানে হত্যা করা যায়, তাহা হইলে লোকের মধ্যে ক্লমে জানাজানি হইবার সম্ভাবনা। তাহাতে আপনার বিলক্ষণ অপযশ আছে। তাহা অপেক্ষা দেশভ্রমণের ছলে তাঁহাকে দরদেশে লইয়া গিয়া হত্যা করাই নিরাপদ। ফিরিয়া আসিয়া রটনা করিয়া দিব যে, তিনি কোনও মারাত্মক রোগে মৃত্যুমুখে পতিত হইয়াছেন । ইহাতে প্রজাবগের এবং অপর কাহারও কোন সন্দেহের কারণ থাকিবে না।” এই প্রস্তাব শ্রবণ করিয়া বাদশাহ বলিলেন—“মবারক, তুমি যথার্থই বলিয়াছ। যাও, যদুবরাজকে, লইয়া গিয়া, কোনও দরদেশে কাৰ্য্য শেষ কর। তাহা হইলে আমি নির্বিঘে্যু রাজ্যভোগ করতে পারিব এবং তোমাকেও পুরস্কার স্বরপ প্রভূত ধনসম্পদ প্রদান করিব।” মবোরক, দরদেশে যাইবার ব্যয় এবং নিজ পুরস্কারের অদ্ধাংশ পঞ্চাশ সহস্র বর্ণমদ্রা লইয়া, বাদশাহকে সেলাম করিয়া প্রস্থান করিল। যাত্রার আয়োজন হইতে লাগিল। সঙ্গে সৈন্য সামন্ত বা ভূতাদি কেহই যাইবে না। মবোরক বাজার হইতে মালেক সাদেকের জন্য বিবিধ বহনুমল্য উপহারাদি ক্ৰয় করিল। ভূগর্ভসথ সেই এক কলসী মোহর উঠাইয়া লইয়া, শুভদিন দেখিয়া, যুবরাজসহ যাত্রা করিল। দইজনে দুইটি উৎকৃষ্ট্রট অশেব আরোহণ করিয়া রাজধানী হইতে বহির্গত হইয়া, ' ক্ৰমাগত চল্লিশ দিন গমন করিল। সে দিন চলিতে চলিতে ক্লমে রাত্রি হইল, অন্ধকার হইয়া আসিল । রাত্রি এক প্রহর হইলে মবোরক বলিল—“খোদাতালাকে ধন্যবাদ, এতদিনের পর আমরা জিনিদৈত্যের দেশে’ পেপছিয়াছি।" শাহজাদা বিসিমত হইয়া বলিলেন —“কই ?” মবোরক বলিল—”এই যে,--এত আলো জলিতেছে, এত লোকজন যাতায়াত করিতেছে, বাদ্য বাজিতেছে, পথ, বাগান, ঘরবাড়ী, ইহাই জিনিদৈত্যপতি মালেক সাদেকের রাজধানী।” রাজপুত্র বলিলেন—“মবারক দাদা! আমার সহিত কৌতুক কর কেন ? ইহা ত জঙ্গল এবং কেবলই অন্ধকার ।” মবারক তখন ঈষৎ হাসিয়া নিজ পকেট হইতে একটি ডিবিয়া বাহির করিল। ইহার ভিতর আশ্চৰ্য্য সালেমানী সমমর্ণ ছিল। অলপ লইয়া রাজপত্রের দই চক্ষতে লাগাইয়া দিল । - সক্ষমা চক্ষে লাগাইবামাত্র শাহজাদা দেখিলেন, চতুদিকে আলোকপণ। বিস্তৃত রাজপথ। সখানে পথানে লণ্ঠন জনলিতেছে। অনেক ঘরবাড়ী, লোকজন, কোন কোনও গহের উপরতলায় নৰ্ত্তকীগণ নত করিতেছে। বাজারে বিবিধ দ্রব্যাদি বিক্রয় হইতেছে। এই সকল দেখিয়া শাহজাদার মন বিসময়ে পরিপণ হইয়া উঠিল। মদবারককে দেখিয়া অনেকেই চিনিতে পারিল এবং বন্ধতাসচক কুশল-প্রশনাদি জিজ্ঞাসা করিতে লাগিল। সে রাত্রি একটি বন্ধ-গহে মবোরক অবস্থিতি করিয়া, পরদিন প্রাতে মালেক সাদেকের দরবারে রাজপত্রকে লইয়া উপস্থিত হইল। দৈত্যপতির রাজসভা প্ৰবণ, রৌপ্য ও বিবিধ মণিমুক্তা দ্বারায় খচিত। স্থানে স্থানে চাঁদনী, দরী এবং মখমলের আসন বিস্তৃত রহিয়াছে। বহু পণ্ডিত, গুণী, আমীর, ওমরাহ উজুরি ও ফুকুীর বসিয়া আছে। অগরক্ষুকু সিপাহীগণ সশস্ত হইয়া দণ্ডায় T১১৭