পাতা:প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়ের গল্পসমগ্র.djvu/৩২০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


কথা স্মরণ রাখিবেন—এমন দইজন লোক চাই, যাঁহাদের নামে কোনও দিন কোনও শত্রুও কোন অধমের আরোপ করে নাই।’ তা, ভবানীশংকরজী-এ সহরের হিন্দদের মধ্যে BBBBBB BB BBu DDBBB g BBB BBB BBS BBBB B BB BBBS গ্রহণ করিতে সক্ষমত আছেন ? মুসলমান একজনকে আমি সিথর করিয়াই রাখিয়াছি । যদি সন্মত হন ত বলুন, আগামী সোমবারে বাদশাহ আবার আমায় তলব করিয়াছেন,— সেই দিন এই বিষয়ে তাঁহার পরোযানা হসিল করিয়া আসিব ।” নায়েব-কাজিগিরি । এই দিল্লী সহরের ?—বেতন যাই হোক,—উপরি আয়ও ষে বিলক্ষ্মণ ! ভবানীশঙ্কর কাজি সাহেবকে বহর ধন্যবাদ দিয়া, কম গ্রহণে নিজ সম্মতি বইপতিবার সন্ধ্যার পর মাণেকচাঁদ আবার গিয়া ভবানীশঙ্করের বারথ হইল । টাকার কথা বলিবামাত্র, আবার তিনি গালিমন্দ করিয়া মাণেকচাঁদকে তাড়াইয়া দিলেন । মাণেকচাঁদও, শনিবার প্রথম কাছারিতেই নালিস দায়ের করিবে বলিয়া শাসাইয়া গেল। মাণেকচাঁদ চলিয়া গেলে, কিছুক্ষণ পরে ভবানীশঙ্করের মনে হইল, “হায় কি করিলাম! শনিবার দিন ও যদি আমার নামে ঐ কুৎসিত নালিস কাজি সাহেবের নিকট দায়ের করে, তবে ত আমার উপর কাজি সাহেবের সন্দেহ জন্মিতে পারে। তাহা হইলে আমার নায়েব-কাজিগিরি চাকরিটাও ত ফস্কাইয়া যাইবে দেখিতেছি। তার চেয়ে বরং মাণেকচাঁদের লক্ষ টাকার লোভটা পরিত্যাগ করাই যাউক । চাকরিতে বাহাল হইলে আমন কত লক্ষ ঘরে আসিবে।” পরদিন প্রভাতেই ভবানীশংকর ভূত্য পাঠাইয়া মাণেকচাঁদকে আবার ডাকাইয়া আনিলেন। বলিলেন, “বন্ধ তোমার মুখখানি অমন রাগ-রাগ কেন বল দেখি। ঠাট্টা বোঝ না ভাই । দই দিন আমি তোমার সাঁহত একটা ঠাট্টা করিলাম বইত নয়। এই নাও তোমার লক্ষ টাকা " মাণেকচাঁদ টাকা গণিয়া লইয়া গহে ফিরল। সোমবার দিন সন্ধ্যায় ভবানীশঙ্কর কাজে সাহেবের সহিত সাক্ষাৎ করিয়া জিজ্ঞাসা করিল, “বাদশাহের পরোয়ানা বাহির হইল ? কবে হইতে আমায় এজলাস করিতে হইবে ?” কাজি সাহেব দুঃখিতভাবে বললেন, “না, মঞ্জরী পাইলাম না। বাদশাহ বলিলেন, দেশময় বড়ই দভিক্ষ বাধিয়াছে-প্রজারা অনাহারে মরিতেছে—তাহাদের খাদ্য জোগাইতেই রাজকোষ শান্য হইয়া যাইবে। এ বৎসর আর নায়েব-কাজি বাহাল করা হইবে না। একলাই আমায় সব কাজ করিতে হইবে। দেখি, এ বড়ো হাড়ে কতদিন চালাইতে পারি ” বেশ্য খন প্রায় চল্লিশ বৎসর পর্বে, একদিন সন্ধ্যার পর, কলিকাতার কোনও এক কু-পল্লীতে মহা সোরগোল পড়িয়া গিয়াছিল। এক বারবিলাসিনী খন হইয়াছে, ইহাই সকলে বলিতে লাগিল। দেখিতে দেখিতে পলিস আসিয়া উপস্থিত হইল। যে বাড়ীতে খনে হইয়াছে, তথায় পলিস গিয়া লাস দেখিল, আসামীকে গ্রেপ্তার করিল। আশচয্যের বিষয়, আসামী পলাইবার চেষ্টা মাত্র করে নাই। ইনস্পেক্টর আসিয়া সরেজমিন তদন্ত আরম্ভ করিয়া দিলেন। বাড়ীটি বিতল। ষে সকল রমণী বিতলের বিভিন্ন ঘর ভাড়া লইয়া বাস করিত, তাহারা এইরুপ এজাহার" দিল:"আজ সন্ধ্যার কিছুক্ষণ পরে, এই ব্যক্তি (আসামীকে দেখাইয়া ) সিড়ি দিয়া উপরে উঠিয়া আসে। আমরা সে সময় সাজ-সজা করিয়া, ঘরে উক্তজবল আলোক জালিয়া, খরিন্দারের অপেক্ষায় নিজ নিজ শয্যায় বসিয়া ছিলাম। আসামী প্রথমে প্রথম ঘরটির সামনে দাঁড়াইয়া, ভিতরে উপবিটার পানে অপেক্ষণ তাকাইয়া রহিল, তারপর আর একটি ঘরের সামনে দাঁড়াইল, তারপর আর একটি—বঝিলাম খরিদার জিনিস পছন্দ করিতেছে। অবশেষে সে, আমাদের মতা সখীর ঘরে প্রবেশ করিয়া কপাট ভেজাইয়া দিল। অতি অপেক্ষণ পরে সেই ঘর হইতে একটা গোঁ গোঁ শব্দ আমাদের কাণে আসিল। অrরা ভীত × »ዓ . ** --