পাতা:প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়ের গল্পসমগ্র.djvu/৩২৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


আমাদিগকেই খনী বলিয়া সন্দেহ করবে। শেষে কি ফাঁস যাইব নাকি ?” মাসুদ বলিল, “বাবা এটা ত সরাইতে হইতেছে। এখন প্রভাত হইতে বিলব নাই, কি করা যায় ?” ংসিল বলিল, “আমাদের দোকানের পাশে ষে কিওর আলি নাপিতের দোকান আছে, সেইখনেই এটাকে রাখিয়া অভ্যায়। কিওর আলি এখনি দোকান খলিবে, তাহার এক চক্ষ আধ সে তোকে দেখিতে পাইবে না। এই বেলা যা।" ইতিমধ্যে কিওর আলি আসিয়া আপনার দোকান খলিল। তখনও ভাল আলো হয় নাই। মামুদ আস্তে আসেন্ত গিয়া দেখিল, কিওর আলি পাশ্বের ঘরে গিয়া অল গরম করিবার বন্দোবস্ত করিতেছে। মামুদ তখন একটা বাঁশ মন্ডের গলার ভিতর ঢুকাইয়া, সেটাকে একখানা কুশীর উপর খাড়া করিয়া দিল। খানকতক তোয়ালিয়া কুশীর আসে পাশে জড়াইয়া দিল। এইরূপ রাখিয়া মামদে আস্তে আস্তে পলায়ন করিল। - -- জল গরম কাঁরয়া কিওর আলি দোকানে প্রবেশ করিল। একে অন্ধকার, তাহাতে এক চক্ষ নই, কিওর আলি ভাবিল, কোনও খরিদার মাথা কামাইবার জন্য আসিয়া বসিয়ছে। তাই সে বলিল, “সেলাম আলেকুম ভাই । আজ যে এত সকালে আসিয়াছ ?” এই বলিয়া আপন মনে একটা টিনের পাত্রে একটা গরম জল ঢালিল, সাবান লইল, ক্ষরখানি ছে:থাইল্প, খরিদ্দারেরর নিকট আসিয়া, সাবান জল মাখাইবার জন্য মাথাটায় হাত দিল । মাথা তৎক্ষণাৎ কুশী হইতে মেঝেতে পড়িয়া গড়াইতে লাগিল। ইহ দেখিয়া নাপিত ভয়ে এক লক্ষে দোকান হইতে রাস্তায় নামিয়া পড়িল। নামিয়া চারিদিকে চাহিয়া দেখিল, তখনও রাস্তায় কোন লোক চলাচল করিতেছে না। তথন আবার আস্তে আস্তে দোকানে উঠিয়া, মণ্ডেটা ভাল করিয়া দেখিতে লাগিল। আপন মনে বাঁচল, "এ ধে দেখিতেছি শুধই মাথা, দেহটা তবে কোথায় গেল?” পরে মণ্ডটাকে সবোধন করিয়া বলিল, “অ্যাঁ! তুই কোথা হইতে আসিলি ? আমাকে ফাঁসাই বার চেষ্টা ? আচ্ছা, আচ্ছা, আমার একটা মাত্র চক্ষ বলিয়া মনে করিস না যে, আমি বড় নিরীহ ব্যক্তি। তোকে উপসন্ত শাসিত দিতেছি। আমার দোকানের পাশে ইরানাকি নামক গ্রীসদেশীয় একজন কাবাবচি আছে, সে তাহার সবধমাবলম্বী জয় কাফেরগণের জন্য কাবাব তৈয়ারী করে। কাবাবের জন্য সে ষে সকল মাংস কাটিয়া রাখিয়াছে, তোকে তাহারই মধ্যে ফেলিয়া আসি, কাবাবচি আসিয়া অন্য মাংসের সঙ্গে তোকেও কাটিয়৷ কুটিয়া কাবাব বানাইয়া ফেলিবে । মরকে কাফের বেটারা মনুষ্য-মাংসের কাবাব খাইয়াr ইয়ানাকির কাবাবের দোকান ছিল, সরবত প্রভৃতি নানাবিধ পানীয় দ্রব্যও সে বিব্রুয় করিত। আর গোপনে বিক্ৰয় করিত মদ্য। কিওর আলি মাঝে মাঝে গোপনে ইয়ানাকির দোকানে গিয়া মদ্য পান করিয়া আসিত। কাটা মন্ডটা তোয়ালে দিয়া জড়াইয়া, পশ্চা৩ে লইয়া কিওর আলি ইয়ানাকির দোকানে গিয়া উপস্থিত হইল। ইয়ানাকি বলিল, “আদব অরিজ মিঞা । আজ এত ভোরেই তৃষ্ণা পাইয়াছে নাকি ?” কিওর আলি বলিল, “আদব আরজ ! হাঁ এখন বেশী নয়, এই এক ছটাক আন্দাজ দোয়স্তা, একটা বেশী সরবত মিশাইয়া আনিয়া দাও ত, গলাটা বড় শকাইয়াছে।” ইয়ানাকি তখন হাসিতে হাসিতে পাশের ঘরে মদ্য মিশ্রিত সরবত প্রস্তুত করুিতে প্রবেশ করিল। কিওর আলি এই সযোগে মাংসের ঝুড়ির ভিতর কাটা মণ্ডটা লুকাইয়া রাখিল। পরে ইয়ানাকি আসিলে, সরবত পান করিয়া বলিল—“গরম গরম খানিকটা কাবাব তৈয়ারি করিয়া আমার দোকানে পাঠাইয়া দাও ত, বড় ক্ষুধা হইয়াছে।” এই বলিয়া কাবাবাঁচকে পয়সা দিয়া কিওর আলি প্রস্থান করল। মনে ভাবিয়াছিল, কাবাব পাঠাইয়া দিলে, তাহা ফেলিয়া দিলেই চলিবে; ঐ ঝড়ের মাংস হইতেই কাবাব প্রস্তুত করিলে ত? কিছ পয়সা নষ্ট হইল, কিন্তু একটা মহা বিপদ হইতে মত্ত হইলাম। - २२8