পাতা:প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়ের গল্পসমগ্র.djvu/৩৫৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


মসলমান ধমে দীক্ষিত করিলেন এবং শপথ করাইয়া লইলেন যে, আর কখনও ইন্দ্রজালচচ্চা করিবে না। অতঃপর তাহাকে ক্ষমা করিয়া, সেখান হইতে প্রস্থান করিলেন। নানা দেশের রাজপত্রগণও আনন্দ মনে নিজ নিজ গহে প্রত্যাবৰ্ত্তন করিল। * পথভ্রমণে এক মাস কাটিলে পর বাদশাজাদা পনবার রামদেশে পেপছিলেন। কৈমশ \, শাহের রাজধানীতে উপস্থিত হইয়া, মহাবলে রাজদবারের ডঙ্কা বাজাইয়া দিলেন। ডকা বাজিবামাত্র কয়েকজন রাজভৃত্য তাঁহাকে কৈমশ শাহের নিকট লইয়া গেল। বাদশাহ বলিলেন—“হে যুবক, তোমার কি মাতৃচ্ছন্ন ধরিয়াছে ? কত হাজার রাজপত্র আসিয়া প্রশ্নোত্তর দানে অসমর্থ হইয়া প্রাণ দিয়াছে তাহা কি তুমি জ্ঞান না ? তোমার নিকট তোমার প্রাণের মল্যে কি কিছুই নাই ?” ইহা শনিয়া রাজপত্র বলিলেন—“পথিবীপতি, আমি বক্র কষ্ট্রে এ প্রশ্নের উত্তর সংগ্ৰহ করিয়া আনিয়াছি। আমাকে বাদশাজাদী সমীপে পাঠাইতে আজ্ঞা করন।” বাদশাহ তখন রাজকুমারকে মেহেরঙ্গেজের নিকট পঠাইয়া দিলেন। রাজকুমার মেহেরগেজের মহালে প্রবেশ করলেন। তাঁহার পশ্চাৎ পশ্চাৎ জল্লাদও আসিয়া দন্ডায়মান হইল। জল্লাদ এক টুকরা ইস্টক লইয়া তরবারিতে শান দিতে লাগিল । রাজকুমার মেহেরগেজের নিকট উপস্থিত হইয়া, কহিলেন—“বাদশাজাদি, তোমার প্রশ্ন কি ?” বাদশাজাদী কহিলেন—“গল বা সনোবর চে কন্দ ?” ভ্রাতৃহন্ত্রীকে দেখিয়া রাজকুমারের দুই চক্ষ দিয়া ক্ৰোধে অগ্নিস্ফলিঙ্গ নিগত হইতে লাগিল। তিনি বলিলেন—“গল সনোবরের সঙ্গে যাহা করিয়াছিল তাহার জন্য সে উত্তমরপ প্রতিফলও পাইয়াছে। আর তোমার কৃত দক্তের জন্য তোমাকেও সেইরুপ প্রতিফল পাইতে হইবে।” ইহা শনিয়া মেহেরঙ্গেজের মন ভয়ে আকুল হইয়া উঠিল। তথাপি সে বলিল--- “ও কথা বলিলে চলিবে না। যদি তুমি আদ্যন্ত সমসত বৰ্ত্তান্ত বলিতে পার, তবেই মানিব ।” রাজকুমার বলিলেন—“যদি গল ও সনোবরের কাহিনী শনিবার তোমার এতই ইচ্ছা, তবে তোমার পিতাকে পাত্রমিত্র সহ এইখানে আসিয়া সভা করিতে আহবান কর, আমি সে কাহিনী সভাসমক্ষে বলিব ।” মেহেরঙ্গেজ সম্মত হইলেন। রাজকুমারকে বৈকালে আসিতে বলিয়া দিলেন। বৈকালে রাজকুমার গিয়া দেখলেন, বাদশাহ পারমিত্র এবং প্রধান নাগরিকগণ লইয়া সভা করিয়া বসিয়াছেন। বাদশাজাদি ও বেগমও দইখানি সিংহাসনে বসিয়া আছেন। রাজকুমার তখন বলিলেন—“বাদশাজাদি, যাহার কাছে তুমি এ ব্যুত্তান্ত শনিয়াছ সে মনীষাকে সভায় উপস্থিত কর। কারণ আমার কথা সত্য কি মিথ্যা জিজ্ঞাসা করিবার জন্য একজন দক্ষ লোক এখানে উপসিথত থাকা আবশ্যক।” রাজকুমারী তখন বলিল—“আমি কোনও বিদেশীর নিকট একথা শুনিয়াছিলাম। এখন কোথা হইতে তাহাকে উপসিথত করিব ?” রাজকুমার কহিলেন—“আচ্ছা, আমিই না হয় একজন দক্ষ লোক এখানে উপস্থিত করিতেছি।” এই বলিয়া বাদশাজাদীর সিংহাসনের নিকট গিয়া পদ উঠাইয়া, চলের মুঠি ধরিয়া এক প্রকাণ্ডকায় হাবসীকে টানিয়া বাহির করিলেন। সভাসস্থ লোক ইহা দেখিয়া আশচষ্যান্বিত হইয়া গেল। বাদশাজাদী লড়জায় অধোবদন হইয়া বসিয়া রহিল। বাদশাহ ও বেগমও লজ্জায় বাকশক্তিবিহীন হইয়া বসিয়া রহিলেন । তখনও মেহেরতেগজ আশা ছাড়ে নাই। তখনও বলিতেছে—“বল বল গলে সনোবরের সহিত কি করিয়াছিল ?”—বাদশাজাদী ভাবিতেছিল, যদি না বলিতে পারে, তবে এখনই ইহাকে কাটিয়া লজা ও অপমানের প্রতিশোধ লইব । . .

  • - - ২৫২ ベ -ー