পাতা:প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়ের গল্পসমগ্র.djvu/৩৮৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


আর একটা দিন তখন কট করন। কাল আর আমার তাপস নেই, কাল নিজে গিয়ে আপনাকে গাড়ীতে তুলে দিয়ে আসবো।” মালতীর সঙ্গে সাক্ষাৎ হইলে সে তাহার মুখে মদ্যগন্ধ পাইল । বলিল, “তোমার গতিক ভাল নয়। তাড়িঘাটে গেলে হাতে বেশী পয়সা পেলে তুমি আরও বিগড়ে যাবে।” গিরীন্দ্র বলিল, “আরে রামঃ সে ছোট স্টেশন. অজ পাড়াগাঁ, সেখানে কি কেলনার . কোম্পানি আছে ? সেখানে গিয়ে, গঙ্গাস্নান করে, সব ছেড়ে দেব--ব্যাস একদম।” “তুমি কাল আপিসে যাবে না ?” “না আমার এখানকার সব কায শেষ হয়ে গেছে। বাবরা ধরেছে পরশ ভোজ দিতে হবে। কাল সব যোগাড়যন্ত্র করে রাখতে হবে।” r গিরীন্দ্র হস্তপদাদি ধৌত করিয়া আসিয়া বলিল, “আজ আর জলখাবার খাব না, কোথাও বেরবে না; রুটি দাও একেবারে খাই। মালতী লুচি, মোহনভোগ, মাছের তরকারী প্রভৃতি বিবিধ উপকরণ যাহা কাশীবাসিনী প্রস্তুত করিয়াছিলেন—সমস্ত আনিয়া দিল। গিরীন্দ্র অহার করিরা পরম পরিত্নস্ট হইল। বলিল, “দেখ, উনি মাংস রাঁধতে জানেন কিনা জিজ্ঞাসা কর দিকিন।” মালতী জিজ্ঞাসা করিয়া আসিয়া বলিল, “জানেন কিছু কিছু।" “দেখ, আমি একটা কথা ভাবছি। ওঁকে যদি দুই এক দিন থাকতে বলা যায়, উনি থাকেন না ? তা হলে পরশ ভোজ পর্যন্ত ওঁকে রাখা যাক। একবার জিজ্ঞাসা কর দেখি।” মালতী মনে মনে অত্যন্ত খসী হইয়া বলিল, “তুমি জিজ্ঞাসা কর না।” গিরীন্দ্র জিভ কাটিয়া, বলিল, “এ অবস্থায় কি ওঁর সঙ্গে কথা কইতে পারি ?” মালতী বলিল, “আহা মরে যাই! আজ বাড়ী এসেই ওঁর সঙ্গে কথা কইলে না ?” —বলিয়া কাশীবাসিনীর কাছে গিয়া প্রস্তাবটা করিল। তিনি সক্ষমত হইলেন। পরদিন প্রভাতে উঠিয়া গিরীন্দ্র ভোজের জিনিসের ফন্দ করিল। কাশীবাসিনী তাহা শনিয়া যে সকল মন্তব্য ও পরিবত্তনাদি প্রস্তাব করিলেন, তাহা গিরীন্দুের নিকট অত্যন্ত সমীচীন বলিয়া বোধ হইল। আড়ালে মালতীকে বলিল, “দেখ ইনি একজন খলিফা লোক! কাশীতে শধে ধৰ্ম্মকামী নিয়েই বাসত ছিলেন মনে কোরো না।” . মালতী রাগ করিয়া বলিল, “কি বল যাও ! তোমার মন ভারি অশুদ্ধ।” - দই ক্লোশ দরে গরগাঁও নামক পল্লীতে দেবী আছেন। পরদিন প্রভাতে সেইখানে ছাগবলি পাঠান হইল । রাত্রিকালে ভোজের ব্যাপার—নিবিবাঘে বলিতে পারি না-সম্পন্ন হইয়া গৈল। BBBBDD BBBBB BBBDDDS BB BBBBS BBBB BBBB BBBS BB BBBB BBS ধন্য করিতে পারিত। ' በ 8 ዘ আজ রবিবার। আজ রাত্রের গাড়ীতে গিরীন্দ্র তাড়িঘাট যাত্রা করবে। কাশীবাসিনী বলিলেন, “আমি আর দেশে যাব না—আমিও কাশীতেই ফিরে যাই।” মালতী বলিল, “বেশ ত, আপনিও তামাদের সঙ্গেই চলন। তাড়িঘাট থেকে চার পাঁচটা স্টেশন বইত নয়।" - - আহারান্তে গিরীন্দ্র মালতীকে বলিল, “গোটা ত্রিশ টাকা বের করে দাও-বাজার দেনাগুলো মিটিয়ে আসি।” -> মালতী বলিল, “অবাক কথা ! আমার কাছে আর টাকা আছে নাকি ?” "কেন, সে দিন যে আশি টাকা এনে দিলাম।” “পশ বাজারে যাবার সময় ত্রিশ নিয়ে গেলে, বাকী যা ছিল কালু সাধবেলা থেকে HHH BBB B BB DDBB BB BB BBS BB BB BBB SDDBB DBBBB BB $8.5