পাতা:প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়ের গল্পসমগ্র.djvu/৩৯৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ইহার অপেক্ষা প্রবলতর বিরধেযক্তি আর কি হইতে পারে ? শশী যখন দেখিল পিতার কাছেও কল পাইল না, তখন হতাশ হইয়া নিজের শয়নকক্ষে আসিয়া দয়ার বন্ধ করিল। - ঠিক এই সময়, ও পাড়ার একটি কুটীরে শশিভূষণের নাম উচ্চারিত হইতেছিল। কলগিন্নি তাঁতিদিদির সহিত কাশীর গলপ করিতেছিল। তাঁতদিদি বলিল—“আহা, বামনীর ভাগ্যি ভাল। সে ছেলেটা যখন মরে গেল, আমরা মনে করলাম মাগী শোকে পাগল হয়ে যাবে। ধৰ্ম্ম কমের ফল আছে বইকি দিদি, এই দেখ ধৰ্ম্ম করতে কাশী গেল বলেই না হারা ছেলেটিকে পেলে! খাসা ছেলে রাজপত্তরের মত চেহারা, নিঠের শরীর কিনা।” কলগিন্নি মাখ বাঁকাইয়া বলিল, “নিষ্ঠের কথা আর বলে কায কি! কলিকালে আরার ধৰ্ম্মম আছে না নিষ্ঠে আছে!" তাঁতিদিদি শুনিয়া অত্যন্ত কুতুহলী হইয়া জিজ্ঞাসা করিল, “কি রকম—কি রকম ?” “কি রকম আবার ? আমার মাথা আর মন্ডু।” ફટું অতঃপর চাপি চাপি অনেক কথা হইল। তাঁতিনী শুনিয়া অবাক হইয়া বলিল—“অ্যাঁ! কলগিন্নি অবশ্যই সাবধান করিয়া দিল—“কাউকে বলিসনে দিদি—দরকার কি আমাদের কার কথায় থাকবার ? যে আগমনে হাত দেবে সে নিজেই পড়ে মরবে।” তাঁতনী বলিল, “দরকার কি বোন, এ কথা কি আর কাউকে বলবার না কার শোনবার ? কাউকে বলতে হবে না। ধমের কল আপনিই বাতাসে মড়ে যাবে।” সপ্তাহ মধ্যে গ্রামে ঢৗঢ়ী পড়িয়া গেল। : মনোরমার পিতা হারাধন চক্ষ রক্তরণ করিয়া শশীর পিতা ব্ৰজহাঁরর বৈঠকখানায় প্রবেশ করিলেন। দয়ার বন্ধ করিয়া দজনে অনেক পরামর্শ হইল। ঘণ্টাখানেক পরে ব্ৰজহাঁর বাহির হইয়া শশিভূষণকে আনিয়া সেই ঘরে দয়ার বন্ধ করিলেন। ইহার পর হারাধন প্রচার করিলেন, তাঁহার কন্যা মনোরমার হাদরোগ উপস্থিত হইয়াছে, ডাক্তার দেখাইতে কলিকাতায় যাইবেন। সপরিবারে কলকাতা যাত্রা করিলেন। কয়েক দিবস পরে গ্রামের লোক শুনিল, শশিভূষণ আবার কাশীর মঠে ফিরিয়া গিয়াছে। আরও কয়েকদিন পরে শনিল, মনোরমার মৃত্যু হইয়াছে। কলিকাতায় বিদ্যাসাগর মহাশয় স্বয়ং উপস্থিত থাকিয়া বর ও কন্যাকে আশীৰবাদ করিলেন। সপরিশের চিঠি দিয়া — কলেজে শশিভূষণকে সংস্কৃতের অধ্যাপক করিয়া পাঠাইলেন। এখন শশিভূষণ পেন্সন লইয়া কাশীবাস করিতেছেন। ছেলেমেয়ে অনেকগুলি। মাঝে মাঝে সুপক্ক টিকটি নাড়িয়া, পীর হাতখানি হাতে লইয়া সস্নেহে তাহাকে বলেন—“বলি ব্রাহ্মণী, তোমার হাদরোগটা কেমন আছে ?” - হেটেলে খায় । আমি সবচক্ষে দেখেছি ।” বিদ্যাসাগর মহাশয় হাসিয়া বলিলেন—“বিদ্যাসাগরকে uB BB BBB BS BB BBBB BBBBSuD D D BBB BB BBBB BBBu SK BBH বিদ্যাসাগর জীবনীতে আছে । প্রণয়-পরিণাম በ ~ \\ হিন্দ বয়েজ স্কুলের দ্বিতীয় শ্রেণীর ছাত্র মণিকলাল, প্রতিবেশী বালিকা কুসমলতার সঙ্গে প্রেমে পড়িয়া গিয়াছে। কবি গাহিয়াছেন—কে এমন প্রেমিক আছে, যে প্রথম দশনেই ভালবাসে নাই ? –কেন, আমাদের মাণিকলাল! কুসুমের সঙ্গে বাল্যকাল হইতে সে কত খেলা করিয়াছে, গাছের - 36 (t