পাতা:প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়ের গল্পসমগ্র.djvu/৪২০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


I ! আহারাদির পর মনে হইল, চায়ের নিমন্ত্রণ হাদি রক্ষা না করি, তাহা হইলে ঠিক ভদ্রত হয় না। নিমন্ত্রণ যখন গ্রহণ করিয়াছি, তখন রক্ষা করিতে আমি বাধ্য। যদি বিশ্ববাসবিরুদ্ধই হইল, তবে সেই সময়েই আমার উচিত ছিল—নিমন্ত্রণ কাটাইয়া দেওয়া। "আজিকার মত যাই। ভবিষ্যতে সাবধান হওয়া বাইবে--আর নিমন্ত্ৰণ গ্রহণ করিতেছি না। বৈকালে যাইবার জন্য প্রস্তুত হইতে লাগিলাম। বেশবিন্যাস একটু যত্নপবেকই করিলাম। নিজেকে বঝাইলাম শধ্যে পরষ-সমাজে বিচরণ করিতে হইলে বেশভূষার তারতম্যে আসিয়া যায় না—কিন্তু রমণীসমাজে একট পারিপাট্য অবশ্যকৰ্ত্তব্য। দাজিলিঙ আমি বহুবার আসিয়াছি-পথঘাট আমার সব্বত্র পরিচিত। যখন বাড়ীর কাছে পেপছিলাম, তখন চারিটা বাজিতে দশ মিনিট বাকী আছে--নিমন্ত্রণ চারিটার সময় ! ভাবিলাম, ইহারা ইংরাজি মেজাজের লোক, যথাসময়ের পর্বে ঘাইলে হয়ত বা বাবর মনে করবে। তাই বাহিরে এদিক ওদিক একটু খেড়াইয়া, ঠিক চারিটার সময় কার্ড পাঠাইয়া দিলাম। সকলে আদর অভ্যর্থনা করিয়া আমাকে বসাইলেন। নিম্মলাকে আজ ভরি সন্দর দেখাইতেছিল। স্টেশনে যখন দেখিয়াছিলাম, তখন তাহার গায়ে ইংরাজি কেপ, পায়ে ইংরাজি জাতী—দেখিতে আমার মোটে ভাল লাগে নাই। এখন দেখিলাম, পায়ে লাল মখমলের দেশী জনতা, নারাঙ্গি রঙের তাফতা শাড়ীখানি নব্য প্রথায় পরা, মাথায় মাথাভরা চলের এলো খোঁপা এবং খোঁপায় একটি পীতবণের পাহাড়ী গোলাপ | নিশমলা বৈধ সন্দরী বটে ! সতীশকে প্রথমে দেখিতে পাইলাম না। তাহাকে নিজনে পাইলে নিমালার লাল মখমলের জুতার প্রসঙ্গে রাঙা পা দুখানি বলিয়া কেমন রসিকতা করিব, তাহা মনে মনে সাধিয়া রাখতে লাগিলাম। কিয়ৎক্ষণ পরে সতীশ আসিল । চা পান ও নানাবিধ কথাবান্ত হইলে পর সকলে মিলিয়া বেড়াইতে যাইবার পরামর্শ হইল। ঘণ্টাখানেক ভ্রমণের পর যখন বিদায় লইলাম, তখন মিসেস সেন বলিলেন, “মনমথবাব, কাল ষাঁদ আবার চায়ের সময় আসেন, তবে একত্র বেড়াতে যাওয়া যায়।” মনে হইল, এইবার সময় হইয়াছে এই বেলা নিমন্ত্রণ স্পষ্ট করিয়া অস্বীকার করি। সেই সঙ্গে অস্বীকার করিবার প্রকৃত কারণটাও খালিয়া বলিব কি? তাহার ভিতর সমাজনীতি-ঘটিত কত বড় একটা উচ্চতত্ত্ব ও তুর্দশ নিহিত রহিয়াছে, তাহ ব্যাখ্যা করিয়া লিবার এই অবসর গ্রহণ করা উচিত নয় কি ? কিন্তু আবার ভবিলাম, নিমন্ত্ৰণ কই ? যদি আসেন-ইহাকে কি নিমন্ত্রণ বলা যাইতে পারে ? এইরূপ মানসিক তকে ব্যস্ত Iাকায় কোনও উত্তর দিয়া উঠিতে পারলাম না: এদিকে ইহারাও নমস্কার করিয়া বিদায় লইলেন। - 团8俄 পরদিন প্রভাতে বেলা দশটার সময় সতীশ আসিয়া উপস্থিত। নিম্নমালাকে ছাড়িয়া কেমন করিয়া আসিল জিজ্ঞাসা করায় বলিল, “তোমার সেই হতভাগা কাগজ বঙ্গদর্শন মা বঙ্গপ্রভঃ কি দিয়ে এসেছ, সকাল থেকে তাই নিয়ে ব্যস্ত। আমি রাগ করে চলে এলাম * শনিয়া আমার মনটা ভারি খাসী হইল। সাহিত্যের প্রতি নিশমলার এত অমরোগ ! নিশমলা যদি বাঙ্গালা লেখেন তবে সংশোধন করিয়া বঙ্গপ্রভায় ছাপাই। লিম্মলার অনেক গলপ সতীশ করিল। এই দুইটি নব-প্রণয়ীর সুখে আমারও মনটা چار حصن "