পাতা:প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়ের গল্পসমগ্র.djvu/৪৩৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


যজ্ঞেশবরের সন্ত সাত শঙ্কর জানকীনাথ । আমরা সেই শঙ্কর জানকীনাথের সন্তান।” এ বক্তৃতাটি এত সংক্ষিপ্ত হইল, তাহার কারণ মদনগোপালবাব কলিকায় ফ দিতে আরম্ভ করিলেন। তাঁহার মুখভাব কিঞ্চিৎ পাবে করণভাবাপন্ন ছিল—তাহার কারণ বোধ হয় সদ্যপ্রাপ্ত সন্দেশের শোক। এখন বরং একটা গব্বিত দেখাইতে লাগিল; তাহা বোধ হয় কুলগৌরবের মতিজনিত। যাহা হউক, আমি পরম কৌতুকের সহিত লোকটির পানে চাহিতে লাগিলাম। গাড়ীও বন্ধমানে পেশছিল। আমার চর্ট ফরাইয়াছিল, নামিয়া কেলনারে গেলাম চরট কিনিতে। যতক্ষণ গাড়ী ছাড়িবার শেষ ঘণ্টা ন হইল, ততক্ষণ প্ল্যাটফমের উপর পায়চার করিয়া বেড়াইতে লাগিলাম। গাড়ী ছাড়িলে দেখিলাম, আর সকলে নামিয়া গিয়াছে, শধ্যে আমরা দইজনে আছি। মদনগোপালবাব আমার প্রতি নেত্রপাত করিয়া বলিলেন, “তারপর—সদানন্দবাবা-" আমি বাধা দিয়া বলিলাম, “আজ্ঞে আমার নাম মহানন্দ।” "ওহো ঠিক ঠিক। মহানন্দবাব, কতদর যাওয়া হবে?” “মধপর।” “আমি যাব কাশী। তুমি ত এখনি পৌছে যাবে হে! দ্য ঘণ্টা কি তিন ঘণ্টা জোর । আমায় যেতে হরে আজ সমস্ত রাত, কাল সমস্ত দিন। তাই ত বলছি কিনা, এই সমস্ত রাত সমসন্তু দিন যে গাড়ীতে কাটবে, কি খেয়ে প্রাণধারণ করি ? কাল সন্ধ্যাবেলা কাশী পৌঁছে যাব এখন ! কাশীতে আমার মা ঠাকরণ রয়েছেন কিনা। আজ তিন বৎসর তিনি কাশীবাসী। বন্ধ হয়েছেন—বয়স সত্তর বৎসরের উপর হয়েছে। এখনও প্রত্যহ ভোরে উঠে দশাশ্বমেধ ঘাটে গিয়ে স্নান করে আসেন—কি শীত—কি গ্রীম—কি বর্ষা—কি বাদল। গত ভাদ্র মাস থেকে একটু একটু ঘসে ঘাস করে জর হচ্চে শনেছি। তাই একবার ভাবলাম দেখে আসি। আছেন ভাল জায়গাতেই—কোন চিন্তার কারণ নেই। তবে কিনা কাণে শনে, সন্তান হয়ে কি করে চপ করে থাকি বলনে। আমার গরে দেবের মধ্যম পত্রটি কাশীর কলেজে অধ্যাপক, সপরিবারে থাকেন সেখানে, সেইখানেই আমার মা ঠাকরণকে রেখে দিয়েছি। গরপত্রটি অতি উপযুক্ত লোক। ন্যায়ে তাঁর সমকক্ষ কাশীতে নেই বল্লেই হয়। আমারই বয়স, একত্র খেলা করতাম সেই অলপ বয়স থেকেই বধির সক্ষমতা দেখা গিয়েছিল—” আমি বললাম, "মশাই চারটি খান কি ?” “চরন্ট ? খাই কখনও কখনও । ছেলেবেলায় যখন কলকাতায় ছিলাম, ইংরেজি পড়তাম, তখন খুবই খেতাম। তখন তোমাদের ও বাডসাই ফাডসাই ওঠেনি।—ভাল চর্ট?” আমি বলিলাম, “মন্দ নয়, দেখন না।”—বলিয়া আমার সিগার-কেস খালিয়া তাঁহার সম্মখে ধাঁরলাম। তিনি একটি চরট লইয়া ধরাইয়া লইলেন; আমিও একটি ধরাইলাম। : গাড়ী তখন রাণীগঞ্জ পার হইয়াছে। দইধারে অনেক কয়লার খনি। স্থানে থানে চতপোকার কয়লায় আগুন ধরাইয়া দিয়াছে—খব আলো হইয়াছে। কাছে খোলা ইট সাজাইয়া অস্থায়ী ঘর নিমাণ করিয়া কুলিরা বসিয়া আছে—কেহ যা খাদ্য করিতেছে। - আমারও ক্ষুধা পাইয়াছিল। ভাবিলাম এইবেলা কিছু খাইয়া লই। সঙ্গে আমার টিফিন বাস্কেট ছিল, তাহাতে বাড়ী হইতে খাবার আনিয়াছিলাম। মদনগোপালবাবর জিনিসপত্র সরাইয়া কটে টিফিন বাসেকট বাহির করিলাম। ভাবিলাম, আমি আহার করিব, আর আমার এই সহযাত্রীটি অভুক্ত থাকিবেন ? অথচ যদি আহবান করি, তবে খাইবেন কিমা তাহারও স্থিরতা নাই—কারণ আমার এ জিনিসগুলি ঠিক হিন্দুধৰ্ম্মসংগত নহে। আন মন্তয়া শিকলিম লিংকু খন উক্ত-না বা কি কাবাইল ।