পাতা:প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়ের গল্পসমগ্র.djvu/৪৬০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শ্ৰাধ করিয়াছেন। বাকী দুইশত টাকা নবকুমারের বিধবাকে দিয়াছেন । ; সাবিত্রী যখন সধবা ছিল, তখন সৰ্বর তাহার যে একটা সুনাম ছিল—সংপ্রতি তাহতে অত্যন্ত আঘাত লাগিয়াছে। যেদিন স্বামীর মৃত্যুসংবাদ আসে, সেই দিনমাত্র সে অত্যন্ত DBB BBBDDS BB BBBBB BB BBB BBBB BBBB BBDD DDS BBS দিন হইতে সে মুখখানি বিমৰ্ষ করিয়া থাকে বটে, কিন্তু সদ্যেবিধবার যেরূপ হওয়া উচিত, তাহার কিছই দেখা যায় না। প্রায় রোজই বিপ্রহরে সত্যচরণের সন্ত্রীর কাছে যায়। এ অবস্থায় এরূপ করিয়া পাড়া-বেড়ানো কি তাহার উচিত । এরপ অস্বাভাবিক বলবিধবা ত হিন্দগহে দেখা যায় না! সমবেত বন্ধগণের মধ্যে হকোটি নিয়মিতরূপে পরিক্রমণ করিতে লাগিল। এ সভাটি অদ্য প্রায় নীরব, কেবল মাঝে মাঝে কেহ কেহ বলিয়া উঠিতেছেন—‘সংসার অনিত্য সকলই মায়া! কেহ বলিতেছেন- আহা নবকুমার বড় ভাল ছেলে ছিল—আজকালকাব দিনে ও রকম প্রায় দেখা যায় না।’ একটা পরে বাহিরে দ্রুত পদশবদ শনা গেল। মহন্ত পরে, বাড়ীর চাকর চিনিবাস হাঁপাইতে হাঁপাইতে, গলদঘর্ম হইয়া, দুই চক্ষ কপালে তুলিয়া বৈঠকখানার ভিতর প্রবেশ করিল। হাঁপাইতে হপিাইতে শধ্যে দুইবার বলিল--"কত্তা ! কত্তা!" তাহার মুখে আর কোনও বাক্যনিঃসরণ হইল না—লোকটা সেইখানে মচ্ছিত হইয়া পড়িল । সকলেই অত্যন্ত বিস্মিত ও ভীত হইয়া, প্রচলিত উপায় তাহার মথে জল দিয়া, তাহাকে পাখা করিয়া ক্ৰমে তাহার চেতনা সম্পাদন করিলেন। ক্ৰমে লোকটা সৰ্থে হইতে লাগিল। সকলে তখন তাহাকে জিজ্ঞাসা করিলেন, “কি রে চিনিবাস, অমন করলি কেন ?" চিনিবাস তখন ভয়ে শিহরিয়া বলিল, “রাম রাম রাম! ভূত গে৷ কত্তা " উহার মধ্যে যে বদ্ধ বাল্যকালে কিঞ্চিৎ ইংরাজি পড়িয়াছিলেন. তিনি বললেন, "দর বেটা চাষা-ভূত কি ? ভূত আছে নকি ?” - శా চক্ষ কপালে তুলিয়া বলিল, “ভূত নাই ? ঐ পুকুরধারে বাঁশতলায় দেখগা অনেক প্রশনাদির পর ক্ৰমে ক্ৰমে চিনিবাস বলিল, কিছল পাবে যখন সে পর্কুেরে বাসন মজিয়। ফিরিতেছিল, তখন সেই পকুরের ঈশানকোণে বাঁশঝাড়ের তলায় অন্ধকারে দেখিল SBBBBBB BBBBB BB BB BB BBBS BBBB BBBB BBB কাছে আসিল—ঠিক নবকুমারের মত চেহারা--আর বলিল—ওঁরে চিনে—একবার খড়োমশাইকে ডেকে দিতে পরিস?--তাহা শনিবামাত্র চিনিবাস সমস্ত বাসন ও পাথরবাটী সেখানে আছাড়িয়া ফেলিয়া পলাইয়া আসিয়াছে। ইহা শনিয়াই খড়মহাশয় রামনাম উচ্চারণ করিতে লাগিলেন। বললেন, “ঠিক দেখেছিস ?” “ঠিক না ত কি বেঠিক দেখেছি কত্তা ; ওরে বাবারে, আর আমি সন্ধাবেলায় বাসন মাজতে যাব না।” -- - পবোঙ্ক নাস্তিক-প্রকৃতির বন্ধটি বললেন, চক্ৰবৃত্তী মশায়, ঐ কথা আপনি বিশ্ববাস করছেন ? বেটা অসাবধানে বাসনগুলো ভেঙে ফেলেছে, তাই এসে ঐ কথাটা গুজর কল্পচে t” —কিন্তু বক্তার হুদয়ের ভিতরটা গোপনে দরদের করিতে লাগিল । সে সন্ধ্যা ত কাটিল। তাহার পর, তিনচার দিন ধরিয়া, পাড়ার ভঙ্গুলোকেরা আসিয়া গগন চক্লবত্তীর নিকট সংবাদ দিলেন, কেহ দীঘির ধারে, কেন্ঠ ভাঙ্গা শিবমন্দিরের নিকট, কেহ অন্য কোথাও, নবকুমারকে দেখিয়াছেন। পরোক্ত নাস্তিক বন্ধটিকে আর সন্ধ্যার পর বাহির হইতে দেখা যায় না। অন্যান্য বন্ধেরা গগন চক্ৰবত্তীর বৈঠকখানার আসিয়া বলিতে লাগিলেন, “শাস ত মিথো হবার ময়+ অপঘাতমাতুটো হল কিনা-ও রকম ত হবারই কথা। বছরটা পর্যক, গয়ায় গিয়ে প্রেত্ৰশিলায় একটা পিঢ়ি দিইয়ে দাও, উদ্ধার হয়ে, যাবেন।” - ২১৭