পাতা:প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়ের গল্পসমগ্র.djvu/৪৮৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


आझि ।” - - আমি সন্দেরলালের বন্ধ-তাহা বিশেষ করিয়া কবিয়া অামাল সম্মতি জিজ্ঞাসা করিলেন। তাঁহার উদ্দেশ্য আমার বঝিতে বাকী রহিল না। উইল প্রস্তুত করিয়া ফেলিলাম। বন্ধ সহি করলেন। चाक्षौद्धिं इंशतःि। বন্ধ বলিলেন, “উইলখানি আপনি সঙ্গে করিয়া লইয়া যান। আর এই লউন আমার লোহার সিন্ধকের চাবি। আপনার পরিবার এখানে আছেন ?” “আছেন।” “আমার অবত্তমানে তবে আপনি দয়া করিয়া ཀྱཱ་ཝཱ་ལཱ་ লইয়া গিয়া বিবাহ পৰ্য্যন্ত আপনার বাটীতে রাখিবেন। পান্না নিজে রধিয়া খাইবে।” - আমি বলিলাম, “আমার বাড়ীতে এই দেশের ব্রাহ্মণ ঠাকুর আছে। পান্নাকে নিজে উঠিয়া বন্ধকে বললাম, “এখন আমি চলিলাম। কিন্তু আপনাকে ভাল হইতে হইবে। আরও অনেক দিন আপনাকে বাঁচিয়া থাকিয়া আমাদিগকে যন্ধের গল্প বলিতে হইবে।” - বদ্ধ আশ্রগেদগদ-কণ্ঠে বলিলেন, “রামজীর ইচ্ছা। আপনার হাতে আমার পান্নাকে, আর টাকাকড়ি, সমস্ত অপণ করিয়া নিশ্চিত হইলাম। যাহাতে পান্নার মঙ্গল হয় - তাহাই আপনি করিবেন।” '& ੇ সবেদারজীকে আমার প্রতিশ্রুতি প্রদান করিয়া বিদায় গ্রহণ করিলাম। ইহার পর একটি দিন মাত্র বন্ধ জীবিত ছিলেন। চতুর্থ পরিচ্ছেদ এক মাস কাটিয়াছে। সুবেদারঞ্জীর শ্রাদ্ধ-শান্তি হইয়া গিয়াছে। পান্নাকে আনিয়া আমার স্মীর কাছে রাখিয়া দিয়াছি। তাহার টাকা ও সিংহসদ্ধ লোহার সিন্ধকটি আনিয়া রাখিয়া দিয়াছ । প্রথম কয়েকদিন পান্না পিতামহের শোকে অত্যন্ত মিয়মাণ হইয়া ছিল। আমার পল্লীর শশ্রেষার গণে প্রলে সে সুস্থ হইয়া উঠিল। একদিন রবিবার, প্রভাতে উঠিয়া চা খাইতেছি, ভূত আসিয়া সংবাদ দিল বাব জোয়ালাপ্রসাদ সাক্ষাৎ করিতে আসিয়াছেন। আমাকে এ অনুগ্রহাইতৃিপবে আর কখনও তিনি করেন নাই। - আমি মাঝে মাঝে সমবেদারঞ্জীর সিন্ধকটি খালিয়া সেই সবণ-কেশরীর প্রতি দটিপাত করিতাম, আর ভাবিতাম, এখনও রাব জোয়ালীপ্রসাদ এ দীনের কুটীরে পদাপণ করিতেছেন না কেন ? বাহিরে গিয়া অভ্যর্থনা করিয়া উকীল সাহেবকে বসাইলাম। দই এক কথার পর তিনি বললেন, “দেখন, আপনার জন্য আমাদের ত বড় নিন্দ হইয়াছে।” জিজ্ঞাসা করিলাম, "কেন ?” “আমাদের জাতি-ভাই সকলেই বলিতেছে যে, বড়া মরিয়া গেল, তাহার পৌত্রীটা খাইতে লা পাইয়া শেষে বাঙ্গালীর অন্ন খাইতেছে—জাতি-ভাই কেহ তাহাকে আশ্রয় দিল না।” আমি আশ্চৰ্য্য হইয়া বলিলাম, “খাইতে না পাইয়া ? কেন, পান্না ত একেবারে নিঃসব লাল জল দি ভাবে স্কি দল দলে ভয় আনি কল নাই ?” জোয়ালাপ্রসাদ বিসিমতের মত বলিলেন, “উইল করিয়াছেন ? তাঁহার ছিল কি যে তিনি উইল করিবেন ? আপনি পরিহাস করিতেছেন।” - উকীল সাহেবের এই অভিনয়টকে দেখিয়া, মনে মনে আমোদ অনুভব করিলাম। 8