পাতা:প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়ের গল্পসমগ্র.djvu/৫১০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


একদিন প্রভাতে ম্যাগির নিকট হইতে একখানি পোস্টকাড পাইলাম, সে লিখিয়াছে— প্রিয় মিস্টার গুপ্ত, - আমার মা অত্যন্ত পীড়িত। আমি আজ এক সপ্তাহ কাল কমপথানে যাইতে পারি নাই। আপনি যদি দয়া করিয়া একবার আসেন তবে অত্যন্ত কৃতজ্ঞ হইব। ম্যাগি আমি যে পরিবারে বাস করিতাম, তাঁহাদিগের নিকট পর্বেই ম্যাগি ও তাহার জননী সম্বন্ধে গলপ করিয়াছিলাম। আজ প্রাতরাশের সময় টেবিলে এই সংরাদ উল্লেখ করিলাম । - গহিণী আমাকে বলিলেন, “তুমি যখন যাইবে, সঙ্গে কিছু অর্থ লইয়া যাইও । মেয়েটি এক সপ্তাহ কম করে নাই, বের্তনও পায় নাই। তাহারা বোধ হয় অত্যন্ত কটে পড়িয়ছে।” প্রাতরাশের পর, আমি কিছু টাকা সঙ্গে লইয়া ল্যাবেথ যাত্রা করিলাম। তাহাদের বাড়ীতে পেপছিয়া দরজায় ঘা দিলাম। ম্যাগি আসিয়া দয়ার খলিয়া দিল। তাহার চেহারা অত্যন্ত খারাপ হইয়া গিয়াছে। চক্ষ কোটরগত। আমাকে দেখিয়াই *F, “Oh, thank you Mr. Gupta. It is so kind—” জিজ্ঞাসা করিলাম, “ম্যাগ, তোমার মা কেমন আছেন ?” ম্যাগি বলিল, “মা এখন নিদ্রিত। তিনি অত্যন্ত পীড়িত। ডাক্তার বলিয়াছে, ফ্রাঙ্কের সংবাদ না পাইয়া, দচিস্তায় পীড়া এরপে বন্ধি পাইয়াছে। হয় ত তিনি বাঁচবেন না।” আমি ম্যাগিকে সান্দ্রনা দিতে লাগিলাম। নিজের রমাল দিয়া তাহার চক্ষ মছাইয়া দিলাম। - - ম্যাগি একটা সমথ হইয়া বলিল, “আপনার নিকট আমার একটি ভিক্ষা আছে।” আমি বলিলাম, “কি ম্যাগি?” “বসিবার ঘরে আসন, বলিব ।” পাছে আমাদের পদশব্দে পীড়িতা বন্ধা জাগরিত হন, তাই আমরা সাবধানে বসিবার কক্ষে গিয়া প্রবেশ করিলাম। মাঝখানে দাঁড়াইয়া সনেহে জিজ্ঞাসা করিলাম, “কি ম্যাগি ?” মাগি আমার মাখের পানে আকুল নেত্রে কয়েক মহত্ত চাহিয়া রহিল। আমি প্রতীক্ষা করিলাম। শেষে ম্যাগি কিছ না বলিয়া দই হন্তে মুখ ঢাকিয়া নীরবে ক্ৰন্দন করিতে লাগিল। - আমি বড় বিপদে পড়িলাম। এ বালিকাকে আমি কি বলিয়া সাল্বনা দিই?— ইহার ভ্রাতা সীমান্ত-সমরে, জীবিত কি মত তাহা ভগবানই জানেন। পৃথিবীতে একমাত্র সম্প্রবল মাতা। সেই মাতা চলিয়া গেলে, ইহার দশা কি হইবে ? এই যৌৱনোন্মুখী বালিকা, এই লণ্ডনে দাঁড়াইবে কোথা ? আমি জোর করিয়া ম্যাগির মুখ হইতে তাহার হস্তাবরণ খলিয়া দিলাম। বলিলাম, শম্যাগ, কি বলিবে বল। আমার বারা যদি তোমার কিছমাত্র উপকার হয় তাহা করিতে আমি পরাস্মুখ হইব না।” ম্যাগি বলিল, “মিঃ গুপ্ত, আমি যাহা প্রস্তাব করিব, তাহা শনিয়া আপনি কি গুষিবেন জানি না। তাহা যদি অত্যন্ত গহিত হয়, তবে আমাকে ক্ষমা করিবেন।” “কি ? কি প্রস্তাব ?” “গতকল্য সারাদিন মা খালি বলিয়াছেন, মিটার গুপ্ত আসিয়া ৰদি সেই সফটকের প্রতি কিয়ৎক্ষণ দটি করেন, তবে হয়ত ফ্রাকের কোন সংবাদ বলিতে পারেন। তিনি ত হিন্দ বটেন –আমি তাই আপনাকে আসিবার জন্য পত্র লিখিয়াছিলাম।” “তুমি যদি ইচ্ছা কর, সে অঙ্গরীয় লইয়া এস-আমি অবশ্যই পনবার চেষ্টা

õማ