পাতা:প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়ের গল্পসমগ্র.djvu/৫১১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


করিয়া দেখিব।” ম্যাগ আকুল বরে বলিল, “কিন্তু এবারও যদি নিম্ফল হয় ?” আমি ম্যাগির মনের ভাব বুঝিলাম। বঝিয়া নিস্তবধ হইয়া রহিলাম। ম্যাগ বলিল, “মিটার গুপ্ত, আমি পদতকে পড়িয়াছি, হিন্দজাতি অত্যন্ত সত্যপরায়ণ। আপনি যদি সফটিক অবলোকন করিবার পর মাকে কেবলমাত্র বলেন, ফ্রাঙ্ক ভাল আছে, জীবিত আছে—তাহা হইলে কি নিতান্ত মিথ্যা হইবে ? বড় অন্যায় হইবে ?” এই কথা বলিতে বলিতে বালিকার চক্ষ দিয়া দূরদর ধারায় জল পড়িতে লাগিল! আমি কয়েক মহত্তে চিন্তা করিলাম। মনে মনে ভাবিলাম, আমি পণ্যাত্মা নহি—এ জীবনে আমি অনেক পাপ করিয়াছি। আজ এই পাপটিও করিব । এইটিই আমার সব্বাপেক্ষা লঘু পাপ হইবে। প্রকাশ্যে বললাম, “ম্যাগি তুমি চাপ কর, কাঁদিও না। কই সে অঙ্গরীয়, দাও একবার ভাল করিয়া দেখি। যদি কিছ দেখিতে না পাই, তবে তুমি যেরপে বলিতেছ সেইরাপই করব। তাহা যদি অন্যায় হয়, ঈশবর আমাকে ক্ষমা করিবেন।” ম্যাগি আমাকে অঙ্গরীয় আনিয়া দিল। আমি সেটি হাতে লইয়া তাহাকে বলিলাম, “য়াও তুমি দেখ তোমার মা জাগিয়াছেন কি না।” প্রায় পনেরো মিনিট পরে ম্যাগি ফিরিয়া আসিল। বলিল, “মা জাগিয়াছেন । আপনার আগমন সংবাদ তাঁহাকে দিয়াছি।” “আমি এখন গিয়া তাঁহাকে দেখিতে পারি ?” “আসন।” বন্ধার রোগশয্যার নিকট উপস্থিত হইলাম। আমার হতে তখনও সেই অঙ্গরীয় । - তাঁহাকে সপ্রভাত জানাইয়া বলিলাম—“মিসেস ক্লিফড, আপনার পত্র ভাল আছে, জীবিত আছে।” এই কথা শুনিবামাত্র বাধা তাঁহার উপাধান হুইতে মস্তক কিঞ্চিৎ উত্তোলন করলেন। বলিলেন, “আপনি সফটিকে ইহা দেখিলেন কি ?” আমি আসঙ্কোচে বলিলাম, “হাঁ মিসেস ক্লিফড, আমি সফটকেই ইহা দেখিলাম।” বদ্ধার মস্তক আবার উপাধানের সহিত মিলিত হইল। তাঁহার চক্ষযগল হইত্তে আনন্দাশ্র বিগলিত হইতে লাগিল। তিনি শুধ অসফটম্বরে বলিতে লাগিলেন, “God bless you–God bless you." মিসেস ক্লিফৰ্ড সে যাত্রা আরোগ্যলাভ করলেন। পঞ্চম পরিচ্ছেদ আমার দেশে ফিরিয়া আসিবার সময় ঘনাইয়া আসিল। একবার ইচ্ছা হইল, ল্যাবেথে গিয়া ম্যাগি ও তাহার জননীর নিকট বিদায়গ্রহণ করিয়া আসি। কিন্তু সে পরিবার এখন শোকসন্তপ্ত। সীমান্ত-যুদ্ধে ফ্রাঙ্ক নিহত হইয়াছে। মাসখানেক হইল, কালো বডার দেওয়া চিঠিতে ম্যাগিই এ সংবাদ আমাকে লিখিয়াছে। হিসাব করিয়া দেখিলাম, ষে সময় আমি মিসেস ক্লিফডকে বলিয়াছিলাম তাঁহার পত্র ভাল আছে, জীবিত আছে—তাহার পবেই ফ্রাঙ্কের মৃত্যু হইয়াছে। এই সকল কারণে মিসেস ক্লিফডের নিকট আমার আর মুখ দেখাইতে লজা করিতে লাগিল। তাই আমি একখানি পত্র লিখিয়া, ম্যাগি ও তাহার মাতার নিকট বিদায় বাত্ত জানাইলাম । ক্ৰমে লন্ডনে আমার শেষ রজনী প্রভাত হইল। আমি অদ্য দেশষাত্রা করিব। পাঁরবরস্থ সকলের সঙ্গে প্রাতরাশে বসিয়াছি, এমন সময় বহিবারে শব্দ উত্থিত হইল। কয়েক মহত্ত পরে দাসী আসিয়া বলিল, “Please Mr. Gupta, মিস ক্লিফড" ২৬৮ -