পাতা:প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়ের গল্পসমগ্র.djvu/৫৩২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


দেখেছি।” মহেন্দ্ৰবাব বললেন, “তুই দেখিছিস নাকি ? বল ত!—বল ত ! কোথা থেকে দেখলি ?” “যখন ঐ গোলমালটা হ’ল, আমি দোতলায় উঠে জানালা দিয়ে দেখলাম। নলিনী আমাদের ননীর পতুল। এ ত দেখলাম একটা কাটখোটা জোয়ান।” মহেন্দ্ৰবাব অত্যন্ত আশকত হইয়া বললেন, “ঠিক বলেছিস। আমি ত সে কথা তার মাখের উপরই বলে দিয়েছি। আমি আমার জামাই চিনিনে ? তার কি আমন মিরজাপরী গণ্ডার মত চেহারা ? তার দিব্যি নধর বাবা-বাবা চেহারাটি। বিয়ের সময় একদিন মাত্র দেখেছি বটে—তা বলে এমনিই কি ভুল হয় ?” عي এইরুপ কথাবাৰ্ত্তা হইতেছে, এমন সময় একজন ভৃত্য আসিয়া বলিল, “বাব টেলিগেরাপ এসেছে।” - টেলিগ্রাম পড়িয়া মহেন্দুবাবর মুখ শুকাইয়া গেল। ইহা সেই নলিনীর প্রেরিত গতকল্যকার চারি আনা মল্যের টেলিগ্রাম। গহিণী বলিলেন, “খবর কি ?” নিতান্ত অপরাধীর মত, মাথা চলকাইতে চলকাইতে মহেন্দুবাব বললেন, “এই ত; টেলিগ্রাম এসেছে। সে তবে দেখছি জামাই-ই বটে।” গহিণী বলিলেন, “তবে এখন ফেরাবার কি উপায় হয় ?” “যাই, নিজে গিয়ে দেখি। যাবার সময় গাড়োয়ানকে বলেছিল স্টেশনে চল’। এখন ত কলকাতা যাবার কোনও গাড়ী নেই। বোধ হয় টেশনে গিয়ে বসে আছে। যাই, গিয়ে বাপ বাছা বলে ফিরিয়ে আনি।” বাড়ীর লোকে মনে করিয়াছিল, নলিনী এই ব্যাপার লইয়া শালীশালাজকে ঠাট্টা করিয়া গায়ের ঝাল মিটাইবে। কিন্তু নলিনী ফিরিয়া আসিয়া একদিনের জন্যও সে কথা উত্থাপন করে নাই। যে ভুল হইয়া গিয়াছে তাহার জন্য তাহার শবশরবাড়ীর সকলেই লজিত, অনন্তপ্ত—তাহাই নলিনীর পক্ষে যথেষ্ট হইয়াছিল। একদিন কেবল অন্য প্রসঙ্গে মহেন্দ্র ঘোষ উকীলের কথা উঠিলে সে বলিয়াছিল—“যা হোক, পরের শবশরবাড়ীতে উঠে যে আদর যত্ন পেয়েছিলাম—অনেকে সে রকম নিজের শবশুরবাড়ীতে পায় না !” [ বৈশাখ, ১৩১৩ ] আমার উপন্যাস প্রথম পরিচ্ছেদ বয়ঃক্রম দ্বাবিংশতি বর্ষ মাত্র। আমার যথেষ্ট পৈতৃক সম্পত্তি থাকাতে চিকিৎসা ব্যবসায় অবলম্বন করার তদশ প্রয়োজন ছিল না। কিন্তু গ্রামস্থ সকলেই বলিলেন-যখন এত পরিশ্রম করিয়া, এত অথব্যয় করিয়া ডাক্তারিটা পাসই করিলে, তখন প্র্যাকটিস না করাটা মোটেই ভাল দেখায় না। কথাটা যথাৰ্থ বলিয়াই মনে হইল। কিন্তু ডাক্তার চোগা চাপকান পরিহিত সফলকায় (কারণ ভাল পসার হইলে ঘি দুধ নিশ্চয়ই বেশী করিয়া I ডাক্তার হইবার উচ্চাভিলাষ আমার কোন কালেই ছিল না। আমার একমাত্র উচ্চাভি লাষ ছিল, তাহা উপন্যাসের নায়ক হইবার জন্য। বাল্যকাল হইতেই উপন্যাস পাঠে আমার অতিরিক্ত পরিমাণ আসক্তি জন্মিয়াছিল। আমার প্রথম উপন্যাস পাঠ বঙ্কিমবাবর ్ఫూన్స్ట్ర २br>