পাতা:প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়ের গল্পসমগ্র.djvu/৫৮২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


আহ্নিকটা ছেড়ে দেওয়া ভাল হয়নি। কাল থেকে ফের সরন করতে হবে!” যতীন জিজ্ঞাসা করিল, “সরেনের সঙ্গে আপনার কি প্রয়োজন, জানতে পারি কি ?” সঞ্জয়বাব ক্ষণকাল মৌন থাকিয়া, তার পর বলিলেন, “আমরা শুনেছি, সরেনবাব এখনও অবিবাহিত। তাঁর পিতাও বৰ্ত্তমান নেই, নিজেই তিনি নিজের অভিভাবক। কোথাও তাঁর বিবাহের সমবন্ধ হচ্ছে কি না, তিনি এখন বিবাহ করতে রাজি আছেন কি লা, আপনি বলতে পারের ?” - যতীন বলিল, “আজ্ঞে না—তা—ঠিক জানিনে।” চায়ের জল ফুটিয়া উঠিয়াছিল, যতীন তিন পেয়ালা চা প্রস্তুত করিল। চা-পান করিতে করতে সঞ্জীববাব জিজ্ঞাসা করিলেন, “সরেনবাব বি-এ ত পাস করলেন, এবার তিনি কি করবেন । আইন-ক্লাস জয়েন করবেন কি ?” “না, উকীল হবার তার ইচ্ছে নেই। এইবার এম-এ পড়বে।” “বাড়ীতে ওঁর কে আছে ?” “মা আছেন। কাকা-টাকা কাকী-টীকাও আছেন শুনেছি।” “ক’ ভাই ওঁরা ?” “ভাই-টাই কিছু নেই। একটি বোন আছে, তার বিয়ে হয়ে গেছে।” এই সময় সিড়িতে জুতার শব্দ হইল। যতীন বলিল, “এই বোধ হয় আসছে।” সুরেন্দ্র, যতীনের ঘরের সামনে আসিবামাত্র যতীন বলিল, “ওহে এদিকে এস। এই ভদ্রলোক দটি তোমার সঙ্গে দেখা করবার জন্যে বসে আছেন।” “ওঃ, আচ্ছা—আমার ঘরে আসন।”—বলিয়া সুরেন্দ্র অগ্রসর হইল। আগন্তুকবয় তাহার পশ্চাৎ পশ্চাৎ চলিলেন। ঘণ্টাখানেক পরে বাবরা বিদায় গ্রহণ করিলেন। যতীনের ঘরের সামনে আসিয়া সঞ্জীববাব বললেন, “আজ আসি তা হলে যতীনবাব। আবার দেখা হবে, নমস্কার।” —যতীন লক্ষ্য করিল, সঞ্জীববাবর মাখখানি হাসি হাসি। ‘আজ্ঞে, আসন, নমস্কার’— ধলিয়া সে ইহাদের সঙ্গে সিড়ি পর্যন্ত গেল। তার পর দ্বতপদে সরেনের ঘরে গিয়া ಕ್ಲ সরেন অত্যন্ত গভীরভাবে গালে হাত দিয়া বসিয়া আছে। বলিল, “ব্যাপার ক হে ?” সরেন চমকিয়া উঠিয়া যতীনের মুখপানে চাহিল। বলিল, “এরা কি জন্যে এসেছিলেন, তুমি জান যতীন ?” “পল্ট জিজ্ঞাসাই করেছিলাম হে । উত্তর দেন নি, অন্য কথা পেড়ে আমার প্রশনকে চাপা দিয়েছিলেন। কিন্তু কি জন্যে এসেছিলেন, তা অনুমান করতে পারি। কুন্দমালার । সঙ্গে তোমার বিয়ের সম্মবন্ধ করতে এসেছিলেন ত ?” সরেন্দ্র বলিল, “হ্যাঁ, কিন্তু কি আশ্চৰ্য্য কথা, বল দেখি !" “আশ্চৰ্য্য বইকি ?” “কিন্তু এর এক্সপ্ল্যানেশন কি ?” “আমি ত কিছুই খুজে পাইনে –কি হ’ল, তাই বল। রাজি হয়েছ ?” "হয়েছি। দেখ, যাই শুনলাম, উনি কৃষ্ণনগর থেকে এসেছেন, কুন্দমালার মামা, আমি খেম কি রকম হতভম্বব হয়ে গেলাম। যা যা বললেন, তাতেই আমি হাঁ ব'লে গেলাম। জাগছে রবিবারে আমি কৃষ্ণনগর যাব মেয়ে দেখতে। মেয়ে দেখে আমার পছন্দ হ’লে ওয়া দেশে আমার কাকা-মশাইকে চিঠি লিখবেন, পরে যা যা করতে হয়, সব করবেন। জাম্বা মাসেই বিয়েটা সেরে ফেলতে চান, কেন না, তার পরেই মেয়ের যোড়া বছর পড়বে। ཨ་ག་.ཝུ་ཀུམ་ একটা জিনিষ তুমি লক্ষ্য করেছু ?” ši ?” "ওর ভাইয়ের চোখের তারা? অতুলবাবা কুন্দ সম্বন্ধে যা বলেছিলেন, এরও অবিকল 89ఫి