পাতা:প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়ের গল্পসমগ্র.djvu/৫৮৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


সবিস্তারে বর্ণনা করিল। কুন্দমালা’ নামটি শনিবামাত্র কিছ না জানিয়াও সরেন যে মধরে মন্তব্যটি প্রকাশ করিয়াছিল, তাহাও উল্লেখ করতে ভুলিল না। আশ্চৰ্য্য ত! তোমার সে বন্ধ নিশ্চয়ই একজন খুব ভাল গর পেয়েছেন, যোগসিদ্ধ বোধ হয় ?” সরেন্দ্র বলিল, “ছাই সিদ্ধ।” “তবে ? তিনি কি করেন ?” "এই আমরা সকলেই যা করি। অন্নের জন্যে রাত জেগে বই মুখস্থ করে এগজামিন পাশ করেছেন, তার পর চাকরীর উমেদারী –ওটা কি জান ? এক একজন মানুষের ঐ রকম একটা ক্ষমতা জন্মে যায়। আপনা আপনি জন্মায়, তার জন্যে জপ-তপ সাধনাটাধনা কিছই করতে হয় না। ওকে বলে ক্লেয়ারভয়েন্স—ক্লিয়ার ভিশন—দিব্যদটি আর কি। আর, ওরকম ক্ষমতা যার আছে, তাকে বলে ক্লেয়ারভয়েন্ট।”—মরবিয়ানা-স্বরে এই কথাগুলি বলিয়া সরেন গোবিন্দ চোঁট্রর ক্ষমতার কথা এবং অস্ট্রেলিয়ান সাকাস দলের সেই মেমের ক্ষমতার কথাও যথাশ্রত রণনা করিল। কিয়ৎক্ষণ কুন্দ বিসময়ে সতব্ধ হইয়া রহিল। তার পর মিনতির সবরে বলিল, “হ্যাগ, তুমি এবার যখন এখানে আসবে তাঁকে সঙ্গে করে নিয়ে এস না। আমি তাঁকে দেখবো ।” সরেন বলিল, “সে ত এখন কলকাতায় নেই। পাঞ্জাব গেছে চাকরী করতে। যে দিন সে ঐ সব কথা বললে, তার পরদিনই সে চলে গেছে। রাইবেরেলাঁ হাই স্কুলের হৈড মাস্টারী চাকরী নিয়ে সে গেছে।” - কুন্দ শুইয়া ছিল. হঠাৎ উঠিয়া বসিয়া বলিল, “কি বললে ঐ রাইবেরেলাঁ ইস্কুলের হেড মাস্টার : সরেন, কুন্দমালার এই হঠাৎ উত্তেজনায় বিস্মিত হইয়া বলিল, “হ্যাঁ। কেন ?" “তোমার বন্ধর নাম কি বল দেখি ?” “অতুল—অতুলচন্দ্র গাঙ্গলী।” “ও আমার পোড়াকপাল!—বলিয়া কুন্দ মখে হাত চাপা দিয়া ফলিয়া ফলিয়৷ হাসিতে লাগিল। হাসি আর থামে না। "কেন ? কেন ? হাসছ কন ?”—বলিয়া সরেনও উঠিয়া বসিয়া, কুন্দমালার মখ হইতে হাত টানিয়া খুলিয়া দিল । -- - আরও মিনিটখানেক হাসিয়া তার পর কুন্দ আত্মসম্বরণ করতে পারিল। বলিল, "হাসছি কেন জান ? তোমার সে বন্ধটি যোগাঁও নন, ঋষিও নন, গোবিন্দ চেটিও নন, ক্লেয়ারভয়ান্টও নন। তিনি আমার অতুল-দা। ঐ যে আমার মামা তোমায় দেখতে গিয়েছিলেন, তিনি অতুলদার পিসেমশাই। অতুলদা ত কতবার এখানে এসেছেন। বাবা তাঁকে একটি ভাল পাস-করা পারের সন্ধান করবার জন্যে চিঠি লিখেছিলেন, অতুলদা-ই ত বাবাকে তোমার কথা লেখেন। অতুলদা রাইবেরেল চলে ষাবেন বলেই দাদাকে নিয়ে মামা তাড়াতাড়ি ঐ দিন তোমায় দেখতে গিয়েছিলেন। তিনি যখন তোমাদের ভোজের সভায় ঐ ক্লেয়ারভয়েণ্টগিরি ফলাচ্ছিলেন, তখন তিনি বিলক্ষণ জানতেন যে, মামাবাব দাদাকে সঙ্গে নিয়ে পরের দিন ১০টার গাড়ীতে কৃষ্ণনগর থেকে কলকাতা রওয়ানা হবেন। বাবা আগে তাঁকে চিঠি লিখেছিলেন ষে !” “তোমায় সে দেখেছে ?” “হাজার দিন ।” ಗ್ವತ್ಗ ' তার পর বলিল, “কি আশ্চৰ্য্য ব্যাপার ঐ ভাৗর ঠকানটাই শালা আমাদের ঠকিয়েছিল ত উৎ— সামনে থৈকে একটা পদৰ্ণ উঠে গেল। আমায় ஃே. ಫಿ সময় চােখের - ৩৪২ " .