পাতা:প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়ের গল্পসমগ্র.djvu/৬০৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


সাহেবকে দেখিবামাত্ৰ সবোধ নতমস্তকে সেলাম করিলেন। লাটসাহেব স্মিতমুখে হন্তোত্তোলন করিয়া তাঁহার সেলাম প্রতাপণ করিলেন। কদলীবীক্ষ ও পত্রপম্পের সহজ। নিরীক্ষণ করিলেন। গেটের শাঁস দেশে শাদা জমির উপর লাল অক্ষরে লেখা ছিল । Long'Live Fuller. Welcome to Dinajshahi দেখিয়া একটা মন্দহাস্য করিলেন। ক্ৰমে ফেটন অদৃশ্য হইয়া গেল। w ঘোড়দৌড়ের ময়দানে শামিয়ানা টাংগাইয়া দরবার সজিত হইয়াছে। বেলা দশটার সময় দরবর। নয়টা বাজিলে পর একখানি ঠিকাগাড়ী আনাইয়া সবোধবাব দরবারে উপস্থিত হইলেন। পয়সা বচাইবার জন্য গাড়ীখানি বিপায় করিয়া দিলেন : পপরত্রেই গহে ফিরিবেন। দরবারে লোকসংখ্যা অত্যন্ত তলপ রাজা ও জমিদারের মধ্যে দুই তিনজন মাত্র BBBBB BBBS BBB BBBB BBBBSB BBBS BBBB BBBB BBBS BB পত্ৰণ করিবার জন্য কাছারির আমলাগণকেও নিমন্ত্রণ কার্ড দেওয়া হইয়াছে। ইহাতে গরীব আমলারা বড়ই বিপন্ন হইয়া পড়িয়াছে। তাহদের অলপ বেতন. কোন ক্ৰমে দিনের দিন কাটাইয়া দেয়। কাছারি যাইবার জন্য একস্ট মাত্র পোষাক আছে, তাহা দরবারের উপযুক্তই নহে। অনেকে চোগা ও চাপকন চাহিয়া চিন্তিয়া সংগ্রহ করিয়াছে। যাহারা পারে নাই, তাহারা কাছারিরই সেই ছিন্ন চািপকান, মলিন শামলা এবং তালি দেওয়া জুতা পরিয়া আসিয়াছে—না আসিলে চাকরি যায়। ডেপটি, মনসেফ, আমলা প্রভৃতি সরকারী চাকর ছাড়া, হিন্দই বল আর মসলমানই বল, কে সরকারী লোক অত্যন্তই অম্পসংখ্যক। আঞ্জুমান ই-ইসলামিয়ার জন পনরো মুসলমান সভ্য উপস্থিত হইয়াছেন। - ক্ৰমে শভকেশ প্রসন্নবদন ফলার সাহেব দরবারে প্রবেশ করিলেন। সকলে নীরবে দন্ডায়মান হইল। সঞ্জ-মান-ই-ইসলামিয়ার অভিনন্দনপল্ল পঠিত হইল। ফলার সাহেব প্রথমে ইংরাণিতে ও পরে উন্দ ভাষায় বক্তৃতা করিলেন। তাহার পর "ইন্ট্রোডক্সনের” পালা । ম্যাজিস্ট্রেট সাহেব একে এক বড় বড় লোকগণকে লাটসাহেবের নিকট উপস্থিত করলেন। সবোধবাব ও সাহসপ্লবেক মাজিস্ট্রেট সাহেবের নিকট গিয়া দাঁড়াইলেন। ম্যাজিস্ট্রেট সাহেব তাঁহাকেও লাটসাহেবের নিকট পরিচয় করিয়া দিলেন। ফলার সাহেব সবেধের সহিত করমদন করিয়া বলিলেন, “তুমিই কি আসিবার সময় পথে আমাকে “আন্সে হাঁ।” ”তোমার গহে বেশ সাজানো হইয়াছিল । * আমি তোমার সরচির প্রশংসা করি । তুমি উকীল ?” “উকীলের ভাবী রাজদ্রোহী-—আমি তাহাদেব উপর অত্যন্ত চটিয়াছি। তুমি দেখিতেছি সুরেন্দ্র ব্যানাজীর ইঙ্গিতে বাঁদরনাচ নাচিতে সক্ষমত হও নাই।” “আমি লোকের কথায় নিজ কৰ্ত্তব্য বিস্মত হই না হজের।” “বেশ। তুমি বৈকালে সাকিট হাউসে আমার সঙ্গে প্রাইভেট ইণ্টারভিউ করতে আসিও ”—বলিয়া ফুলার সাহেব সুবোপকে বিদায় দিলেন। পরে অনালোকে “ইষ্ট্রোডিউস” হইল। ক্লমে দরবার ভংগ হইল । সবোধ বাহির হইয়া আসিতেছিলেন : এমন সময় ম্যাজিস্ট্রেট সাহেব তাড়াতাড়ি আসিয়া, পকেট হইতে একখানি প্রাইভেট ইন্টারভিউর নামহীন কার্ড বাহির করিয়া, সবোধকে দিলেন। বলিলেন—“তোমার অদষ্ট সুপ্রসন্ন; Եր