পাতা:প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়ের গল্পসমগ্র.djvu/৬১১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


পরদিন প্রাতে, সাহেবমারা ঘটনা লইয়া রাজপুরুষ মহলে হল:থল পড়িয়া গেল। ম্যাজিস্ট্রেট সাহেব একেবারে আগমন হইয়া উঠিয়াছেন। পলিসকে হুকুম দিলেন, তিন দিনের মধ্যে আসামী ধরিয়া বিচারাথ প্রেরণ করিতে হইবে । তদন্তভার কোতোয়ালীর দারোগা বদনচন্দ্র ঘোষের উপর পড়িল। দারোগাবাব সাহার নিদ্রা ত্যাগ করিয়া, সহঁরময় ছটাছটি করিয়া প্রমাণ সংগ্রহ করিতে লাগিলেন। কয়েকনে ছোকরা দলের উকীল ও BBBB BBBB BBBB BBSBBS BB BB BBB BBBBB BBBBBB BBBS কেও ধত করিলেন । একদিনেই তদন্ত অনেকদর অগ্রসর হইয়া পড়িল। পরদিন ভোর ছয়টার সময় সেইমাত্র ডাক্তারবাব শয্যাত্যাগ করিয়া বারান্দায় বসিয়া ধমপান আরম্ভ করিয়াছেন, ধতি ও চাদরে সজিত হইয়া, রপা-আঁধানে বেতের ছড়ি ঘরাইতে খরাইতে, হেলিতে দলিতে দারেগা বদনচন্দ্ৰবাব আসিয়া দশন দিলেন। দুই চারিটা বাজে কথার পর দারোগীবাবু বলিলেন, “আর ত মশায় চাকরি থাকে না।” ডাক্তারবাব ঔৎসক্যের সহিত বলিলেন, “কি হয়েছে ?” “পরশমকার সেই সাহেব-মারা মামলাটা নিয়ে বড়ই বিপদে পড়েছি।” "কেন ? আসামী ত অনেকগুলি ধরেছেন শনলাম।”—বলিয়া ডাক্তারবাব একট ব্যঙ্গসচক মন্দহাস্য করিলেন। দারোগাবাব তাহা গায়ে না মাখিয়া বললেন, “আসামী ত গ্রেপ্তার করেছি, কিন্তু সাক্ষী প্রমাণ ভাল পাওয়া যাচ্ছে না।” “সাক্ষী প্রমাণ নেই ত গ্রেপ্তার করলেন কি করে "—বলিয়া ডাক্তারবাব আবার ঈষৎ বকুহাস্য করিলেন। “গ্রেপ্তার ঠিক লোককেই করেছি। ঐ সব ছোড়াগুলো বড়ই দুদন্তি। এক একটা গড়ো। স্বচক্ষে এমন কতদিন দেখেছি, ম্যাজিস্ট্রেট সাহেব রাস্তা দিয়ে টমটম হাঁকিয়ে মাস্টেন, ওরা উলেটাদিক থেকে আসছে : সেলামটা পৰ্য্যন্ত করলে না।” “তাই গ্রেপ্তার করেছেন - “ “না না তা নয়, ওরাই সাহেবকে মেরেছিল তাতে আর সন্দেহ নেই। সাক্ষী আছে, কিন্তু মতলব সাক্ষী তেমন পাওয়া যাঙ্গে না।” “তবে মিছে কেন ভদ্রলোকের ছেলেগুলোকে হাজতে পরে রেখেছেন, ছেড়ে দিন " দারোগাবাব আড়স্ট হইয়া বলিলেন, “সব্বনাশ ! তা হল কি চাকরি থাকবে ? মাঝে আর একটি দিন মাত্র অাছে পরশ বিচার। এর মধ্যেই সমস্ত প্রমাণাদি সংগ্রহ করতে হবে। তাই এখন আপনার কাছে আসা ।” ডাক্তারবাব আশ্চর্য হইয়া বলিলেন, “আমার কাছে ? আমি কি করব ?” “আজ্ঞে হেহে –আপনি ত সে দিন সেখানে উপস্থিত ছিলেন শুনলাম—সাক্ষীটে দিতে হচ্চে।”—বলিয়া দারোগাবাব সুপ্রচর দাডি গোঁফের মধ্য হইতে দন্তরাজির শত্রশোভা বিকাশ করিয়া ডাক্তারবাবর মুখপানে প্রতিপণে দটিপাত করিতে লাগিলেন। ডাকারবাব বললেন, “আমি সেদিন স্টেশনে ছিলাম বটে, কিন্তু ঘটনাস্থলে ছিলাম না—অথাৎ যে সময় ঘটনা হয়, সে সময় সেখানে ছিলাম না। মারপিট হয়ে গেলে পর আমি সেখানে গিয়ে দাঁডিয়েছিলাম , সাহেবকে কে মেরেছে তা আমি কিছুই দেখতে পাইনি।” দারোগারাব ষেন কতই বিমৰ্ষ হইয়া বলিলেন, “তাই ত! বড় মকিল হল যে ! আহা, এ কথা যদি আগে জানতাম।” “কেন, হয়েছে কি ?” ঘাড়টি नाज़िक নাড়িয়া, ভ্ৰকুঞ্চিত করিয়া দরোগাবাব বলিলেন, “না জেনে বড়ই অন্যায় করে ফেলেছি। আপনাকে বড়ই বিপদগ্রস্ত করেছি।" SJ