পাতা:প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়ের গল্পসমগ্র.djvu/৬১৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


BBS BBBBS BB BBBBB BBS BBS BBS BBS BBS BBS BBB প্রভাত দারোগাবাবর জন্তার ঠোক্করে চারিদিকে ছিড়িয়া উড়িয়া পড়িতে লাগিল। ডাক্তারবাবুর বধমাতার বাক্স হইতে, অজয়চন্দ্রের হস্তলিখিত এক বাডিল পত্র বাহির হইল। দারোগা সগবে তাহা নিজ পকেটে ভরলেন। অজয়ের বাক্স হইতে একখানি “আনন্দ মঠ পতেক বাহির হইল,—তাহা দেখিয়া দরোগাবাব উল্লাসে চীৎকার করিয়া উঠিলেন । কনেষ্টবলের হাত হইতে অতি সন্তপণে তাহাঁ নিজ জিমায় লইলেন। পরে বাবর প্রোকৃপসন বহি, তিনটা চিঠির ফাইল, বাজার খরচের হিসাব বাঁহ, সরেন্দ্রবাবর বাঁধানো ছবি, বিপিন পাল, লাজপৎরায় প্রভৃতির ছবিষাক্ত একখানি মাসিকপত্র-সমস্তই দারোগাবাব ধত করিয়া লইলেন। ঔষধের আলমারি খালিয়া, একপথান হইতে একটি শাদা বোতল বাহির করিলেন । তাহাতে আপধ বোতন্ত্র পরিমাণ কি একটা পদার্থ ছিল, SSBBBB BB BBBBB uS BBB BBS BB BBBBB BBBBBB BBBB ঘাণ লইলেন। পরে সাক্ষীবিয়কে বলিলেন, “ডাক্তার তয়ের লোক -একট হবে ?” সাক্ষী দুইটি বলিলেন, “না মশায়, আমরা মদ খাইনে ৷” দ্বারোগাবাব তখন একটুি মেজর গুলাসে খানিক ঢালিয়া, এক মহত্তে তাহা নিতজলা পান করিয়া ফেলিলেন। পরমহকে মুখ শিটকাইয়া বলিলেন, “এটা কি ? ব্রান্ডি বটে ত ” সাক্ষীগণ লেবেল পড়িয়া বললেন, “হাঁ ব্লাড়িই বটে।” অতঃপর শয্যাগহে প্রবেশ করিয়া দ্বারোগাবাব বললেন, “গদি বালিসগুলো কাট ত। অনেক সময় বালিসের ভিতর থেকে মাল পাওয়া যায়।” কনেকটবল তখন বাড়ীর সমস্ত বিছানাপত্র লইয়া গিয়া উঠানে গাদা করিল। গদি বালিস একে একে কাটিয়া সমস্ত তুলা বাহির করিয়া ফেলিল। তুলা বাতাসে উড়িয়া উড়িয়া পাড়া ছাইয়া গেল। কোনও মাল- বাহির হইল না। এইরূপে খানাতল্লাসী শেষ হইল। দারোগাবাব তখন কাগজ কলম লইয়া, দুব্যগলির ফিরিসিত করিতে লাগিলেন। কিয়ন্দর অগ্রসর হইয়া হঠাৎ বনবাব বলিয়া উঠিলেন—“হ্যাঁ হা- লাঠি আছে কি না দেখ।” কনোটবলগণ তখন চতুদিকে লাঠি অন্বেষণে প্রবত্ত হইল। বীর পশ্চিমে ভৃত্য শিউরতলের সম্পত্তি মজঃফরপর জেলা হইতে আনীত উত্তম পাকা বাঁশের দুইটি লাঠি বাহির হইল। সে দুইটি হাতে লইয়া, চশমা চক্ষে দিয়া দারোগাবাব সাবধানে পরীক্ষা করিতে লাগিলেন, কিন্তু কোথাও রক্তচিহ্ন দেখা গেল না। ফিরিসিততে লিখিলেন— “বহং বাসের লাঠি দুইটী রক্তের চীণ পরেই ধৌত করিয়া ফেলিয়াছে দেখা যায়।” ফিরিঙ্গিততে সাক্ষীগণের সহি লইয়া, হরগোবিন্দবাবকে ব্যঙ্গসচক একটি সেলাম করিয়া সদলবলে দারোগা প্রস্থান করিলেন। ডাকুরবাব এতক্ষণ পাকশালার বরাদার একটি কোণে একটি চেয়ারে চাপ করিয়া বসিয়াছিলেন –পাকশালার মধ্যে মহিলাগণ আবদ্ধ ছিলেন, তাই ডাক্তারবাব একমাহভের ভন্যও পথান ত্যাগ করেন নাই। দারোগ চলিয়া গেলে হরগোবিন্দবাব বাহিরে আসিলেন। সাক্ষী দুইজন তখনও সেখানে দড়িাইয়া ছিলেন। হরগোবিন্দবাব গিয়া বলিলেন, “মশায় দেখলেন?” বাব, দুইটি বলিলেন, “দেখলাম ত।” “আমার সঙ্গে ম্যাজিষ্ট্রেট সাহেবের কাছে একবার আসতে পারেন ?” একটি বাব বলিলেন, “কি হবে ?” ミ*