পাতা:প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়ের গল্পসমগ্র.djvu/৬১৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


মানের দোকানের চপ, কাটলেট, শিক-কাবাব ত দরের কথা—পাউরটি বিস্কুট পৰ্য্যন্ত তি হইয়াছে। অধিকাংশ ছত্রের মস্তকে টিক। ব্রাহ্মণ-ছাত্রেরা সন্ধ্যহিক না করিয়া জল গ্রহণ করেন না। বঙ্কিমবাবর দেবীচৌধরাণী সদা প্রকাশিত হইয়াছে। অনেকে BBB BBB BBBB BBBBS BBBB BBBB BBBB BBBBS BBB BBB হরিসভা। টেজের উপরেও শ্রেণীবিশেষের সীলোকেরা শ্ৰীকৃষ্ণ, গৌরাঙ্গদেব সাজিয়া নতা আরম্ভ করিয়াছে। দইজন ছাত্র একদিকে, রামনিধি একদিকে। রামনিধিবাবর মতটা একটু খাণ্টানী রকমের ছিল। ম্যানেজারের হকুমে প্রতি একাদশীতে বাসায় ভাত বন্ধ। সকালে ছাত্রেরা যৎকিঞ্চিৎ ফলমল প্রভৃতি আহার করিয়া কলেজে যাইত;—রাত্রে লড়ী, পায়স, মোহনভোগ প্রভৃতির বন্দোবসত। রামনিধিবাব রাত্রে সকলের সঙ্গে একাদশী’ করতেন বটে, গলদাচিংড়ী ভাজা প্রভৃতি আনাইয়া ভক্ষণ তন। এই জন্য বাসার সকলে তাঁহার উপর রাস্ট ছিল। কেহ ঠাট্ট বিদুপ করিত-কেহ বা গভীর ভাবে উপদেশ দিত। শরৎবাব বলিলেন, "রামনিধিবাব যাই বলন না কেন, আমাদের হিন্দুধৰ্ম্মটা একেবারে হামবাগ নয়। এতে আগাগোড়া সায়েন্স—উঠতে সায়েন্স—বসতে সায়েলস--শতে | আপনি আমাদের মত কিছু দিন একাদশী করে দেখন দেখি সবাস্থ্যের কত পকার হয় ।” রামনিধি অবিশ্ববাসের হাসি হাসিয়া বলিলেন, "আচ্ছা, একাদশী করার মধ্যে কতটুকু সায়েন্স আছে বুঝিয়ে দিন দেখি।” বাসার ম্যানেজার কাত্তিকবাব বললেন, “কতটুকু সায়েন্স –সম্পণে সায়েন্স-ষোল আনা সায়েন্স। অমাবস্যা পণিমাতে মানষের শরীর খারাপ হয়, হাত পা কামড়ায়, বেতো রোগীর বাত বন্ধি হয়, জবর হয়—এ সব মানেন ত ? না, তাও মানেন না ?” “মানি।” “কেন হয় ?” “জানিনে!” “শরীর রসস্থ হয় বলে। সেই রসকে শকিয়ে রাখবার জন্যে একাদশী করার ব্যবস্থা !" রামনিধিবাব বললেন, “বেশ ত: তা হলে অমাবস্যা পণিমাতে উপবাস করলেই হয়—একাদশীতে কেন ?” কাত্তিকবাবা বলিলেন, “ওর মধ্যে একটা গণিতশাস্মঘটিত গঢ় কথা আছে। এই দেখন, চন্দ্র এক মাসে পথিবী পরিক্রমণ করেন, বটে ত?" “বটে לל ੋੜ পরিক্রমণে হল তিনশো ষাট ডিগ্রী। ঠিক কিনা ?” *ਿ “ x * “এক পক্ষে হল একশো জাশী ডিগ্রী। প্রতিপৎ থেকে একাদশী হয় তার দইতৃতীয়াংশ। একাদশী থেকে পণিমে হল এক-তৃতীয়াংশ কেমন ?” - "একশো আশী.ডিগ্রীর এক-তৃতীয়াংশ হল ষাট ডিগ্রী। একটা সমত্রিভুজের প্রত্যেক কোণ কত ডিগ্রী করে মশায় ?” রামনিধিবাক বলিলেন, "ষাট ডিগ্রী।” কাত্তিকবাব সগবে বলিলেন, “এই দেখনে—সেই জন্যেই একাদশীর দিন উপবাসের ব্যবস্থা। ষাট ডিগ্রী—equilateral - triangle—সমত্রিভুজ—শরীরের সমস্ত রস equilibrium—সমতা প্রাপ্ত হবে বলেই একাদশীতে উপবাসের ব্যবস্থা মানি ঋষিরে কয়ে গেছেন।” শরৎবাব বললেন, “আর এটাও ত আপনার বোঝা উচিত রামনিধিবাব, যে যাঁরা २8