পাতা:প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়ের গল্পসমগ্র.djvu/৬২৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


মহাশয়ের কক্ষে আসিয়া ধসিল। শচীন্দ্রবাব বলিলেন, “ভটচাষ মশায়, তার এক ছিলিম তামাক সাজব ?" “তা সাজ না হয় ।” - শরৎবাব বলিলেন, “সত্যি থানায় গেল নাকি : একজন কেউ পিছন পিছ গিয়ে দেখলে হয়।” তামাক প্রস্তুত হইল। ভট্টাচাষ্য মহাশয় কম্পিত হতে হঠকাটি ধরিয়া টান দিতে লাগিলেন। শচীন্দ্ৰবাব বললেন, “বিনয়বাব আচ্ছা এতে কি মানহানি হয় ?” বিনয়বাব বললেন, “মানহানি ? হয় কি না জিজ্ঞাসা করছেন ?" কাত্তিকবাব বললেন, “আর বলে গেল ভয় প্রদর্শন।" বিনয়বাব অত্যন্ত বিজ্ঞতার সহিত বলিলেন, “মানহানি হল ডিফ্যামেশন—আর ভয় প্রদর্শন হল ক্লিমিন্যাল ইন্টিমিডেশন।" শরংবাব বলিলেন, “কোনও ধারার মধ্যে পড়ে নাকি ?” বিনয়বাব বলিলেন, "তাই ত ভাবছি। ও সম্বন্ধে কি যেন একটা রলিং আছে! মাদ্রাজের কি বোম্বাই হাইকেটের নজির সেটা। উ-হা-বোধ হয় এলাহাবাদ। বইটে দেখতে হল।”—বলিয়া বিনয়বাব উঠিয়া গেলেন। ভট্টাচাৰ্য' মহাশয় হঠকাটি রাখিয়া হঠাৎ দাঁড়াইয়া উঠিলেন। বলিলেন, “দেখ, হঠাৎ একটা কথা মনে পড়ে গেল। বাদুড়বাগান এখান থেকে কত দর?" একজন বলিল, “কাছেই ।” "সেখানে আমার একটি জানিত লোক আছে। তার কাছে একবার যেতে হল।” কাত্তি’কবাবু বলিলেন, "এই রাত্তিরে : কাল সকালে যাবেন এখন।" ভট্টাচাৰ্য্য বললেন, “উহু-না না। বড়ই জরুরি কাজ, এখখনি না গেলেই নয়।” কপিতপদে ভট্টাচায্য মহাশয় চটিজতো পরিধান করিলেন। কল্পিত হস্তে ক্যাবিশের ব্যাগটি লইয়া, সকলের বিস্তর বাধা সত্ত্বেও, রাস্তায় বাহির হইয়া পড়িলেন। মাখে অনবরত বলিতে লাগিলেন “রাম রাম" “দগণ দগে", আর ক্ৰমাগত পশ্চাৎ ফিরিয়া দেখিতে লাগিলেন, গেরেপ্তারি ওয়ারেন্ট লইয়া পলিস আসিতেছে কি না। তিনি চলিয়া গেলে বাসার ছেলেরা দেখিল তাড়াতাড়ি ভুলিয়া ব্রাহ্মণ ভাঙ্গা ছাতাটি ফেলিয়া গিয়াছেন। চতুথ পরিচ্ছেদ ৷ গাহহীন রামনিধিবাব পথে বাহির হইলেন, কিন্তু কোথায় যাইবেন ? কলিকাতায় বিশেষ কোনও পরিচিত লোক নাই। কোথায় আশ্ৰয় লইবেন ? তখন রাত্রি পৌনে এগারোটা। ধন্মতলা অডিমখে শেষ ট্রাম যাইতেছে। না ভাবিয়া চিন্তিয়া হঠাৎ তাহাতে উঠিয়া পড়িলেন। রামনিধিবাবর মস্তিক তখন বিকৃত। ক্ষোভে, অপমানে, লজায় তিনি জজর। ট্রাম একটা থানার পাশ দিয়া যাইতেছিল দেখিয়া হঠাৎ নামিয়া পড়িলেন। নালিস করিতে হইবে—তাঁহার অপমানকারিগণকে জব্দ করিতে হইবে। থানার সম্মখে আসিয়া থামিলেন। ভাবিলেন, আজ থাক। রাগের মাথায় একটা কাজ করিয়া বসা ভাল নয়। কলা তখন ভাবিয়া চিন্তিয়া, বঝিয়া সঝিয়া যাহা হয় করা যাইবে। ব্যাগটি হাতে করিয়া ধীরে ধীরে রাজপথ অতিক্ৰম করিয়া কুমে গড়ের মাঠের নিকট উপস্থিত হইলেন। রারি অন্ধকার। গ্যাসের অস্পষ্ট আলোকে মনমেটের দিকে পদ মনমেন্টের চারিপাশে যে উচ্চ চকতন্তু, আছে, তাহাতে উপবেশন করিয়া, भाषाम