পাতা:প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়ের গল্পসমগ্র.djvu/৬৬৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ভয় নেই। বিপদ যা তা কেটে গেছে। আমরা সেবা শশ্রষা করব—আপনার কোন চিন্তা নেই—আপনি বাড়ী যান।” অনেক বুঝাইতে, বিনোদিনী সন্মত হইলেন। ক্ষেত্রমোহনকে বলিলেন—“তুমি তবে সীমায় হালিসহরে নিয়ে BBBS BB BBBB BBBS BB BBBB BBB ggBB BBBB পৌছে দিতে হবে।” ক্ষেত্রমোহন তাহাই করিলেন। হালিসহরে রাত্রি কাটিল । BBBB BBB BBBBB BB BBB BBBB BBB SKeSJS BBBB BBBBB করিয়াছেন, এমন সময় বাড়ীর বাহিরে মহা গণ্ডগোল উপস্থিত হইল। তাড়াতাড়ি হংকং রাখিয়া বাহিরে গিয়া দেখিলেন, লালপাগড়ীতে বাড়ী ঘেরাও করিয়া ফেলিয়াছে। আশবপষ্ঠে স্বয়ং পলিসের সুপারিন্টেডেণ্ট সাহেব দয়ারে দাঁড়াইয়া। সঙ্গে কয়েকজন দারোগা ও হেড কনেচটবলও আছে । পলিস সাহেবের সঙ্গে ক্ষেত্রবাবর পরিচয় ছিল। নত হইয়। সাহেবকে সেলাম কারলেন । সাহেব চর্যট মখে বলিলেন—“হেল্লো মুখটিয়ার, টমি হেখানে খি খড়িতেছে ” ক্ষেত্রবাব বলিলেন—“হজর, এই আমার বশরবাড়ী।" - "ইহা টোমার শ্বশুরবাড়ী আছে : উটম, হামি টোমার শ্বশুরবাড়ী সাচ্চ খড়িবে।” “হেখানে বোমা টৈয়াড়ি হয় কিনা ড়েখিবে। ইহা সাচ্চ-ওয়ারেন্ট আছে।”—বলিয়া সাহেব সাচ্চা-ওয়ারেন্টখানি ক্ষেত্রবাবর হতে প্রদান করিলেন। ক্ষেত্রবাব সেখানি উলিটয়া পাল্টিয়া দেখিয়া, সাহেবের হাতে ফিরাইয়া দিলেন । বলিলেন—“হজুর মালেক—যা ইচ্ছা করিতে পারেন।” সাহেব বলিলেন—"ষ্ট্রীলোক ঘনকে লকোহঁয়া রাখ।” পলিস গহমধ্যে প্রবেশ করিল। সীলোকগণের মধ্যে কেবল বিনোদিনী। তিনি পলিসের ভয়ে কোথাও লুকাইবার প্রয়োজন দেখিলেন না। হরিনামের মালাটি হাতে করিয়া উঠানে তুলসীতলায় বসিয়া রঙ্গিলেন। খানাতল্লাসী আরম্ভ হইল। বন্দক, বারদ, ডিনামাইট, বোমা, বৰ্ত্তমান রণনীতি, ধগতির, গীতা, দেশের কথা, রিভিউ অব রিভিউজ প্রভৃতি কিছুই বাহির হইল না। বাহির হইল—হিন্দ সংকলম-মালা, গুপ্তপ্রেস পঞ্জিকা, কাশীদাসী মহাভারত এবং একখানা বটতলার ছোড়া উপন্যাস। ক্ষুদ্র বা বহৎ কোনও দেশনায়কের কোনও ছবি বাহির হইল না—বহির হইল কেবল খানকতক কালীঘাটের পট এবং একখানা আট টুডিওর গণেশ মত্তি । জমিদারের খানকতক পরাতন দাখিল এবং একটা ধলিমলিন চিঠির ফাইল বাহির হইল। বিনোদিনীর বাকু হইতে বাহির হইল এক বাণ্ডিল চিঠি এবং খানকতক ঠিকানা লেখা শাদা খাম। সমস্ত জিনিষ উঠানে আনিয়া জমা করা হইল। একজন দারোগা কাগজপত্রগুলির ফিরিসিত প্রস্তুত করিতে লাগিলেন। ক্ষেত্রমোহনও সেইখানে বসিয়া ছিলেন। তিনি দেখিলেন, শাদা খামগুলির প্রত্যেক খানিতে তাঁহারই শিরোনামা লেখা এবং রসময়ীর হস্তাক্ষর ! পলিস সাহেবের অনুমতি লইয়া খাম ও চিঠিগুলি ক্ষেত্ৰবাব পরীক্ষা করিতে লাগিলেন। খান কুড়ি চিঠি রহিয়াছে—সমস্তই বেগনী রঙের ম্যাজেণ্টা কালিতে, রসময়ীর হস্তাক্ষরে লিখিত। কয়েকখানি চিঠি খলিয়া ক্ষেত্রবাব পাঠও করিলেন। নানা অবস্থা কল্পনা করিয়া অনুমানে পত্রগুলি লিখিত। কোন কোনটাতে বটগাছে বাসস্থানেরও উল্লেখ আছে। একখানাতে আছে—“গয়ায় পিণ্ডদান করিয়া আসিয়াছ বলিয়া মনে কবিও না আমি আর তোমার অনিষ্ট করিতে পারি না। এখনও রাঁস বামনী তোমার ঘড়ি মটকাইতে পারে।” একখানাতে রহিয়াছে—“শনিলাম বিবাহের দিন পিথর হইয়াছে, এখনও সাবধান।" একখানাতে আছে– “কল্য তোমার বিবাহ। এত মানা করিলাম