পাতা:প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়ের গল্পসমগ্র.djvu/৭০০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


পড়ল কি করে ?” “প্রকাশের চেম্ববাস থেকে একখানা বই কোনও লোক পড়তে নিয়ে যায়। সে বইয়ের মধ্যে এ চিঠি ছিল। আচ্ছা, তোমার কি মনে হয় সত্যই প্রকাশ বিলতে বিয়ে করে এসেছে ?” সন্তেষবাব পত্ৰখানি আবার পাঠ করলেন। শেষে বলিলেন-প্রমাণ ত অকাট্য ।” “আচ্ছা, এও ত হতে পারে, বিলাতে হয় ত বিয়ে করেছিল, সে পী মরে গেছে ?” সন্তোষবাব, উত্তেজিত করে বললেন—“তা যদি হত, তা হলে প্রকাশ ও কথা লকোবে কেন ? তা হলে স্পষ্টই বলত, বিলতে আমি বিবাহ করেছিলাম বটে, কিন্তু এখন আমি বিপত্নীক। বেশ বোঝা যাচ্ছে সেখানে বিবাহ করেছিল, তার পর নিজের ভূল বলতে পেরেছে। ভেবে দেখেছে, সে স্মীকে এ দেশে নিয়ে এলে লাঞ্ছনার সীমা থাকবে না। একে নতুন ব্যারিস্টার, পৈত্রিক বিষয়সম্পত্তিও তেমন কিছু নেই, মেমসাহেবের গাউনের *বল শধতে শধতেই দেউলে হয়ে যাবে। তাই তাকে ফেলে চলে এসেছে। কত লোক এমন করেছে, শধই কি প্রকাশ ; রবিবাবর প্রায়শ্চিত্ত গল্প পড়ন প্রকাশ যাকে বিয়ে করেছিল সে হয়ত গরীবের মেয়ে, মিসেস অনাথবন্ধ সরকারের মত সাতসমুদ্র প্রশ্ন হয়ে এসে হাজির হতে পারবে না—তাই সংযোগ বঝে নিশ্চিত মনে সটীকান দিয়েহে । উঃকি ভয়ানক কথা! কি বিশ্বাসঘাতকতা ! সে হতভাগিনীর এখন উপায় কি হয়েছে তা జ్ఞి হয়ত দটি একটি ছেলে মেয়ে সন্ধ তাকে ভাসিয়ে দিয়ে এসেছে। কি অ t দুইজনে কিয়ৎক্ষণ নীরবে বসিয়া রহিলেন। ভূত্য চা আনিয়া দিল । সে কক্ষের প্রান্তে, সপ্রভার শয়নকক্ষের রাধ বারের বহিরে বিমি শুইয়াছিল। চাপানের সময় বিমি প্রতিদিন হাজির থাকে, দই একখানা বিস্কুট পায়। আজ তাহাকে নিকটে না দেখিয়া সন্তোষবান একখানা বিস্কুট হাতে তুলিয়া ডাকিলেন--বিমে বিমি বিমি।” বিমি সেইখানে শাইয়া মাঙ্গল নাড়িল—কিন্তু আসিল না। বিস্কুটের প্রতি তাহার এতাদশ ঔদাসিন্য পাবে কখনও দেখা যায় নাই। চা-পান করিতে করিতে সন্তোষবাব জিজ্ঞাসা করিলেন—“কাকামশায় এখনও এলেন ন: ?” গহিণী বললেন--”আজ তাঁর আসতে দেরী হবে। কাছারীর পর কলকাতায় গেছেন -একটা কি সভা আছে।” সন্তোষবাবর চা-পান - শেষ হইলে গহিণী বললেন—“তুমি একটা বস। আমি সপ্রভাকে দেখি।” - “না কাকীমা—স প্রভাকে এখন অনুতাপ করতে দাও—তাতে ওর অনেক উপকার হবে।” BBB BBBBBSBBBBB BBB BB S BB D BBB S BBBBS BB BBBS কেঙ্গে সারা হচ্ছে। আমি গিয়ে ওকে ওঠাই ।” সন্তোষ দাঁড়াইয়া বললেন--“আমি আর বসব না, যাই । কাল এসে কাকামশায়ের সঙ্গে দেখা করব এখন " “না সন্তোষ, তুমি বস। আজ আবার একটা ভার মকিল হয়েছে। প্রকাশকে ডিলারে মেমন্তশ্ন করেছিলাম, সে হয়ত এখনি এসে পড়বে। আমার যে রকম মনের অকথা, আমি তার সঙ্গে বসে কথাবাত্তা কইতে পারব না । অন্ততঃ তিনি বাড়ী না আসা পর্যন্ত তুমি থাক। তিনি সাতটার মধ্যেই আসবেন।" সন্তোষবাব, উত্তেজ্ঞিত বরে বলিলেন-"সে মরাধমকে আর এ বাড়ীতে আসতে দেওয়া

  • 2° "iট মিলিত আজ ত আর তাকে তার দিতে পাৱা বাবে না। তিনি আসন, গুখি সঙ্গে পরামশ করে স্না হয় করা ধাবে। শেষে ত বাড়ী বন্ধ করতেই হবে।”

“কিন্তু কাকীমা, আমি যে তার সঙ্গে বসে মন খালে গল্পগজব করতে পারি, এমন ষোধ হয় না। হয়ত নিজেকে সামলাতে না পেরে কোন রাঢ় কথা বলে ফেলব।’ ও প্রাপ তেমন তো না কি মী মা-কোন রকম রাঢ়তা তার সঙ্গে - ویه