পাতা:প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়ের গল্পসমগ্র.djvu/৭২৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


“পনেরো টাকা ।” “দ মাস পরে আপনার উপাঙ্গন যেমন পাঁচশটি টাকা বাড়বে, তেমনি খরচও পনেরোটি টাকা বেড়ে গেল।” "তা কি আর করা যাবে ! কায়ক্লেশে কোনও রকম করে দিনপাত করা।” দইদিন পরে ভুবনেশ্বরবাব নিজের জমিদারীতে ফিরিয়া গেলেন। এবার তিনমাসের কম আর তাঁহার কলিকাতায় আসা হইবে না। नवत्र *ब्रिट्टाकून ইহার কিছুদিন পরেই নলিনী লক্ষ্য করিল, বড়বাব তাহার প্রতি পাবের মত আর সদয় ব্যবহার করেন না। একটু ছতা পাইলেই নলিনীকে কড়া কড়া শনাইয়া দেন । নলিনীর কোনও কাজই তাঁহার পছন্দ হয় না। নলিনীর কাজে সামান্য একটা ভুলচক হইলেই বড়বাব তাহাকে ডাকিয়া তিরুকার করিয়া বলিতে লাগিলেন--"দেখ বাব এ রকম করলে কিন্তু তোমার দ্বারায় এ আপসের কাজ হবে না।” এইরপে খিটিমিটি প্রতিদিনই বাড়িয়া চলিল। সোমবার দিন একজন সহকমী বিনোদবাব নলিনীকে আড়ালে ডাকিয়া লইয়া গিয়া বলিলেন, “আপনার প্রতি বড়বাবরে অসন্তোষের কারণটা টের পয়েছি।” নলিনী বলিল, “কি বলন দেখি ?" “আপনি বন্দীপরের জমিদার ভুবনেশ্বরবাবকে চেনেন ?" “খব চিনি।” “তিনি কবে এসেছিলেন ?” “এই সম্প্রতি এসেছিলেন। এক হস্তা হল ফিরে গেছেন।” “তিনি আমাদের বড়বাবর একজন বন্ধ, তা জানেন ?” “জানিনে আবার? তিনিই ত বড়বাবকে ধরে আমার চাকরি করিয়ে দিয়েছিলেন।" “জানেন যদি, তবে এমন কাজ কেন করলেন ?” নলিনী বিস্মিত হইয়া বলিল, “কি করেছি?" “কি করেছেন ভেবে দেখুন। তাঁর কাছে আপনি বড়বাবর সম্বন্ধে কি বলেছিলেন —তাইতেই অগি্ন লেগে গেছে।” নলিনী অধিকতর বিস্মিত হইয়া বলিল, “আমি কি বলেছি ?” “আপনি নাকি বলেছেন বড়বাব, বন্ধ মাতাল, ওষুধের মাকামারা শিশি করে আপিসে ব্রাণ্ডি নিয়ে আসেন-ঘণ্টা ঘণ্টা সেই ব্রান্ডি থান। পরশ সন্ধ্যেবেলায় ওঁর বাড়ীতে আমরা শনিবার করতে গিয়েছিলাম, উনি ঐ সব কথা বললেন।” নলিনীর স্মরণ হইল, যে দিন সে ভুবনবাবরে বাড়ীতে নিমন্ত্রণ খাইতে গিয়াছিল, সে দিন ঔষধের শিশির কথা হইয়াছিল বটে। তৰুে সে বড়বাবকে তুলিও বলে নাই তাঁহার কোনরূপ নিন্দাও করে নাই। সেই কথা নলিনী বিনোদবাবকে বলিল। - বিনোদবাব বললেন, “ঐ ত 1 মাখে মুখে কথা বেড়ে যায় কিনা। আচ্ছা, আমি বড়বাবকে বুঝিয়ে বলব এখন। আপনার উচিত নলিনীবাবু, মাঝে মাঝে ওঁর বাড়ীতে যাওয়া, ওঁর একট খোসামোদ করা। দেখছেন না আজকাল খোসামোদেরই বাজার। আমরা ত প্রায়ই ওঁর বাড়ীতে শনিবার করতে যাই—আপনি যান না কেন ?” নলিনী একটা হাসিয়া বলিল, “আপনারা মোটা মোটা মাইনে পান, আপনাদের শনিবার করা পোষায়। আমি গরীব মানুষ, আপনাদের দলে পড়ে যদি শনিবার করতে শিখি, তা হলে আমার দরগতিটা কি হবে বলন দেখি ? পেটেই খেতে কুলায় না ত শনিবার করি কেথেকে বলনে?" ురి8