পাতা:প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়ের গল্পসমগ্র.djvu/৭৩৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


সন্ধ্যার কিছ পাবে জয়রাম বৈঠকখানায় বসিয়া পাশাখেলা দেখিতেছিলেন। এমন সময় সেই পত্রবাহক ভূত্য ফিরিয়া আসিয়া বলিল—“হাতী পাওয়া গেল না।” কুঞ্জবাব নিরাশ হইয়া বলিয়া উঠিলেন—“আী!—পাওয়া গেল না ?” নগেন্দুবাব বলিলেন—“তাই তা সব মাটি ?" - মোক্তার মহাশয় বলিলেন-"কেন রে, হাতী পাওয়া গেল না কেন ? চিঠির জবাব এনেছিস ?” ভূত্য বলিল—“আজে না। দেওয়ানজীকে গিয়ে চিঠি দিলাম। তিনি চিঠি নিয়ে মহারাজের কাছে গেলেন। খানিক বাদে ফিরে এসে বললেন, বিয়ের নেমন্তশ্ন হয়েছে তার জন্যে হাতী কেন ? গরুর গাড়ীতে আসতে বোলো।” এই কথা শনিবামার জয়রাম ক্ষোভে, লক্ষজায়, রোষে যেন একবারে ক্ষিপ্তপ্রায় হইয়া উঠিলেন। তাঁহার হাত পা ঠক ঠক করিয়া কাঁপতে লাগিল। দই চক্ষ দিয়া রক্ত ফাটিয়া পড়িতে লাগিল। মাখমণ্ডলের শিরা-উপশিরাগলি গীত হইয়া উঠিল। কল্পিতসবরে, ঘাড় বাঁকাইয়া বারংবার বলিতে লাগিলেন—“হাতী দিলে না। হাতী দিলে না।" সমবেত ভদ্রলোকগণ ক্রীড়া বন্ধ করিয়া হাত গটাইয়া বসিলেন। কেহ কেহ বলিলেন —“তার আর কি করবেন মাখযে মশায়। পরের জিনিষ, জোর ত নেই। একখানা ভাল দেখে গেরির গাড়ী ভাড়া করে নিয়ে রায় দশটা এগারটার সময় বেরিয়ে পড়ন, ঠিক সময় পৌঁছে যাবেন। ঐ ইমামন্দি শেখ একযোড়া নতন বলদ কিনে এনেছে—খবে প্রতে • যায়।” জয়রাম বক্তার দিকে দটিমাত্র না করিয়া বলিলেন—“না। গেরির গাড়ীতে চড়ে আমি যাব না। যদি হাতী চড়ে যেতে পারি, তবেই যাব, নইলে এ বিবাহে আমার যাওয়াই "ן דה ה-57 फूफौग्न अब्रिटाइन সহর হইতে দই তিন ক্লোশের মধ্যে দুই তিনজন জমিদারের হস্তী ছিল। সেই রাত্রেই জয়রাম তত্তং স্থানে লোক পঠাইয়া দিলেন, যদি কেহ হস্তী বিক্লয় করে, তবে কিনিবেন। রাত্রি দুই প্রহরের সময় একজন ফিরিয়া আসিয়া বলিল—“বীরপরের উমাচরণ লাহিড়ীর একটি মাদ'-হাতী আছে—এখনও বাচ্ছা। বিক্ৰী করবে, কিন্তু বিস্তর দাম . চায়।” - “কত ?” “দ হাজার টাকা।" “খবে বাচ্ছা ?” "না, সওয়ারি নিতে পারবে।” “কুছ পরওয়া নেই। তাই কিনব। এখনই তুমি যাও। কাল সকালেই যেন হাতী আসে। লাহিড়ী মশায়কে আমার নমস্কার জানিয়ে বোলো, হাতীর সঙ্গে যেন কোন বিশ্বাস" কৰ্ম্মচারী পাঠিয়ে দেন, হাতী দিয়ে টাকা নিয়ে যাবে।" BDDD BB BBB BB DDBD DDBS BBB DD SDDDDS DDD &হাশয়ের কলমচারী রীতিমত ট্যাপ-কাগজে রসদ লিখিয়া দিয়া দই হাজার টাকা লইয়া প্রন্থান করিল। বাড়ীতে হাতী আসিবামার পাড়ার তাবৎ বালক বালিকা আসিয়া ধৈঠকখানার উঠানে ভিড় করিয়া দাঁড়াইল। দুই একজন অশিষ্ট বালক সরে করিয়া বলিতে লাগিল—“হাতী, তোর গোদা পায়ে নাতি।” বাড়ীর বালকেরা ইহাতে অত্যন্ত কন্ধে হইয়া উঠিল এবং অপমান করিয়া তাহাদিগকে বহিস্কৃত করিয়া দিল। হস্তিনী গিয়া অন্তঃপ্রণবারের নিকট দাঁড়াইল। মাখয্যে মহাশয় বিপত্নীক—তাঁহার জ্যেষ্ঠা পত্রবধ একটি ঘটতে জল লইয়া সভয়-পদক্ষেপে বাহির হইয়া আসিলেন। কম্পিত হন্তে তাহার পদচতুষ্টয়ে সেই জল একটু একটা ঢালিয়া দিলেন। মাহতের ইঙ্গিতানসারে - $88